১৮ মার্চ ২০১৯

পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৫ জন নিহত

-

দেশের চারটি জেলায় পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাত ও আজ শুক্রবার ভোরে এসব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। জেলাগুলো হলো ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, কক্সবাজার ও খুলনা।

ময়মনসিংহ
আমাদের ময়মনসিংহ অফিস জানায়, ডিবি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছে। পুলিশের দাবি, নিহত রশিদ একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে মাদক, বিস্ফোরকসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ময়মনসিংহ শহরের ত্রিশাল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কিছু মাদক ব্যবসায়ী মাদক কেনা-বেচা করছে এমন গোপন সংবাদে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্যে করে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি ছুড়লে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়ে। এতে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রশিদ নামের একজনকে পাওয়া যায়। তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান ও কিছু হিরোইন উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মেডিকেলের মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। নিহত রশিদের নামে সাতটি মাদক ও বিস্ফোরক মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

কুমিল্লা
কুমিল্লার তিতাসে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মো: আল-আমিন নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে জেলার তিতাস উপজেলার ঝড়িকান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আল-আমিন ওই উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়নের নয়াগাঁও গ্রামের মাঈনুদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ বলছে, আল-আমিন একজন ডাকাত। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি রিভলবার, একটি এলজি ও ৫ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, দাউদকান্দির গৌরীপুর বাজারের রিয়াজ ট্রেডের পাঁচজন সেলসম্যান সিএনজি অটোরিকশাযোগে বৃহস্পতিবার সকালে টাকা নিয়ে হোমনা যাওয়ার পথে গৌরীপুর-হোমনা সড়কের তিতাস উপজেলার দড়িকান্দি সেতু অতিক্রম করার সময় একদল ছিনতাইকারী তাদের কাছ থেকে বিকাশ ডিলারের ৫৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আল-আমিনসহ ওই চক্রের ২ সদস্যকে ১৫ লাখ টাকাসহ আটক করে পুলিশ।

এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার রাতে আটক আল-আমিনকে সাথে নিয়ে জেলা ডিবি পুলিশ ও তিতাস থানা পুলিশ অবশিষ্ট টাকা এবং অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে অভিযানে নামে। রাত সাড়ে ৩টার দিকে তিতাসের দড়িকান্দি নামক এলাকায় পৌঁছালে একদল ডাকাত পুলিশের গাড়িতে হামলা চালিয়ে আল-আমিনকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুড়লে ডাকাতদল পালিয়ে যায়।

তিতাস থানা পুলিশের ওসি সৈয়দ মোহাম্মদ আহসানুল ইসলাম জানান, ডাকাতদের একটি গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে আল-আমিনের ওপর পড়ে। এতে সে আহত হয়। এ সময় আমরা তাকে প্রথমে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কক্সবাজার

কক্সবাজার (দক্ষিণ) সংবাদদাতা জানান, টেকনাফে বিজিবি ও র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গাসহ দুইজন নিহত হয়েছে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি’র সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে মো: বেলাল হোসেন (২৫) নামের এক ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছে। এসময় ৯ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার ভোর রাত ৪টার দিকে টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের কাটাবনিয়া এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহত ইয়াবা কারবারি বেলাল লক্ষ্মীপুর জেলার শাকচর এলাকার মো: সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

বিজিবির টেকনাফ ২নং ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো: আছাদুদ-জামান চৌধুরী জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কক্সবাজার বেল্লাল হোসেনকে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের মরিচ্যা চেকপোস্টে আটক করা হয়। আটককৃত আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের পর জানা যায় যে, বিপুল পরিমাণ ইয়াবার চালান শুক্রবার ভোররাতে সাবরাং ইউপিস্থ কাটাবুনিয়া এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) বিজিবির একটিদল ধৃত আসামিকে নিয়ে অভিযানে যায়।

এসময় টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের কাটাবনিয়া এলাকায় পৌঁছলে আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকা একদল ইয়াবা কারবারি বিজিবি দলকে লক্ষ্য করে গুলি করে এবং আটক বেলালকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় বিজিবির সদস্যরাও পাল্টা গুলি করলে পাচারকারিরা পিছু হটে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে ৯ হাজার পিস ইয়াবাসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে বেলাল মারা যায়।

নিহত বেলালের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে টেকনাফ থানায় বিজিবি বাদি হয়ে সংশ্লিষ্ট আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অপরদিকে, টেকনাফে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নুরুল আলম (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

নিহত নুরুল আলম টেকনাফের নয়াপাড়া আনসার ক্যাম্প লুঠ ও আনসার কমান্ডার হত্যা মামলার প্রধান আসামি। আজ শুক্রবার ভোর রাত ৫টার দিকে টেকনাফের দমদমিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানিয়েছেন, ‘রাতে র‌্যাবের একটি টহলদল টেকনাফ দমদমিয়া এলাকায় কিছু লোককে চ্যালেঞ্জ করলে অতর্কিতভাবে র‌্যাবের উপর গুলিবর্ষণ করেন। এসময় র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। র‌্যাবের ২৫ থেকে ৩০ মিনিট ধরে চলা গোলাগুলিতে অন্যান্যরা পালিয়ে যায় এবং ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায়। পরে রোহিঙ্গা ডাকাত নুরুল আলমকে সনাক্ত করেন র‌্যাব।

একই ভাবে র‌্যাব জানতে পারে নুরুল আলম টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থিত আনসার ক্যাম্প লুঠ করে অস্ত্র ছিনিয়ে নিয়ে আনসার কমান্ডার আলী হোসেনকে হত্যা মামলার প্রধান আসামি এবং তিনি দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন।

ঘটনাস্থল থেকে ২টি বিদেশী পিস্তল, ২টি ম্যাগাজিন ও ১৩ রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত নুরুল আলমের লাশ ময়না তদন্তের জন্য টেকনাফ থানা পুলিশকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

খুলনা
খুলনায় পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাসুদ রানা (৩৫) ওরফে মাসুদ নামে একজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ৩টার দিকে নগরীর নিরালা কবরস্থান সংলগ্ন দীঘির পাড় এলাকায় বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত মাসুদ খুলনা নগরীর সোনাডাঙ্গা থানার বসুপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল হকের ছেলে। তিনি নগরীর কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে ১টি দেশি পাইপগান, ১টি চাপতি, ১টি বড় ছোরা ও ১০০পিস ইয়াবা উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) উপ-পুলিশ কমিশনার মনিরুজ্জামান মিঠু জানান, রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নিরালা দীঘির পাড় কবরস্থান এলাকায় মাদক উদ্ধারে অভিযান চালায় সদর খানা পুলিশ। এ সময় পুলিশের সঙ্গে মাদক ব্যবসায়ীদের গোলাগুলিতে মাসুদ রানা নিহত হয়।


আরো সংবাদ




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al