ঢাকা, শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭

কম্পিউটার ও আইটি

বছরজুড়েই তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রগতি

৩০ ডিসেম্বর ২০১৬,শুক্রবার, ১৯:৫৪


প্রিন্ট

বিদায় নিচ্ছে ২০১৬ সাল। বৈশ্বিক প্রযুক্তি খাতের জন্য কেমন গেল বছরটি। ২০১৬ প্রযুক্তি খাতসংশ্লিষ্টদের দৃষ্টিতে ঘটনাবহুল একটি বছর। অনেক নতুন প্রযুক্তির শুরুটা হয়েছে ২০১৬ সালে। সব কিছু মিলিয়ে বছরজুড়ে প্রযুক্তির উৎকর্ষেও শীর্ষে ছিল ভার্চুয়াল রিয়ালিটি ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা-ভিত্তিক ডিভাইসের উন্নয়ন। এর পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি চোখে পড়েছে সফটওয়্যার নির্মাতাদের হার্ডওয়্যার তৈরিতে মনোনিবেশের বিষয়টি। লিখেছেন নাজমুল হোসেন

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তায় চমক
কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আরো চৌকস করতে বছরজুড়েই চেষ্টা ছিল গুগলের। গুগল, টেসলা মোটরস, এমনকি পরিবহন সেবার ডিজিটাল প্লাটফর্ম হিসেবে দাবি করা উবারও এ বছরে চালকবিহীন স্বয়ংক্রিয় গাড়ি তৈরিতে মনোযোগী হয়েছে। হয়তো আমাজন ইকোর সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়েই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ডিজিটাল সহকারী-কাম স্পিকার ‘গুগল হোম’ বাজারে ছেড়েছে সার্চ ইঞ্জিনভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি। ইকোর চেয়ে যদিও গুগল হোম থেকে পাওয়া শব্দের মান অনেক ভালো, তবে খুব জোরে যখন বাজে তখন যন্ত্রটি কোনো কণ্ঠ নির্দেশ গ্রহণ করে না। আর ইকোর চেয়ে নির্দেশ গ্রহণ করার সংখ্যাও কম। তবে যন্ত্রটি গত অক্টোবরে বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ধীরে ধীরে উন্নয়নের কাজ চলছে।
চলতি বছরে মার্কিন গাড়ি নির্মাতা টেসলার এস মডেলের একটি কার অটোপাইলট মোডে চালাতে গিয়ে মিনি ট্রাকের ধাক্কায় ফ্লোরিডার এক চালক নিহত হন। গত মে মাসে স্বচালিত গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রথম কোনো ব্যক্তির প্রাণহানি হয়। টেসলার এস মডেলের স্বচালিত গাড়ির অটোপাইলট সিস্টেম অকার্যকর হওয়ায় দুর্ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে ফ্লোরিডার হাইওয়ে পুলিশ। দুর্ঘটনার পর স্বচালিত গাড়ির নিরাপত্তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়।
কয়েক দশক আগেই শিল্পকারখানায় শ্রমিকের পাশাপাশি যন্ত্রের বহুল ব্যবহার শুরু হয়েছে। তবে শুধু শ্রমিকদের রদবদল করেই ক্ষান্ত হননি প্রতিষ্ঠানের প্রধানেরা। কায়িক শ্রমের পাশাপাশি বুদ্ধিভিত্তিক কাজেও এবার যন্ত্রের ব্যবহার করতে চান তারা। বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান ব্রিজওয়াটার অ্যাসোসিয়েটস কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তানির্ভর এমন এক সফটওয়্যার তৈরি করছে, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাদের দৈনন্দিন সিদ্ধান্ত গ্রহণের কাজ করবে। এর মধ্যে আছে কর্মপরিকল্পনা, কর্মী নিয়োগ ও ছাঁটাই এবং অন্যান্য কৌশলগত সিদ্ধান্ত গ্রহণের কাজ।

ভার্চুয়াল রিয়ালিটির চমক
২০১৬ সাল ছিল ভার্চুয়াল রিয়ালিটির (ভিআর) জন্য আলোচিত বছর। বছরের শুরুতে লাস ভেগাসের কনজুমার ইলেকট্রনিকস শো (সিইএস) থেকে শুরু করে যত তথ্যপ্রযুক্তির মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে, তার সবগুলোতেই ছিল ভার্চুয়াল রিয়ালিটি যন্ত্রের উপস্থিতি। মেলা থেকে সে প্রযুক্তি ছড়িয়ে পড়েছে ভ্রমণ, রিয়েল এস্টেটে, চিকিৎসাপ্রযুক্তি, বিনোদন ও গেমিং শিল্পে। বিশ্বের বেশির ভাগ প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নিত্যনতুন ভার্চুয়াল রিয়ালিটি হেডসেট বাজারে ছেড়েছে। চলতি বছরেই ভার্চুয়াল রিয়ালিটির হেডসেট তৈরিতে ফেসবুক, গুগল ও সনির মতো বেশ কয়েকটি বড় প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এসেছে। এ ক্ষেত্রে হার্ডওয়্যারের বাজারে শুধু শীর্ষে যাওয়াই লক্ষ্য নয়, বরং প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন সফটওয়্যার ও প্লাটফর্মে আগে থেকেই এগিয়ে থাকার জন্য ভিআর নিয়ে কাজ করছে।
ভার্চুয়াল রিয়ালিটি নিয়ে আন্তর্জাতিক একটি জোট গঠন করেছে বিশ্বের কয়েকটি বড় প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান। এসারের স্টারব্রিজ, ফেসবুকের অকুলাস, এইচটিসি ভাইভ, স্যামসাং ও সনি ইন্টার অ্যাক্টিভ মিলে ‘গ্লোবাল ভার্চুয়াল রিয়ালিটি অ্যাসোসিয়েশন’ (জিভিআরএ) নামে একটি অলাভজনক সংস্থা গড়েছে। এই সংগঠন ভার্চুয়াল রিয়ালিটি গবেষণা, প্রযুক্তি উন্নয়ন ও সব ভার্চুয়াল রিয়ালিটি নির্মাতা ও গ্রাহককে এক জায়গায় আনতে কাজ করছে। এ ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালে আরো উন্নত ভিআর প্রযুক্তি হাতে পাবেন গ্রাহকেরা। জানুয়ারিতে স্পেনের বার্সেলোনায় অনুষ্ঠেয় কনজ্যুমার ইলেকট্রনকস শোতে দেখা যাবে ভিআরের নানা উন্নত সংস্করণ।

হার্ডওয়্যারে মনোনিবেশ
দীর্ঘ দিন যাদের নিখাদ সফটওয়্যার নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচয় ছিল, হুট করেই তারা ডিভাইস নির্মাণে মনোযোগী হয়েছে। গুগলের ডে ড্রিম ভিআর, ওয়াইফাই, হোম আর পিক্সেল স্মার্টফোন নিয়ে মোটামুটি যন্ত্রনির্মাতার খ্যাতি পেয়েছে এই প্রতিষ্ঠান। ই-কমার্স ওয়েব পোর্টাল আমাজন অবশ্য কিন্ডল ই-বুক রিডার নিয়ে আগে থেকেই ডিভাইস নির্মাতা হিসেবে পরিচিত ছিল। এর সাথে স্মার্টহোম ডিভাইস হিসেবে ইকো বাজারে ছেড়েছে ২০১৬ সালে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম স্ন্যাপচ্যাট বাজারে ছাড়ে স্মার্ট চশমা। বছরজুড়েই যন্ত্র নির্মাণে ঝোঁক দেখা গিয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলোর।

হেডফোন জ্যাকবিহীন আইফোন
মার্কিন প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপল গত সেপ্টেম্বরে আইফোনের সর্বশেষ সংস্করণ উন্মোচন করে। ডিভাইসটিতে প্রচলিত হেডফোন ব্যবহারের জন্য ৩.৫ মিলিমিটার জ্যাক রাখা হয়নি। পরিবর্তে ব্লুটুথ ওয়্যারলেস হেডফোন এয়ারপড উন্মোচন করা হয়। সংশ্লিষ্টরা সে সময় হেডফোন জ্যাক না রাখার পক্ষে বিভিন্ন যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। তবে প্রযুক্তিবিশ্বে প্রতিষ্ঠানটির সে যুক্তি হাস্যরসের জোগান দিয়েছিল।

আলোচিত অ্যাপ
বিশ্বের ১৯০টি দেশে গুগল প্লে-স্টোর থেকে ২০১৬ সালে ৬৫ বিলিয়ন অ্যাপ ডাউনলোড হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে। প্লে-স্টোরে সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হয়েছে গুগল ডুয়ো অ্যাপটি। স্কাইপ ও অ্যাপলের ফেসটাইমের মতোই কন্টাক্ট লিস্টে থাকা ব্যক্তিদের ভিডিওকল করার সুবিধা দেয় এই অ্যাপটি।

প্রিজমায় মজেছিল তরুণেরা
২০১৬ সালে গুগলের কাছ থেকে সেরা অ্যাপের তকমা পাওয়া অ্যাপ হচ্ছে প্রিজমা। ছবিকে শৈল্পিক রূপে রূপান্তর করা অ্যাপটিতে আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স ব্যবহার করা হয়েছে। এই অ্যাপটিতে ব্যবহার করা হয়েছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই)। ফলে সহজে ও বেশ নিখুঁতভাবেই ক্যামেরায় তোলা ছবিতে পাওয়া যায় আঁকা ছবির আবহ। প্রিজমা এতটাই জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে, শুরুর দিকে বিশ্বের যেসব জায়গা থেকে প্রিজমা ব্যবহার করা যেত না, সেসব জায়গায় ব্যবহারকারীরা ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক বা ভিপিএনের মাধ্যমে ব্যবহার করেছে। আর বর্তমানে আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড উভয় প্লাটফর্মে বেশি ডাউনলোড হওয়া অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রিজমা।

জনপ্রিয়তার শীর্ষে ছিল পোকেমন গো
২০১৬ সালে প্লে-স্টোরে সেরা গেমের মর্যাদা পেয়েছে পোকেমন গো। গেম হিসেবে এই অ্যাপ ছিল ডাউনলোডের শীর্ষে। গত ৬ জুলাই আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েডের জন্য ছাড়া হয় গেমটি। তারপর যত দিন পার হয়েছে তত জনপ্রিয়তা বেড়েছে। তবে গেমটি কম বিড়ম্বনায় ফেলেনি। গির্জায় পোকেমন গো খেলার কারণে রুশ এক ইউটিউবারকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। গেমটি খেলতে খেলতে সড়ক দুর্ঘটনার ঘটনাও ঘটেছে। এমনকি আইনশৃঙ্খলাজনিত কারণে কম্বোডিয়া, ইরান ও ইসরাইলে গেমটি নিষিদ্ধও হয়েছে।

আবার ফিরেছে নকিয়া
চলতি বছরের ১৩ ডিসেম্বর মোবাইল ফোনের দুনিয়ায় ফিরেছে নকিয়া। আবার নতুন করে নকিয়া ব্র্যান্ডের দু’টি মডেলের ফিচার ফোন উন্মুক্ত করেছে এইচএমডি গ্লোবাল। এ প্রতিষ্ঠানটি নকিয়ার ফোন তৈরি করছে। নকিয়া ১৫০ ও ১৫০ ডুয়াল সিম দু’টি ফিচার ফোন। নকিয়া ১৫০ ও ১৫০ ডুয়াল সিম ফিচার ফোন হওয়ায় এতে ইন্টারনেট সুবিধা নেই। তবে এমপিথ্রি প্লেয়ার, এফএম রেডিও, ব্লুটুথ, এলইডি ফ্ল্যাশসহ ভিজিএ ক্যামেরা আছে। ফোন দু’টিতে ২.৪ ইঞ্চি মাপের কিউভিজিএ ডিসপ্লে (২৪০ বাই ৩২০ পিক্সেল) থাকবে। এতে ব্যবহৃত হচ্ছে নকিয়া সিরিজ ৩০+ অপারেটিং সিস্টেম। এর দাম হবে ২৬ মার্কিন ডলার। এর ব্যাটারি লাইফ ২২ ঘণ্টা। এইচএমডি গ্লোবাল জানিয়েছে, ফিচার ফোনে স্নেক জেনজিয়া গেম থাকবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫