ঢাকা, মঙ্গলবার,৩০ মে ২০১৭

ধর্ম-দর্শন

আজ শুভ বড়দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৫ ডিসেম্বর ২০১৬,রবিবার, ০৭:৪৬


প্রিন্ট

খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বড়দিন আজ। এই পবিত্র দিনে খ্রিষ্টধর্মের প্রবর্তক যিশুখ্রিষ্ট ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের বেথেলহেমের এক আস্তাবলে জন্ম নিয়েছিলেন। খ্রিষ্টানেরা বিশ্বাস করেন, সৃষ্টিকর্তার মহিমা প্রচার এবং মানবজাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করার জন্য যিশু জন্ম নিয়েছিলেন। অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীরাও দিনটি আনন্দ-উসবের মধ্য দিয়ে পালন করবেন। আজ সরকারি ছুটি।
দিনটি উৎসবমুখর পরিবেশে পালনের প্রস্তুতি নিয়েছেন বাংলাদেশের খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের লোকজন। দেশের সব গির্জা এবং বিদেশী অতিথি থাকেন, এমন হোটেলে আলোকসজ্জা করা হয়েছে। চার্চ ও তারকা হোটেলগুলোকে ক্রিসমাস ট্রি, রঙিন বাতি, বেলুন আর ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছে। খ্রিষ্টান পরিবারের বাসাবাড়িও একইভাবে সাজানো হয়েছে। এসব পরিবারে নানা ধরনের পিঠা ও বিশেষ খাবারের আয়োজন করা হয়েছে। তারকা হোটেলগুলোতে প্রধান আকর্ষণ হিসেবে সান্তাকজ আসবেন নানা উপহার ও চমক নিয়ে।
বড়দিন উপলে আজ বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনে এবং বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করা হবে। খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের অনুসারীরা দিবসটি উপলক্ষে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করে থাকেন।
খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীরা মনে করেন, ঈশ্বরের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য একজন নারীর প্রয়োজন ছিল। সেই নারীই হলেন কুমারী মেরি। তিনি অবশ্য মুসলমানদের কাছে বিবি মরিয়ম হিসেবে পরিচিত।
বড়দিন উপলে রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে সবার সুখশান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫