ঢাকা, মঙ্গলবার,১২ ডিসেম্বর ২০১৭

ইসলামী দিগন্ত

ইসলামে নম্রতা ও বিনয়

মিযানুর রহমান জামীল

২৩ ডিসেম্বর ২০১৬,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট

বিনয় মানুষের ভূষণ আর ভদ্রতা ও নম্রতা এর সহায়ক। বিনয় দ্বারা ব্যক্তিত্ব কায়েম করা সম্ভব, এমনকি বিশ্ব বিজয়ও। যার মধ্যে যত বেশি বিনয় পাওয়া যাবে, সে তত বেশি সম্মান ও মর্যাদার অধিকারী হবে। কারণ, বিনয় দ্বারা অন্যের চোখে মুহাব্বত ও ভালোবাসার সৌধচূড়া নির্মাণ করা যায়। আর যারা আল্লাহর হুকুম পালন করে তারা শ্রেষ্ঠ বিনয়ী এবং তাদের বন্ধু আল্লাহ। কারণ সূরা মায়েদার ৫৫ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছেÑ ‘তোমাদের বন্ধু তো আল্লাহ, তাঁর রাসূল ও মুমিনগণ যারা বিনত হয়ে সালাত কায়েম করে ও জাকাত দেয়।’
বিনয় দ্বারা দুনিয়ায় যেমন সম্মানের অধিকারী হওয়া যায় তেমনি পরকালের জন্যও এ বিনয় জান্নাত অর্জনের কারণ হতে পারে। কেননা সূরা হুদের ২৩ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছেÑ ‘যারা মুমিন, সৎকর্মপরায়ণ এবং তাদের প্রতিপালকের প্রতি বিনয়াবনত, তারাই জান্নাতের অধিবাসী, সেখানে তারা স্থায়ী হবে।’
পবিত্র কুরআনে বিনীতগণের জন্য সুসংবাদ আর পরকালের অসীম নেয়ামতের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে সূরা হজের ৩৪ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছেÑ ‘আমি প্রত্যেক সম্প্রদায়ের জন্য কোরবানির নিয়ম করে দিয়েছি যাতে আমি তাদেরকে জীবনোপকরণস্বরূপ যেসব চতুষ্পদ জন্তু দিয়েছি সেগুলোর ওপর আল্লাহর নাম উচ্চারণ করে। তোমাদের ইলাহ এক ইলাহ। সুতরাং তারই নিকট আত্মসমর্পণ করো এবং সুসংবাদ দাও বিনীতগণকে।’
এক সময় এ বিনয় দিয়ে আমাদের পূর্বপুরুষেরা বিশ্ব বিজয় করেছে। ফিরিয়ে এনেছে হারানো সম্পদ, নির্মাণ করেছে দীনের বাতিঘর। কিন্তু দুঃখের বিষয়, আজ আমাদের মধ্যে নেই বিনয়ের সেই দীপ্তি, যার দ্বারা খলিফাগণ কালের একেকটি চূড়ান্ত অধ্যায়ে ইসলামের স্থপতি এঁকে দিয়েছেন। বিশ্ব সাম্রাজ্যকে করেছেন ধর্মের ছোঁয়ায় শোভামণ্ডিত, নীতির আলোয় উদ্ভাসিত।
মাথা উঁচু মনোভাব বিসর্জন দিয়ে যদি সবাই সবাইকে বিনয় দেখায়, আত্মগরিমা বয়কট করে যদি সবাই সবার প্রতি মর্যাদাবোধ অুণœ রাখে, তবে সে বিনয় দিতে পারে সফলতার গ্যারান্টি। এর জন্য সর্বপ্রথম দূর করা চাই অহংবোধ ও হামবড়া ভাব। সাথে সাথে অন্যকে খাটো করে দেখার মনোভাবও বাদ দিতে হবে। সর্বোপরি একজন মানুষের আসল গুণ হলো তার ঈমান খাঁটি ও শেরেকমুক্ত। আর এ নির্ভেজাল ঈমান সম্পর্কে হাদিসে এসেছেÑ ‘খাঁটি মুসলমান ওই ব্যক্তি যার হাত ও মুখ থেকে অপর মুসলমান নিরাপদ থাকে।’ এখান থেকেই নির্ণয় করা হয় আমাদের ঈমানের সবলতা ও দুর্বলতা। এগুলোর জন্য প্রথমে যে দিকটি ল রাখা বাঞ্ছনীয় তা হলোÑ বিনয়ের গুণে নিজেকে এমনভাবে গড়ে তোলা, আমি যে পথ দিয়ে হেঁটে যাই সে পথে অন্য কেউ হাঁটলেও যেন তার মধ্যে বিনয়ের গুণ চলে আসে।
ব্যক্তি শ্রেণী সমাজ ও রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে বিনয়ের শিা লেগে বিকশিত হোক মানবপ্রাণ। সরলতার নতুন ছোঁয়ায় আলোকিত হোক বিশ্বপাড়া। বিনয়ের কল্যাণে সমৃদ্ধ হোক দেশ, জাতি ও সামাজিক অঙ্গন, এটাই প্রত্যাশা। হ

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫