১৮ জুন ২০১৯

রাফির রক্তের দাগ, পোড়া কাপড় এখনো সিঁড়িতে

ফেনীর সোনাগাজীতে অধ্যক্ষের যৌন নিপীড়নের শিকার হয়ে বিচার চাওয়ায় খুন হওয়া মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির রক্তের দাগ ও জামার পোড়া অংশ এখনো পড়ে আছে ঘটনাস্থলে। সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা কম্পাউন্ডে অবস্থিত তিন তলা সাইক্লোন সেন্টারের ছাদে ডেকে নিয়ে আগুন দেয়া হয় নুসরাতের গায়ে।

আগুন দেয়ার পর ছাদ থেকে সিঁড়ি বেয়ে নামার সময় সিড়িতেই নুসরাতের জামা-কাপড়ের পুড়ে সেখানেই রয়ে গেছে কিছু অংশ। ওই স্থানটি ঘিরে রাখা হয়েছে, তদন্তের আলামত সংগ্রহের জন্য।

৬ এপ্রিল সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান নুসরাত জাহান রাফি। মাদরাসাছাত্রী তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের ওপর কেউ মারধর করছে এমন সংবাদে তিনি ছাদে যান। সেখানে বোরকাপরা ৪-৫ জন তাকে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার বিরুদ্ধে করা শ্লীলতাহানির মামলা তুলে নিতে চাপ দেয়। অস্বীকৃতি জানালে তারা রাফির গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় সোমবার রাতে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলা ও পৌর কাউন্সিলর মুকছুদ আলমসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন অগ্নিদগ্ধ রাফির বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান।


আরো সংবাদ