ঢাকা, শুক্রবার,২৩ জুন ২০১৭

অনলাইন জগৎ

বিষণ্নতার জন্য দায়ী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম

 আহমেদ ইফতেখার

০৪ জানুয়ারি ২০১৭,বুধবার, ১৭:৫৪


প্রিন্ট

বর্তমানে আমাদের জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। প্রিয়জনের সাথে সংযুক্ত থাকতে কিংবা বিভিন্ন ধরনের তথ্য আদান-প্রদান করতে সবার কাছে নির্ভরযোগ্য মাধ্যম সোস্যাল মিডিয়া। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অতিরিক্ত সময় ব্যয় সবার জন্যই ক্ষতির কারণ হয়ে উঠতে পারে।
ইউনিভার্সিটি অব পিটসবার্গের সেন্টার ফর রিসার্চ অন মিডিয়া, টেকনোলজি অ্যান্ড হেলথের (সিআরএমটিএইচ) সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, তথ্য আদান-প্রদান, সামাজিক মতবিনিময় ও প্রিয়জনের সাথে সংযুক্ত থাকতে বিভিন্ন ধরনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা অর্জন করে। প্রতিদিন মানুষ ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব, লিংকডইন, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট, পিন্টারেস্ট, রেডিটসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দীর্ঘ সময় ব্যয় করছে। সাধারণ মানুষ বিশেষত তরুণদের ওপর এসব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ইতি ও নেতি উভয় ধরনের প্রভাবই রয়েছে। একাধিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের অতিরিক্ত ব্যবহারে বিষণ্ণতার ঝুঁকি বাড়ে উল্লেখযোগ্য মাত্রায়। এ নিয়ে অনেক দিন ধরেই গবেষণা চালাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট গবেষকেরা। সম্প্রতি এমনই একটি গবেষণায় দেখা গেছে, একাধিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অতিরিক্ত সময় ব্যয় করলে তা মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষতির কারণ হতে পারে। বিশেষত বিষণ্নতার ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে আশঙ্কাজনক মাত্রায়।
সিআরএমটিএইচের গবেষণায়, যুক্তরাষ্ট্রের ১৯ থেকে ৩২ বছর বয়সী এক হাজার ৭৮৭ ব্যক্তির ওপর পরিচালিত একটি জরিপ পর্যালোচনা করা হয়। জাতীয়ভাবে পরিচালিত ওই জরিপে অংশগ্রহণকারীদের বিষণ্নতা ও দুশ্চিন্তাবিষয়ক বিভিন্ন তথ্য গবেষকেরা সংগ্রহ করেন। জরিপটিতে অংশ নেয়া ব্যক্তিদের মধ্যে এমন প্রবণতা চিহ্নিতকরণে পিআরোএমআইএস নামে একটি পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। গবেষণায় অংশ নেয়া ব্যক্তিদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অতিবাহিত সময়, বিভিন্ন ধরনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উপস্থিতি, লৈঙ্গিক পরিচয়, আয় ও বৈবাহিক অবস্থাসহ আরো বেশ কিছু বিষয় বিবেচনায় নেয়া হয়। এতে দেখা যায়, অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে যারা একাধিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নিয়মিত ব্যবহার করেন, তাদের মধ্যে বিষণ্নতা ও দুশ্চিন্তাগ্রস্ততার প্রবণতা অন্যদের তুলনায় বেশি। এ ক্ষেত্রে বেশি সামাজিক সাইটে পরিভ্রমণ করা ব্যক্তিদের বিষণ্নতার মাত্রা অন্যদের তুলনায় ৩.১ গুণ বেশি। একইভাবে ওই ব্যক্তিরা অন্যদের তুলনায় ৩.৩ গুণ বেশি দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়। এ ছাড়া দিনে শূন্য থেকে দুই ঘণ্টা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সময় কাটানো ব্যক্তিদের তুলনায় ৭ ঘণ্টার বেশি সময় কাটানো ব্যক্তিদের মধ্যে এ ধরনের প্রবণতা তিন গুণ বেশি থাকে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫