ঢাকা, শনিবার,২৫ মার্চ ২০১৭

অবকাশ

আবৃত্তি উৎসব

শওকত আলী রতন

২৫ ডিসেম্বর ২০১৬,রবিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

আবৃত্তি সংগঠন ধ্বনি কাজ করে যাচ্ছে দীর্ঘ দিন ধরে। প্রগতিশীল শিল্পচর্চায় বিশ্বাসী এই সংগঠনটির জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৯৬ সালে যাত্রা শুরু করে। সেই থেকে অদ্যাবধি বাংলা ভাষার চর্চা, বাংলা উচ্চারণ, বাংলা বানান ও আবৃত্তিতে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। এসব বিষয়ে ধ্বনি অনেকটা যতœশীলও বলা চলে। দীর্ঘপথ চলায় ধ্বনি সব ধরনের অন্যায় ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে ও তীব্র ভাষায় প্রতিবাদ করেছে। ধ্বনি স্বপ্ন দিগন্তে উদ্ভাসিত সূর্যের মতো সত্য, তাই সাংগঠনিক স্লোগান দিগন্তে চলো শব্দ যেথায় সূর্যসত্য। ধ্বনির প্রতিষ্ঠার দুই যুগ উপলক্ষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সেলিম আল দীন মুক্ত মঞ্চে পাঁচ দিনব্যাপী কবিতা আবৃত্তি, গুণীজন সম্মাননা, নাটক মঞ্চায়নসহ নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মৌনতা ভেঙে হও শামিল আজ মুক্তির মিছিলে এ স্লোগানে- ১৮ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় বিশ^বিদ্যালয়ের অমর একুশের পাদদেশে দুই দশক পূর্তিতে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন ধ্বনি উপদেষ্টা কবি অধ্যাপক ড. মো: খালেদ হোসাইন, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ধ্বনির সভাপতি মহিরুল ইসলাম মিহির। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিন শীতের হিমেল হাওয়া উপেক্ষা করে বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সেলিম আল দীন মুক্ত মঞ্চে উপস্থিত থেকে আবৃত্তিসহ নানা বর্ণের অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী ও প্রশিক্ষক মীর বরকতকে গুণীজন সম্মাননা দেয়া হয়। মীর বরকত ধ্বনি সম্পর্কে বলেন, দেশের যতগুলো আবৃত্তি সংগঠন রয়েছে ধ্বনি তাদের মধ্যে অনেকটা এগিয়ে। ধ্বনি শুরু থেকেই তার ধারাবাহিকতা বজায় রেখে চলেছে। বিভিন্ন প্রতিকূলতাকে পেছনে ফেলে ধ্বনি তার নির্দিষ্ট গন্তব্যে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের দেশের সাহিত্য সংগঠনগুলো যদি তাদের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারত তাহলে বাংলা ভাষার আরো কদর বাড়ত সবার কাছে। অনুষ্ঠানে আবৃত্তি করে শোনান তামান্না তিথী, নাজমুল আহসান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে দেশের প্রখ্যাত কবি আসাদ চৌধুরীকে ধ্বনির পক্ষ থেকে গুণীজন সম্মাননা-১৬ দেয়া হয়। কবি আসাদ চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, ধ্বনি তার দীর্ঘ পথচলায় সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। কম করে হলেও বছরে অন্তত একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। আমার প্রত্যাশা ধ্বনি আগামীতে এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখবে। এ ব্যাপারে ধ্বনির সভাপতি মহিরুল ইসলাম মিহির বলেন, মানুষকে বেঁচে থাকার জন্য যেমনি প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করতে হয়, তেমনি একজন গুণী মানুষ হতে হলে অনেক গুণের অধিকারী হতে হয়। যে গুণগুলোর মাধ্যমে সমাজের অন্য মানুষ কোনো না কোনোভাবে উপকৃত হয়ে থাকে।
সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম আকাশ বলেন, ধ্বনি শুধু আবৃত্তির চর্চার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় কাজ করছে ধ্বনি। আগামীতে আরো উজ্জ্বল হয়ে নিজেকে প্রকাশিত করবে এমনটাই প্রত্যাশা।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫