০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

৭ রানে অলআউট, ৭৫৪ রানে হার

-

মাত্র ৭ রানে অলআউট দল। অথচ টার্গেট ছিলো ৭৬১, ওয়ানডেতে যাকে পাহাড় বললেও কম বলা হবে। তবে এভারেস্ট টপকাতে গিয়ে যেন মুখ থুবরে পড়েছে দলটি।

স্কোর বোর্ডে ৭ রান জমা হলেও সেই সাত রান কোনও ব্যাটসম্যান করেনি। বিপক্ষের বোলাররা ওই সাত রান অতিরিক্ত হিসেবে দিয়েছে। মানে দলের ১০ জন ব্যাটসম্যানই শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফিরেছে।

খেলা চলছিল হ্যারিস শিল্ডের ফার্স্ট রাউন্ড নকআউট ম্যাচের। মুম্বাইয়ের আজাদ ময়দানে মুখোমুখি হয়েছিল অন্ধেরির চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুল ও বোরিবলির স্বামী বিবেকানন্দ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল (এসভিআইএস)। প্রথমে ব্যাট করে এসভিআইএস ৩৯ ওভারে মাত্র চারটি উইকেট হারিয়ে তোলে ৬০৫ রান। যার মধ্যে মিত মায়েকার একাই ১৩৪ বলে অনবদ্য ৩৩৮ রান করেন। (৫৬টি চার ও ৭টি ৬)।

নির্ধারিত তিন ঘণ্টায় চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের বল করার কথা ছিল ৪৫ ওভার; কিন্তু সেই সময়ের মধ্যে ৬ ওভার কম করার জন্য তাদের জরিমানা হিসেবে উপর আরও ১৫৬ রান চাপে। এরফলে চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের সামনে পাহাড় প্রমাণ ৭৬১ রানের লক্ষ্য দাঁড়ায়।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে স্বাভাবিক ভাবেই চাপে ছিল চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের খেলোয়াড়রা। তারা একের পর এক শূন্য রানে আউট হয়। এসভিআইএস-এর বোলাররামাত্র সাত রান অতিরিক্ত দেয়, ৬টি ওয়াইড ও একটি বাই রান। চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের ব্যাটসম্যানরা মাত্র ৬ ওভারই ক্রিজে থাকতে পেরেছে।

এই জয়ে স্বাভাবিক ভাবেই খুশি হয়েছেন এসভিআইএস-এর কোচ মহেশ লতিলকর। তিনি বলেছেন, তার দলের সব ছেলেরাই নিজের দায়িত্ব ভালভাবে পালন করেছে। তার দল সারাদিন বিপক্ষের উপর যেভাবে মাঠে দাপিয়েছে, তাতে তিনি আশাবাদী এই টুর্নামেন্টে ভাল ফল করার।


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik