হ্যামারকপ

মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ
হ্যামারকপ। মধ্যম আকারের জলচর পাখি। শক্তপোক্ত ঠোঁট, মাথার পেছনের বাঁকানো ঝুঁটিÑ  সব মিলে এর মাথার আকৃতি অনেকটা হ্যামার বা হাতুড়ির মতো। আর হ্যামার থেকেই এর ‘হ্যামারকপ’ নাম হয়েছে। হ্যামারকপের গায়ের রঙ অনুজ্জ্বল বাদামি। পেছনের অংশ গোলাপি। 
এরা সাধারণত ৫৬ সেন্টিমিটার লম্বা হয়। ওজন ৪৭০ গ্রাম। সাহারা মরুভূমির দক্ষিণ অঞ্চল, মাদাগাস্কার ও দক্ষিণ-পশ্চিম আরবের উপকূলীয় এলাকার জলজ বাসস্থানে এদের দেখা যায়।
দিনের প্রায় পুরোটাই হ্যামারকপ খাবার সংগ্রহ করায় ব্যস্ত থাকে। কখনো বিশ্রামের জন্য বিকেলে বিরতি দেয়। ব্যাঙ এদের প্রধান খাবার। তবে মাছ, চিংড়ি, পতঙ্গ ও রোডেন্ট জাতীয় প্রাণীও খায়।
হ্যামারকপ বিশাল আকৃতির বাসা তৈরি করে। বাসার উচ্চতা প্রায় ১৮০ সেন্টিমিটার। ১৮০ সেন্টিমিটার প্রশস্ত। বাসা তৈরিতে এরা প্রায় ১০ হাজার ছোট ছোট ডাল ব্যবহার করে। বাইরের দিক এরা বিভিন্ন উজ্জ্বল রঙের বস্তু দিয়ে সজ্জিত করে। এরা এতই মজবুত করে বাসা তৈরি করে যে, এতে একজন মানুষ সহজেই বসে থাকতে পারবে। তাতে বাসা ভাঙবে না। একেকটি বাসার ওজন ২৪ থেকে ৪৯ কেজি পর্যন্ত হয়। একটি বাসা তৈরিতে এদের সময় লাগে তিন থেকে চার মাস। এত পরিশ্রম করে বাসা তৈরি করেও অনেক সময় এরা ঈগল ও পেঁচার দাপটে বাসায় থাকতে পারে না। পালাতে হয়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.