১৭ আগস্ট ২০১৮

দুর্বৃত্তরা বেপরোয়া শঙ্কিত মানুষ

দুর্বৃত্তরা বেপরোয়া শঙ্কিত মানুষ - ছবি : সংগৃহীত

দেশজুড়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে দুর্বৃত্তরা। চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই বাড়ছে সমানতালে। ঈদকে সামনে রেখেই দুর্বৃত্তরা টার্গেট করে মাঠে নেমেছে। এরই মধ্যেই দুর্বৃত্তদের শিকার হয়েছেন অনেক মানুষ।

এশিয়ান টিভির বার্তা প্রযোজক আহসান মাহবুব গত সোমবার দুর্বৃত্তদের কবলে পড়েন। তিনি জানান, সোমবার রাত সাড়ে ১০টায় এশিয়ান টিভির গুলশান কার্যলয় থেকে গাড়িতে আশুলিয়া নবীনগরে জাতীয় স্মৃতিসৌধের ১ নম্বর গেটের সামনে গিয়ে নামেন তখন রাত সোয়া ১২টা। সেখান থেকে অন্য একটি লোকাল বাসে নয়ারহাট তার নিজ বাড়ি যাওয়ার পথে নবীনগরসংলগ্ন নিরিবিলি এলাকায় পৌঁছলে যাত্রীবেশে থাকা ৫-৬ জন ছিনতাইকারী তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। এ সময় ছিনতাইকারীরা তার হাতে থাকা একটি স্মার্ট ফোন, তিন হাজার ৫০০ টাকা, একটি হাতঘড়ি ও ব্যাংকের একটি ভিসা কার্ড হাতিয়ে নেয়। একপর্যায়ে ভিসা কার্ডের পিনকোড তার কাছ থেকে আদায় করে নেয়। ভিসা কার্ডে থাকা ২৫ হাজার টাকা তুলে নেয় দুর্বৃত্তরা। পরে তাকে হাত ও চোখ বাঁধা অবস্থায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও পিএটিসিসংলগ্ন একটি ঝোপের পাশে ফেলে দিয়ে চলে যায়। তার আর্তচিৎকারে পিএটিসির নিরাপত্তাকর্মীরা ছুটে গিয়ে তাকে উদ্ধার করেন এবং তার বাসায় যোগাযোগ করলে বাসার লোকজন এসে তাকে নিয়ে যান। দুর্বৃত্তদের হাতে তিনি আহত হন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই রাস্তায় প্রায়ই এভাবে দুর্বৃত্তদের কবলে পড়ছেন যাত্রীরা। রাতে ওই রাস্তায় অনেক বাসে এভাবে ছিনতাই ও ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। দুর্বৃত্তরাই যাত্রীবেশে বাসের ভেতরে থাকে। বাসের চালক-হেলপার সবাই ওই দুর্বৃত্ত দলেরই সদস্য। রাতে এসব গাড়ি ঘুরে বেড়ায় ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের জন্য। সূত্র জানায়, এ রাস্তায় প্রায়ই যাত্রীরা দুর্বৃত্তদের কবলে পড়লেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নির্বিকার। 

রাজধানীতে প্রায় ঘটছে ছিনতাইয়ের ঘটনা। গতকাল দুপুরের দিকে রাজধানীর দিলকুশা এলাকায় প্রকাশ্যে এক ব্যক্তির ডলার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। সফিকুল নামের ওই ব্যক্তি অভিযোগ করেন, ডলার ভাঙানোর জন্য তিনি মতিঝিলের দিলকুশা এলাকায় যান। সেখানে তার হাত থেকে ছিনিয়ে যায় এক শ’ ডলারের একটি নোট।
রাজধানীর কোতোয়ালি থানাধীন পাইকারি কাপড়ের বৃহৎ মার্কেট ইসলামপুরের নবাববাড়ী এলাকায় পৃথক দু’টি কাপড়ের মার্কেটে গত মঙ্গলবার রাতে চুরির ঘটনা ঘটে। হাবিবুল্লাহ প্লাজার নিউ বিশাল থ্রি পিস সেন্টার শতরূপা থ্রি পিস সেন্টার ও শারমিন থ্রি পিসের দোকানের সাটার ফাঁক করে ভেতরে ঢুকে দোকানের ক্যাশবাক্স ভেঙে টাকা নিয়ে যায়। ব্যবসায়ীরা বলেছেন, নিউ বিশাল থ্রি পিস সেন্টার থেকে সাত লাখ টাকা এবং শতরূপা থ্রি পিস থেকে দুই লাখ টাকা চুরি হয়েছে। এ ছাড়া শারমিন থ্রি পিসের দোকানের ক্যাশবাক্স ভেঙে ছিল। কিন্তু সেখানে কোনো টাকা ছিল না। একই কায়দায় নবাববাড়ী জামে মসজিদের পাশে জাহান সেন্টার মার্কেটের নিচতলার আল আরাফ থ্রি পিসের দোকানের ক্যাশবাক্স ভেঙে এক লাখ চল্লিশ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এ ঘটনার পর থেকে পুরান ঢাকার মার্কেগুলোতে এখন আতঙ্ক বিরাজ করছে। মার্কেট কর্তৃপক্ষ প্রতিটি মার্কেটের সিকিউরিটি বাড়িয়েছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই এলাকায় প্রতিদিন কোটি কোটি টাকার মালামাল ক্রয়-বিক্রয় হয়। পাইকারি মার্কেটগুলো থেকে মালামাল কেনার জন্য দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ব্যবসায়ীরা আসেন। দুর্বৃত্তদের কারণে ওই সব ব্যবসায়ীও অনিরাপদ হয়ে পড়েছেন।

একাধিক ব্যবসায়ী বলেছেন, ঈদের আগে তারা তাদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। নিরাপত্তা নিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া সেলের ডিসি মাসুদুর রহমান বলেছেন, ঈদকে সামনে রেখে তারা সমন্বিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নিয়েছেন। এরই মধ্যে সংশ্লিষ্ট সবার সাথে বৈঠক হয়েছে, কথা হয়েছে। দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কেউ পুলিশের সহায়তা চাইলে তাকে সহায়তা দেয়া হচ্ছে।
এ দিকে ঈদকেন্দ্রিক অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় পুলিশের পাশাপাশি জনগণকেও অধিক সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। বিশেষ করে মার্কেট, বিপণিবিতান, অভিজাত এলাকার আবাসিক ভবন, গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় সিসিটিভি স্থাপন ও সচল রাখার পরামর্শ এসেছে। তা ছাড়া রাস্তাঘাটে চলাচলের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।


আরো সংবাদ