১৭ জুন ২০১৯
কে কী কেন কিভাবে

দক্ষিণ মেরু

-

আজ তোমরা জানবে দক্ষিণ মেরু সম্পর্কে । সত্যিকার অর্থে এ মেরু একটি স্থলভাগ বা ডাঙা। এর অপর নাম কুমেরু বা অ্যান্টার্কটিকা। লিখেছেন মুহাম্মদ রোকনুদ্দৌলাহ্
তোমরা কি দক্ষিণ মেরুর কথা শুনেছ? সত্যিকার অর্থে এ মেরু একটি স্থলভাগ বা ডাঙা। এর অপর নাম কুমেরু বা অ্যান্টার্কটিকা। এটি এক হাজার থেকে দুই হাজার ফুট বরফের তলায় ঢাকা। উত্তর মেরুর বরফের নিচে কিন্তু স্থলভাগ নেই, শুধুই পানি। আর দক্ষিণ মেরু অঞ্চল ডাঙা বা স্থলভাগ। আর এ ডাঙা পুরু বরফে ঢাকা। দক্ষিণ মেরুর তটরেখার দৈর্ঘ্য ২২ হাজার ৪২৭ কিলোমিটার। এর ছয় হাজার ৪১৩ কিলোমিটার বরফমুক্ত। দক্ষিণ মেরু চিরশীতের রাজ্য হলে কী হবে, এখানে মাথা তুলে দাঁড়িয়ে আছে বড় বড় পর্বত। আছে কিছু জীবন্ত অগ্নিগিরি। এগুলোর মধ্যে এরেবাস ও টেররের কথা বলা যায়। মজার ব্যাপার হচ্ছে, এগুলোর ভেতরে অগ্নিকুণ্ড আর ওপর বা বাইরের দিক তুষার-বরফে ঢাকা। দক্ষিণ মেরুর আয়তন ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়ার সম্মিলিত আয়তনের সমান। আসলে এটি একটি মহাদেশ। এ মহাদেশে মানুষের স্থায়ী বসতি নেই। তবে এখানে পেঙ্গুইন, অ্যান্টার্কটিক স্কুয়া ও সিল দেখা যায়। ধারণা করা হয়, সুদূর অতীতে এখানে রোদ উঠত। আর এখানে ছিল সবুজ অরণ্য। এর প্রমাণ, এখানকার মাটির নিচের প্রচুর কয়লা। অরণ্য বা বন দীর্ঘকাল মাটিচাপা পড়ে কয়লায় রূপান্তরিত হয়। দক্ষিণ মেরুতে বেশ কিছু অভিযান হয়েছে এবং হচ্ছে। চলছে গবেষণা।

 


আরো সংবাদ

অবশেষে বিএনপি নেতা হাসান মামুনকে গ্রেফতার দেখানো হলো বিএসআরএফের নির্বাচন অনুষ্ঠিত : তপন সভাপতি শামীম সেক্রেটারি ময়দানের যুদ্ধে জিতে গেলো ভারত ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও পানির প্লান্ট বাস্তবায়নে ডেনমার্ক সহযোগিতা করছে : রাষ্ট্রদূত খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে ২২ জুন বিএনপি অফিসের সামনে বিক্ষোভ আইনজীবীদের প্রত্যেক জেলায় বিকেএসপির শাখা হবে : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী পরিকল্পিত নগর উন্নয়ন নাগরিকদের সেবা প্রাপ্তি সহজ করে : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী রাজধানীতে বস্তির সংখ্যা ৩৩৯৪টি ঋণ না পাওয়াটা এসএমই শিল্প উন্নয়নে প্রধান বাধা ’৭৫-এর মতো গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধে মরিয়া সরকার : আমীর খসরু ব্রিটিশ বাংলাদেশীদের চামড়া শিল্পে বিনিয়োগের আহ্বান শিল্পমন্ত্রীর

সকল