২২ মার্চ ২০১৯

সাংবাদিকরা কেন বিচার পান না?

সাগর সারোয়ার ও মেহেরুন সারোয়ার রুনি - সংগৃহীত

বাংলাদেশে ২০০১ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ১৫ বছরে ২০ জনের বেশি পেশাদার সাংবাদিক নিহত হলেও সেসব ঘটনায় হওয়া মামলার মাত্র ৩টির এখন পর্যন্ত বিচার হয়েছে।

২০১২ সালে নিজেদের বাসায় সাংবাদিক দম্পতি সাগর সারোয়ার ও মেহেরুন সারোয়ার রুনির হত্যার ঘটনার পর ৪৮ ঘন্টার মধ্যে রহস্য উদঘাটনের আশ্বাস দিয়েছিলেন সেসময়কার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন। তবে সাড়ে ৬ বছর পার হয়ে গেলেও সে বিচার এখনো পায়নি সাগর-রুনির পরিবার।

নিহতদের পরিবারের সদস্যরা অনেকটা ধরেই নিয়েছেন যে এই ঘটনার বিচার তারা পাবেন না। রুনি'র ভাই এবং মামলার বাদী নওশের রোমানের মতে ৬ বছর পরেও বিচার প্রক্রিয়া শুরু না হওয়ার প্রধান কারণ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আন্তরিকতা ও সদিচ্ছার অভাব।

"৬ বছর পর এখনো বিচার প্রক্রিয়া শুরুই হয়নি। আমার কাছে মনে হয় এত আলোচিত একটি ঘটনার সূত্র খুঁজে বের করা আমাদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের জন্য খুব একটা কঠিন কাজ নয়।"

রোমান মনে করেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আন্তরিকতার অভাবই বিচারকাজে অগ্রগতি না হওয়ার মূল কারণ।

কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আন্তরিকতা বা সরকারের রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবই কী এধরণের ঘটনার বিচারে প্রধান অন্তরায়?

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সমীক্ষার হিসেব অনুযায়ী বাংলাদেশে ২০০১ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত বাংলাদেশে অন্তত ২৩ জন পেশাদার সাংবাদিক নিহত হয়েছেন।

কিন্তু এই ২৩ জনের মধ্যে মাত্র ৩ জনের ক্ষেত্রে মামলার চূড়ান্ত বিচার সম্পন্ন হয়েছে বলে জানান এই বিষয় নিয়ে কাজ করা মানবাধিকারকর্মী তাহমিনা রহমান।

তবে তার মতে, আইনি তদন্তে বা আদালতের বিচারিক প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রিতা শুধু যে সাংবাদিকদের মামলার ক্ষেত্রেই দেখা যায়, সেরকমটা নয়। বাংলাদেশে বিচার বিভাগ অনেকটা প্রথাগতভাবেই দীর্ঘসূত্রিতা বজায় রেখে কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

"আদালতে কার্যক্রম চলাকালে বারবারই নতুন করে তারিখ দেয়া হয়। এই তারিখ দেয়ার ক্ষেত্রে কিছু সুস্পষ্ট নিয়ম রয়েছে, যেগুলো অনেকসময়ই মানা হয় না। এটা একটা প্রচলিত প্রথার মত চলছে।"

এছাড়া কোনো বিশেষ মামলার শুনানির সময় আদালতের বিচারক বদলি হলে বা পরিবর্তিত হলে নতুন বিচারক অনেকসময় পুরোনো মামলার কার্যক্রম চালাতে অনীহা প্রকাশ করেন; যে কারণে দীর্ঘসূত্রিতার জটে পরে মামলা।

তাহমিনা রহমান বলেন, "রাজনৈতিক সদিচ্ছার মত একটি অদৃশ্য বিষয়ে গুরুত্ব আরোপ না করে যেসব বিষয়ের পরিবর্তন সম্ভব সেগুলো নিয়ে চিন্তা করা উচিত আমাদের।"

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও বিচার ব্যবস্থার সুষ্ঠু প্রতিপালন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে বিদ্যমান আইনের নিয়মিত চর্চা এবং তদন্ত ও বিচারকাজে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে বিচার ব্যবস্থা আরো কার্যকরভাবে পরিচালিত হতে পারে বলে মনে করেন তাহমিনা রহমান।

সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো কী ভূমিকা পালন করছে?
সাংবাদিক হত্যা বা নির্যাতনের ঘটনায় বিচার না হওয়ার কারণ হিসেবে সাংবাদিকদের সংগঠনগুলোর নিষ্ক্রিয়তাও দায়ী বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশের সাংবাদিকদের একটি সংগঠনের সহ-সভাপতি ইশতিয়াক রেজা।

রেজার বক্তব্য সংগঠনগুলোর মধ্যে বিভেদ এবং সাংবাদিকদের মধ্যে রাজনৈতিক বিভাজন থাকায় সংগঠনগুলোও প্রয়োজনে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে পারছে না।

"আমাদের সাংবাদিক সমাজ রাজনৈতিকভাবে বিভাজিত। কে কোন পক্ষের, এনিয়ে হিসেব কষতে কষতে এবং তা নিয়ে রাজনীতি হতে হতে একটা সময় বিচার থেকে বঞ্চিত হয় ভুক্তভোগী সাংবাদিক।"

রেজার মতে দলীয় রাজনীতির লেজুড়বৃত্তির কারণে সাংবাদিকদের সংগঠনের নেতৃত্বের একটা বড় অংশ একসময় আপোষের মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে চায়। সংবাদকর্মীরা তাদের প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সাধারণত আইনি সহায়তা পান না; যেটিকে বাংলাদেশের গণমাধ্যমগুলো প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতা হিসেবে উল্লেখ করেন রেজা।

"সাংবাদিকরা যেসব প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন, তাদের ঐ অর্থে কোনে আইনগত সহায়তা দেয়ার কোনো ব্যবস্থা নেই। একজন কর্মীকে দীর্ঘসময়ব্যাপী আইনি সহায়তা দেয়ার প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোটাই নেই বাংলাদেশের অধিকাংশ গণমাধ্যমের", বলেন রেজা।

সাংবাদিকদের সংগঠনের নেতাদের মতে বিচার বিভাগের কার্যপ্রণালীর সংশোধন বা সরকারের রাজনৈতিক ইচ্ছার বহি:প্রকাশের মাধ্যমে নয়, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধ করতে এবং সহিংসতার ঘটনার সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করতে প্রধান ভূমিকা রাখতে পারে সাংবাদিকদের নিজেদের মধ্যে ঐক্য।


আরো সংবাদ

অসুস্থ বৃদ্ধা মাকে রাস্তায় ফেলে পালাচ্ছিল দুই ছেলে কেন্দ্রীয় প্রয়াসে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ভাতাভোগীদের জন্য ডাটাবেইজ তৈরির সুপারিশ সংসদীয় কমিটির রাখাইনে প্রবেশাধিকার পাচ্ছে না জাতিসঙ্ঘের সংস্থাগুলো ১০ জনকে প্রধানমন্ত্রীর ২ কোটি ৭ লাখ টাকা অনুদান রোহিঙ্গাদের তহবিল অপব্যবহার করা হচ্ছে না : এনজিও ফোরাম শিক্ষা বিস্তারে মাস্টার ইসমাইলের অবদান চিরস্মরণীয় উত্তরখানে ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু কল্যাণ তহবিলে ১০ লাখ টাকা দিলো ২৪তম বিসিএস প্রশাসন অ্যাসোসিয়েশন হলিক্রস কলেজের সংবর্ধনায় স্পিকার নারীর ক্ষমতায়নের পূর্বশর্ত নারী শিক্ষা মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তারা বাস্তবে সব নাগরিক সমান অধিকার ও মর্যাদা পাচ্ছেন না

সকল




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al