ঢাকা, সোমবার,২৭ মার্চ ২০১৭

ব্যক্তি ও ব্যক্তিত্ব

যারা ছিলেন খবরের শীর্ষে

আলমগীর কবির

২৮ ডিসেম্বর ২০১৬,বুধবার, ১৪:৩৪


প্রিন্ট

পৃথিবীতে মানুষের সংখ্যা প্রায় ৭৪০ কোটি। কিন্তু বিশ্বে বসবাসরত মানুষের অবস্থান পরিবর্তনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন মাত্র ৭৪ জন নারী অথবা পুরুষ। বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের তালিকা করতে গিয়ে ফোবর্স-এর বার্ষিক জরিপে বলা হয়েছে, প্রতি ১০ কোটি মানুষকে শাসন করেন একজন ক্ষমতাধর ব্যক্তি। তবে আমাদের এই তালিকা সাজানো হয়েছে ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের সাথে সামাজিকভাবে আলোচিত ব্যক্তিদের নিয়ে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প
এ বছর আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে সবচেয়ে বড় চমক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন নিউ ইয়র্কের ধনকুবের ডোনাল্ড ট্রাম্প, যিনি রীতিমতো ভূমিকম্প ঘটিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনের আগে অভিবাসী ও নারীদের নিয়ে নানান মন্তব্যের জন্য সমালোচিত ট্রাম্পের পরাজয়ের ইঙ্গিত ছিল গণমাধ্যমগুলোর সব জরিপে। ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি তাকে সহজেই হারাবেন বলে ধারণা করা হলেও, শ্বেতাঙ্গ আধিপত্য ফিরিয়ে আনার জিগির তুলে পাশার দান উল্টে দিয়েছেন এ রিয়েল এস্টেট মোগলই। পপুলার ভোটে হিলারির চেয়ে ২৮ লাখ ভোট কম পেলেও হোয়াইট হাউজে যেতে প্রয়োজনীয় ইলেকটোরাল ভোট ঠিকই জিতে নেন ট্রাম্প। ট্রাম্পের জয় যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ ব্যবস্থাপনা ও পররাষ্ট্রনীতিতে বিরাট পরিবর্তন নিয়ে আসতে পারে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকেরা।

শি জিন পিং
বিশ্বের পরাশক্তির অন্যতম রাষ্ট্র চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং বছরজুড়ে আলোচনার মধ্যমণি ছিলেন। এশিয়া অঞ্চলের অর্থনৈতিক কাঠামো সুরক্ষায় নতুন অওওই ব্যাংকের কার্যক্রম চালু করে। এ ছাড়া নিজেদের সামরিক সশস্ত্র বাহিনীর ওপর নিয়ন্ত্রণ বাড়াতে ‘জয়েন্ট অপারেশন কমান্ড সেন্টার’ এর সর্বাধিনায়কের পদ গ্রহণ করেন। বছরের সবচেয়ে আলোচিত বিষয় আন্তঃসংযোগ বাড়াতে ‘স্লিক রোড’ এর বাস্তবায়ন তার রাজনৈতিক ভূমিকা আরো দৃঢ় করে। এভাবেই তিনি বছরের সবচেয়ে আলোচিত ব্যক্তিরূপে বিশ্ব অঙ্গনে দৃঢ় ভূমিকা পালন করেন।

রজব তৈয়ব এরদোগান
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগানের ভূমিকা বরাবারই প্রশংসনীয়। তবে চলতি
বছরের মাঝামাঝি সময়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় নড়েচড়ে বসে তুরস্কে এক ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানচেষ্টার খবরে। এরদোগান অবকাশে থাকার সময় একদল সেনা তাকে হত্যা করে দেশটির রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে চেষ্টা চালায়।
তুর্কি পুলিশ ও জনগণ রাস্তায় নেমে ওই অভ্যুত্থানচেষ্টা ব্যর্থ করে দেয়। এরদোগান এই অভ্যুত্থানচেষ্টার জন্য স্বেচ্ছানির্বাসনে থাকা ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লাহ গুলেন ও যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেন। রাশিয়ার বিমান ভূপাতিত করা নিয়ে তুরস্ক-রাশিয়ার সম্পর্কে অবনতি হলেও এ ঘটনার পর তা উল্টে যায়; দুই দেশ নিজেদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়াতে উদ্যোগ নেয়। এ ছাড়া সিরিয়া নীতিতে পরিবর্তন ছিল লক্ষণীয়।

বারাক ওবামা
সবচেয়ে শক্তিশালী দেশের রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে বছরজুড়ে বারাক ওবামা খবরের শিরোনামে ছিলেন। তার শেষ মেয়াদকালীন বছরে প্রায় সব রাষ্ট্র ভ্রমণ করে, সব রাষ্ট্রের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সুসম্পর্ক জোরদার করেন। এ ছাড়া প্রেসিডেন্ট থাকা অবস্থায় হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে নির্বাচনী প্রচার অভিযান চালনা করায় সব খবরের শীর্ষে ছিলেন তিনি। মুসলিম বিশ্বের সাথে সম্পর্কোন্নয়ন এবং বছর শেষে জাতিসঙ্ঘের নতুন শান্তিচুক্তি বিলে (ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে বসতি স্থাপন প্রসঙ্গে) ভেটো দান থেকে বিরত থাকায় আলোচনার শীর্ষে ছিলেন তিনি।

ডেভিড ক্যামেরন
যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক স্থীতিশলতা রক্ষায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন মুখ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নভ্ক্তু দেশ হিসেবে শক্তিশালী অর্থনৈতিক ভূমিকায় তার অবদান অনবদ্য, কিন্তু ২৮ জাতির ইইউ জোটের চার দশকের সম্পর্ক ছিন্ন হওয়া রোধে তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করেন। তারপরও বিরোধী জোটের ও জনগণের ভোটে ব্রিটেন এবং ইইউ ত্যাগে তিনি প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তার এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের কারণে বছরজুড়ে তিনি আলোচিত ছিলেন।

বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ
নতুন বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ রাজ সিংহাসনে অধিষ্ঠিত হওয়ার পর সৌদি আরবের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিবর্তনে উদ্যোগী ভূমিকা পালন করেন। ফলে তিনি সৌদি সংস্কার পরিকল্পনা ‘সৌদি ভিশন ২০৩০’ ঘোষণা দেন, যা বিশ্ব অঙ্গনে সৌদি আরবের ভূমিকা আরো মজবুত ও জোরদার করবে। এ ছাড়া তার এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে তেলসমৃদ্ধ এই রাষ্ট্র, তেলের ওপর নির্ভরতা কমাতে পারবে, যা অর্থনৈতিকভাবে দেশটিকে আরো বেশি সমৃদ্ধ করবে।

জাকার বার্গ
জাকারবার্গ বছরজুড়ে সামাজিক ওয়েবসাইটগুলোয় খবরের শিরোনামে ছিলেন তার নানাবিধ কর্মকাণ্ড। সামাজিক যোগাযোগ সহজতর করতে তার প্রতিষ্ঠিত ‘ফেসবুক’ এখন মানুষ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারে। এ ছাড়া বিনোদন, খবর, পণ্যের গুণাগুণ ইত্যাদি ইন্টারনেট ছাড়াই মানুষ দেখতে পাচ্ছে তার ‘বেসিস’ অ্যাপটির মাধ্যমে। বিজ্ঞাপন সেবাকে তিনি এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। ভোক্তার সুবিধার জন্য তার এই উদ্যোগে কোটি কোটি মানুষ উপকৃত। ফেসবুক এখন অন্য মুক্ত উৎস প্রজেক্ট যেমন ওরাকলের সাথে সংযুক্ত হয়েছে, যা একটি প্রশংসিত উদ্যোগ। এ ছাড়া এটি সামাজিক যোগাযোগের বহুল ব্যবহৃত ‘হোয়াটস অ্যাপ’টি কিনে সামাজিক যোগাযোগে নিজেদের অবস্থান আরো সুদুঢ় করেছে।

আলি হোসাইন খামেনি
ইরানের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট আলি হোসাই খামেনির একটি নিজস্ব ভাবমূর্তি এবং বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর ছিল। তার উদ্যোগে দীর্ঘ সময় পর আন্তর্জাতিক মহল থেকে ইরানের ওপর অবরোধ রোধ হয়। আমেরিকা ‘পরমাণু ইস্যু’ তে অবরোধ শিথিল করে শুধু তার নিজস্ব উদ্যোগে, যা খুব প্রশংসিত হয় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। এ ছাড়া বছরজুড়ে সৌদি সরকারের সাথে দ্বন্দ্ব ও প্রকাশ্যে তাদের বিরুদ্ধাচরণের কারণে তিনি খবরের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন।

নরেন্দ্র মোদি
বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জনবহুল রাষ্ট্রের কর্তাব্যক্তি অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদি বছরজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন। প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের রাষ্ট্রপ্রধানের জন্মদিনে হঠাৎ উপস্থিত হয়ে বিশ্বকে চমকে দেন। কিন্তু তার পরই সার্বিক পরিস্থিতি হঠাৎ নাজুক হওয়ার ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ এর কারণে বিশ্ব অঙ্গনে তা আলোচিত হয়। এ ছাড়া বছর শেষে কালো টাকার উৎপত্তি রোধে তার সরকারি ভূমিকা বহুল আলোচিত ছিল এবং কাশ্মির পরিস্থিতি নিয়ে তার অবস্থান অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

অং সান সু চি
দীর্ঘ বন্দিদশা থেকে মুক্ত হতে স্বাধীনভাবে মিয়ানমারের নির্বাচনে অংশগ্রহণ এবং বিপুল ভোটে জয়লাভ করায় অং সান সু চিকে বিশ্ব দরবারে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেয়। তার দীর্ঘ সংগ্রামী রাজনৈতিক জীবনের এই সর্বোচ্চ প্রাপ্তি তাকে বিশ্ব রাজনীতিতে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালনে উৎসাহিত করে তুলে। কিন্তু বছর শেষে নিজ দেশের সংখ্যালঘু ‘রোহিঙ্গা’ জনগোষ্ঠীর নিপীড়ন ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে শক্তিশালী ভূমিকা না রাখায় শান্তিতে তার মুখ্য ভূমিকা নিয়ে সবার সন্দেহ দেখা দেয়। এতে সব মহলে তিনি সমালোচিত হন এবং তার শান্তিতে নোবেল পুরস্কার ফেরত নিতে কতগুলো প্রতিষ্ঠান আবেদন করে।

রডরিগো দুতার্তে
বিশ্ব রাজনৈতিক অঙ্গনে ফিলিপাইনের নাম বহুল আলোচিত ও সমালোচিত হয় নতুন প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তের কারণে। কট্টর ডানপন্থী এই নেতা লাগামহীন কথার জন্য সমালোচিত হন। তাকে অনেকেই নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সাথে তুলনা করে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর মাদক ও চোরাকারবারিদের ওপর তার কঠোর ব্যবহার বহুল সমালোচিত হয় রাজনৈতিক বিশ্বে।
এ ছাড়া বেফাঁস কথা বলায় তার জুরি মেলা অসম্ভব।
প্রেসিডেন্ট আসাদ
সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ বছরজুড়ে খবরের শিরোনামে ছিলেন। ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠী নির্মূলে তার সরকারের ভূমিকা নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে প্রশ্নবিদ্ধ তিনি। তার নির্দেশে সরকারি বাহিনীর হাতে নিরীহ সিরীয়দের মৃত্যু এবং তাদের মানবেতর জীবন যাপনের কারণে তিনি বারবার সমালোচিত হয়েছেন।

হুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস
দীর্ঘ ৫২ বছর ধরে চলা রক্তক্ষয়ী সঙ্ঘাতের অবস্থান ঘটিয়ে ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬তে কিউবা ও নরওয়ের মধ্যস্থতায় কলাম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট এবং ফার্ক বিদ্রোহী নেতা তিমোলিওনের মধ্যে ঐতিহাসিক ‘ফার্ক চুক্তি’ স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তির বাস্তবায়ন করতে প্রেসিডেন্ট হুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হন, যা শান্তির জন্য এক বড় অগ্রগতি। তার এই ঐতিহাসিক ভূমিকার জন্য ‘শান্তিতে নোবেল’ পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

অ্যান্টনিও গুতেরেস
বিশ্বের শান্তি রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত জাতিসঙ্ঘের নবম মহাসচিব নির্বাচিত হন।
অ্যান্টনিও গুতেরেস বছরজুড়ে সবার উৎকণ্ঠা ছিল পরবর্তী মহাসচিব কে নির্বাচিত হবে। বহুল আলোচিত সাবেক পর্তুগাল প্রেসিডেন্ট অ্যান্টনিও নির্বাচিত হন। তার রাজনৈতিক অবস্থান অত্যন্ত সুগঠিত ও সমৃদ্ধশালী ছিল। তাই মহাসচিবরূপে তার জয় নিশ্চিত ছিল। যদিও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট তার পছন্দের প্রার্থী নির্বাচিত করতে তার বিপক্ষে কাজ করেছিলেন। কিন্তু সর্বশেষ তিনি নির্বাচিত হন। তার এই মহাসচিব পদে অধিষ্ঠিত হওয়ার ভবিষ্যৎ বিশ্ব অধীর আগ্রহে পরবর্তী শান্তি পদক্ষেপের অগ্রণী ভূমিকা আশা করছে।

সাই ইং ওয়েন
চলতি বছর ১৬ জানুয়ারিতে তাইওয়ানের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে সাই ইং ওয়েন রাজনৈতিক আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন। চীন তাইওয়ানকে নিজ অংশ মনে করায় নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার ভূমিকা সবার আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল। বছর শেষে চীনের প্রধান প্রতিপক্ষ যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিনন্দন জানাতে ফোন করায় বহুল আলোচিত হন তিনি। স্বাধীনভাবে নির্বাচিত কোনো তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের এটাই প্রথম আলোচিত উদ্যোগ, যা একই সাথে প্রশংসিত ও চীনের কাছে সমালোচিত হয়েছে।

পার্ক জিয়ুন হেই
দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক জিয়ুন বছর শেষে আলোচিত ও সমালোচিত হয়েছেন তার বিশেষ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কারণে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে স্যামসং-এর উচ্চপদস্থ ব্যক্তির সাথে তার বন্ধুত্ব এবং এর ফলে ওই কোম্পানিকে বিশেষ সুবিধা প্রদান করার। ফলে জনগণের তীব্র বিক্ষোভে তাকে পদত্যাগের আহ্বানে আন্দোলন হয় এবং এই বিষয়ে আইনি কার্যক্রম শুরু হয়, সরকারের ভেতর তার বিপক্ষে অনাস্থা জ্ঞাপন করা হয়।

কিম জং উন
কিম জং উন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট এবং একনায়ক শাসক, সমালোচিত খবরের শিরোনামে তার নাম বার বার উচ্চারিত হয়। ২০১৬ সালে কর্মে অবহেলায় নিজ আত্মীয়কে মৃত্যুদণ্ড প্রদান এবং সরকারের উচ্চপদে রদবদলের কারণে তিনি খবরের শিরোনামে ছিলেন। এ ছাড়া পরমাণু হ্রাস না করা এবং নতুন পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার তাকে খবরের কেন্দ্রবিন্দুতে রেখেছিল।

হিলারি ক্লিনটন
প্রথম মার্কিন নারী হিসাবে এবার প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক করেছেন হিলারি ক্লিনটন। মোট তিনটি বিতর্কের সব ক’টিতেই প্রতিদ্বন্দ্বী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পরাজিত করেছিলেন খুব সহজে। যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্র্যাট দল থেকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার আগে তিনি নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের প্রতিনিধি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভার সিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

বব ডিলান
‘আমেরিকার সঙ্গীতশিল্পী বব ডিলানকে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হলে শুরু হয় নতুন আলোচনা। নোবেল কমিটি তাকে পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছে গীতিকবিতার জন্যই, যদিও সমালোচকদের সবাই এর যৌক্তিকতা নিয়ে একমত নন।
ইতিহাসে প্রথম সুরকার ও গীতিকার হিসেবে সাহিত্যে নোবেল পেলেও ডিলানের নাগাল পেতেই নোবেল কমিটির দীর্ঘ দিন লেগে যায়। তবে সব জল্পনাকল্পনার অবসান ঘটিয়ে নিজেই নোবেল কমিটির সাথে যোগাযোগ করেন কিংবদন্তি এ গায়ক; জানান, অভাবিত নোবেলপ্রাপ্তি তাকে বাকরুদ্ধ করেছিল। অবশ্য নোবেল পুরস্কার নিতে অক্টোবরে আর সুইডেনে যাননি তিনি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫