ঢাকা, সোমবার,১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অপরাধ

বিমানবন্দরে ছুরি নিয়ে যুবকের হামলা : আনসার সদস্য নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৬ নভেম্বর ২০১৬,রবিবার, ২১:৪৩


প্রিন্ট

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের স্পর্শকতার এলাকায় এক যুবকের এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে সোহাগ আলী নামে এক আনসার সদস্য নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় কর্তব্যরত ৪ পুলিশ ও আনসারসহ কমপক্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


আনসার সদর দফতরের কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান এ ঘটনায় আনসারের এক সদস্য নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আনসার সদস্য সোহাগ।


এদিকে ঘটনার আকস্মিকতায় পুরো বিমানবন্দর এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বিমানবন্দরে আসা যাত্রীদের স্বজনরা দিগি¦দিক ছোটাছুটি শুরু করেন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ও আমর্ড পুলিশ সদস্যরা ধারালো ছোরাধারী যুবককে আটক করতে সক্ষম হন। আটক যুবককেও পাঠানো হয় হাসপাতালে। তার অবস্থাও গুরুতর। তাকে নিবৃত করতে পুলিশ গুলি চালায় বলে জানা গেছে।

বিমানবন্দর থানা ও প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা গেছে, রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিমানবন্দরের ৬ নম্বর গেট দিয়ে ২২-২৩ বছর বয়সী এক যুবক ভেতরে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। এ সময় কর্তব্যরত আর্মড পুলিশের এক সদস্যর সাথে কথা বলার সময় যুবকের সাথে থাকা ছোরার খোঁচা লাগে। এতে ওই পুলিশ সদস্য সামান্য আহত হন। এরপরই তিনি যুবককে ধরতে গেলে অজ্ঞাত যুবকটি ছোরা হাতে নিয়েই বিমানবন্দরের ড্রাইভওয়েতে দৌড়াতে থাকে। ৩ নম্বর গেটের সামনে দিয়ে আবারো ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। এ সময় এপিবিএন সদস্যর চিৎকার শুনে দুই আনসার সদস্য তাকে আটক করতে যান। তখন তাদেরও ছুরিকাঘাত করে যুবকটি। একইভাবে ছোরা হাতে চিৎকার করে দৌড়াতে থাকলে ডিউটিরত অপর দুই এপিবিএন সদস্য তাকে আটকাতে যায়। কিন্তু এবারও যুবকটি এপিবিএনের দুই সদস্যকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালানোর চেষ্টা করে। এসময় ড্রাইভওয়ে এলাকাসহ পুরো বিমানবন্দরে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পরে আমর্ড পুলিশ ও আনসার সদস্যরা চারদিক থেকে ঘেরাও করে তাকে আটক করতে সক্ষম হয়।


বিমানবন্দর থানার ডিউটি অফিসার আলমগীর হোসেন নয়া দিগন্তকে বলেন, এক আনসার সদস্যর সাথে একজন ক্লিনারের কথাকাটাকাটির সুত্র ধরে আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।  বিমানবন্দরের অপর একটি সুত্র জানায়, ঘটনার পর পরই বিমানবন্দর এপিবিএন কার্যালয়ে সব কর্মকর্তারা জরুরী বৈঠকে বসেন। রাত সাড়ে ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আহত ৪ পুলিশ ও ছোরাসহ আটক যুবকের নাম পরিচয় জানা যাযনি। পুলিশের কোন কর্মকর্তাও এ ব্যাপারে মন্তব্য করতে চাননি। বিষয়টি নিয়ে কঠোর গোপনীয়তার কারণে রহস্যর সৃষ্টি হয়েছে।


ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) উত্তরা বিভাগের অতিরিক্ত কমিশনার (এডিসি) মো. রাফিউল আলম বলেন, ২১ থেকে ২২ বছর বয়সী এক যুবক ছুরি হাতে বিমানবন্দরের ৬ নম্বর টার্মিনালের সামনে এলোপাতাড়ি আঘাতের চেষ্টা করে। এ ঘটনায় এপিবিএন এর সদস্য, এক আনসারসহ কমপক্ষে চারজন আহত হয়েছে। হামলাকারী ওই যুবককে আটক করা হয়েছে। নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। তবে কি কারণে সে হামলা চালিয়েছে তা স্পষ্ট নয়।


গোয়েন্দা সূত্র জানায়, এক ব্যক্তি ছুরি নিয়ে বিমানবন্দর এলাকায় মারামারি শুরু করে। এ নিয়ে বিমানবন্দরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালায়। পুলিশ সূত্র জানায়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে তারা হামলাকারী ওই ব্যক্তির ওপর গুলি চালিয়েছে। তাকে আহত অবস্থায় আটক করা হয়েছে। বিমানবন্দর থানার ওসি নূরে আযম জানান, আহত অবস্থায় আটক ওই যুবককে চিকিৎসার জন্য কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫