ঢাকা, শুক্রবার,১৮ আগস্ট ২০১৭

কূটনীতি

সু চি’র বিশেষ দূতের সফর নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আলোচনা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

০১ জানুয়ারি ২০১৭,রবিবার, ১৯:৪১


প্রিন্ট

রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু সংকট নিয়ে আলোচনার জন্য বাংলাদেশে বিশেষ দূত পাঠাচ্ছেন মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চি। চলতি মাসেই মিয়ানমারের প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদার একজন প্রতিনিধি সু চি’র বিশেষ দূত হিসেবে ঢাকা আসতে পারেন। বিষয়টি নিয়ে আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সাথে আলাপ করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত মিউ মিন্ট থান।

রাখাইন রাজ্যের সংকট নিয়ে আলোচনার জন্য ঢাকা আসার একদিন আগে গত ১৯ ডিসেম্বর ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি ইয়াঙ্গুনে সু চি’র সাথে বৈঠক করেন। এতে বাংলাদেশের সাথে শক্তিশালী যোগাযোগ রাখার জন্য মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানান মারসুদি। এর প্রতিক্রিয়ায় বাংলাদেশে একজন বিশেষ দূত পাঠানোর প্রস্তাব দেন সু চি।

ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি ঢাকা সফরকালে বিষয়টি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীকে অবহিত করেছেন। মাহমুদ আলী সু চি’র প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছিলেন।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত আজ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অনুবিভাগের মহাপরিচালক মঞ্জুরুল করিমের সাথে দেখা করে বিশেষ দূতের বিষয়ে আলোচনা করেছেন। এতে বিশেষ দূতের ঢাকা সফরের দিনক্ষণ নিয়ে আলাপ হয়েছে।

গত ৯ অক্টোবর রাখাইন রাজ্যের সীমান্ত চৌকিতে হামলাকে কেন্দ্র করে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর দমন-পীড়নে এ পর্যন্ত প্রায় ৫০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে বলে জানিয়েছিলেন পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক। তার আর আগে থেকেই বাংলাদেশে প্রায় তিন লাখ রোহিঙ্গা উদ্বাস্ত ছিল। এর মধ্যে ৩৩ হাজার নিবন্ধিত, বাকীরা অবৈধ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে বাংলাদেশে অবস্থিত মিয়ানমারের সব নাগরিককে ফেরত নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি সেন্ট মার্টিন দ্বীপের কাছে বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ সীমানায় মিয়ানমার নৌবাহিনীর বাহিনীর গুলিতে চারজন বাংলাদেশী আহত হওয়ার ঘটনার পূর্ণ তদন্ত দাবি করেছে বাংলাদেশ।

মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বাংলাদেশ থেকে শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারেও কোনো আগ্রহ দেখায় না। ২০০৭ সালে নিবন্ধিত রোহিঙ্গাদের মধ্যে মিয়ানমার মাত্র দুই হাজার ৪১৫ জনকে ফিরিয়ে নেয়ার একটি পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল। কিন্তু তার বাস্তবায়ন করেনি। সম্প্রতি রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের সংখ্যা নিয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিবের দেয়া সংখ্যার ব্যাপারেও তারা বিস্ময় প্রকাশ করেছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫