ঢাকা, বুধবার,২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

প্যারেন্টিং

শীতে শিশুর সর্দি-কাশি

ডা: সুমন চৌধুরী

০৩ জানুয়ারি ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৭:৪৩


প্রিন্ট

শীতকালে শিশুদের প্রায়ই ঠাণ্ডা লাগতে দেখা যায়, এমন হলে কী করা উচিত?
সর্দি-কাশি, যাকে ঠাণ্ডা লেগেছে বলা হয় তা প্রকৃতপক্ষে কোনো রোগ নয়। এটি অন্য কোনো রোগের উপসর্গ। নাক, গলা ও ফুসফুসের প্রদাহ থেকে সাধারণত এ লক্ষণ প্রকাশ পায়। সর্দি-কাশি লাগার ডাক্তারি পরিভাষার অর্থ হলো ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সংক্রমণ কিংবা অ্যালার্জি। সাধারণ সর্দিতে বিশেষ কিছু করার নেই। আপনাআপনিই তা কমে যায়। কাশি থাকলে শিশুকে আদা-চা, মধু ও তুলসীপাতার রস খাওয়াতে পারেন। এতে কাশি কিছুটা কমবে। তবে বেশি হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন।

এ সময় শিশু কী রকম পোশাক ব্যবহার করবে?
শীতের জামা পরিয়ে নিজের হাতের তালু জামার ভেতরে দিয়ে শিশুর বুকে রেখে দেখুন ও ঘামছে না কাঁপছে। সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পোশাক পরান। ঘামলে হালকা কাপড় পরাবেন আর শীতে কাঁপলে শীতের পোশাক পরাবেন।

সর্দি-কাশিতে মা-বাবার কী করণীয়?
সর্দি হলে অনেকেই শিশুকে তেল মালিশ করাতে চান। এর কোনো প্রয়োজন নেই। যদি মাখতেই চান তবে আলতো করে তেল মালিশ করতে পারেন। এ সময় অধৈর্য না হয়ে চিকিৎসকের ওপর আস্থা রাখুন। যদি তিনি আপনাকে বলেন, তিন-চার দিন কাশি হবে তবে এ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। শিশুর কষ্ট হচ্ছে দেখে ‘কফ সিরাপ’ খাওয়াবেন না। শিশুকে ওষুধ অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খাওয়াবেন।

শিশুর ঠাণ্ডা লাগা কি প্রতিরোধ করা যায়?
হ্যাঁ, অবশ্যই যায়। এ জন্য পরিবেশ সম্পর্কে সচেতনতা এবং কিছু স্বাস্থ্যজ্ঞান থাকা জরুরি। পরিবারে কারো ঠাণ্ডা লাগলে তা সহজেই পরিবারের শিশুদের সংক্রমিত করে। ঘরে যেন পর্যাপ্ত আলো-বাতাস প্রবেশ করে সে ব্যবস্থা রাখতে হবে। পরিবারের কারো ঠাণ্ডা লাগলে শিশুর মুখের কাছে হাঁচি-কাশি দেয়া বা চুমো দেয়া বা আদর করা ঠিক নয়। আর যেসব শিশু দুর্বল ও প্রায়ই অসুখে ভোগে, সম্ভব হলে তাদের আলাদা ঘরে রাখা উচিত।

সর্দির সাথে কাশি ও নাক বন্ধ হলে কী করতে হবে?
আসলে সর্দির সাথে কাশি হলে তা সর্দি বের করতেই সাহায্য করে। তাই অযথা কাশির ওষুধের অপব্যবহার করবেন না। সর্দি হলে অনেক সময় শিশুর নাক বন্ধ হয়ে যায়, ফলে সে ঘুমাতে পারে না, খেতে চায় না, অস্বস্তিবোধ করে, কান্নাকাটি করে এবং সর্বোপরি তার বুকে শব্দ শোনা যায়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫