ঢাকা, সোমবার,১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রাজনীতি

প্রমাণ করতে পারলে মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দেবো : ছায়েদুল হক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা

০৬ নভেম্বর ২০১৬,রবিবার, ১৬:২৪ | আপডেট: ০৬ নভেম্বর ২০১৬,রবিবার, ১৮:০৯


প্রিন্ট
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মো. ছায়েদুল হক (ফাইল ফটো)

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মো. ছায়েদুল হক (ফাইল ফটো)

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হক এমপি বলেছেন, আমি হিন্দুদের মালাউন বলেছি এটা প্রমাণ করতে পারলে এখনি প্রদত্যাগ করব। আমি জীবনে কখনো হিন্দুদের মালাউন বলিনি। দাঙ্গা বাধিয়ে আমি নিজের পায়ের নিজে কুড়াল মারব কেন? আমার সুনাম ক্ষুণ্ণ করতেই একটি মহল আমার বিরুদ্ধে কিছুদিন আগেও কুৎসা রটনা করেছিল।

রোববার দুপুর ২টায় নাসিরনগর ডাকবাংলোতে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী একথা বলেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুদের বাড়িঘর ও মন্দিরে হামলার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন মন্ত্রী।

ছায়েদুল হক বলেন, মিডিয়ার উচিত ভুল খবর প্রচার না করে সঠিক খবর প্রচারের মাধ্যমে নাসিরনগরে শান্তি ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের কোনো গাফলতি ছিল না। অনেক আগে থেকেই নাসিরনগর আওয়ামী লীগে ষড়যন্ত্র চলছে। কিছু লোককে দলে না ঢুকানোয় তারাই ষড়যন্ত্র করে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। এই ষড়যন্ত্র অনেক গভীর এবং অনেক আগে থেকে চলছে। এ ঘটনায় আওয়ামী লীগের যে তিন কর্মীকে বহিষ্কার করেছে এটা সম্পূর্ণ না বুঝে করা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে এ তিন লোক দাঙ্গা হাঙ্গামা সামাল দিচ্ছিল। তারা দাঙ্গা সামাল দিতে গিয়ে আহতও হয়েছেন। এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগ আমার সাথে কথা না বলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মন্ত্রী আরো বলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বুঝানো হচ্ছে। ফলে তারাও ঘটনা সঠিকভাবে না জেনে এ বিষয়ে মন্তব্য করছেন। নাসিরনগর আমার বাড়ি, আমি মাঠে আছি, তাই আমি ভালো বুঝি প্রকৃত ঘটনা কি।

মন্ত্রী বলেন, আমার সুনাম ক্ষুণ্ণ করতেই একটি মহল আমার বিরুদ্ধে কিছুদিন আগেও কুৎসা রটনা করেছিল। সেটা ব্যর্থ হয়েই আবারও হিন্ধু ধর্মালম্বীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। আমি সব মিডিয়াকে বলবো, সঠিক সংবাদ তুলে ধরতে। আপনারা এমন কোন সংবাদ তুলে ধরবেন না যাতে হিন্দু ধর্মের লোক ভীত হয়।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, আপনারা সারা নাসিরনগর ঘুরে দেখেন। একটি লোক যদি বলে আমি হিন্দুদের মালাউন বলেছি আমি মন্ত্রীত্ব ছেড়ে দেব। নাসিরনগরে আওয়ামী লীগের কোনো চিহ্ন ছিল না। আমি এখানে আওয়ামী লীগের বীজ বপন করেছি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫