০৯ ডিসেম্বর ২০১৯

ভারতের বোলিং লাইনআপ বিশ্বমানের : মমিনুল

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে মাত্র তিন দিনেই ইনিংস ও ১৩০ রানের ব্যবধানে হেরেছে সফররত বাংলাদেশ। ইন্দোরে শনিবার বাংলাদেশ তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৩ রানে অলআউট হয়। এর আগে প্রথম ইনিংসে সফরকারীরা করেছিল ১৫০ রান। জবাবে ভারত তাদের প্রথম ইনিংসে মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ডাবল সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেটে ৪৯৩ রানে ইনিংস ঘোষণা করে।

এর আগে শুক্রবার ভারত ৬ উইকেটে ৪৯৩ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করে। শনিবার তারা আর ব্যাটিংয়ে না নেমে ইনিংস ঘোষণা করে।

ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের অধিনায়ক মমিনুল হক বলেন, টসে জিতে বোলিং নেয়া ছিল আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং সিদ্ধান্ত। পেসার আবু জায়েদ ও ব্যাট হতে মুশফিকুর রহমান এই টেস্টে আমাদের জন্য ইতিবাচক প্রাপ্তি। লিটন দাসও ভালো ব্যাট করেছে। ভারতের বোলিং লাইনআপ বিশ্বমানের। তাদের বিপক্ষে আমাদের টপ-অর্ডারকে বেশ চ্যালেঞ্জের মুখেই পড়তে হয়েছে। আমরা এখন গোলাপী বলে পরবর্তী টেস্ট ম্যাচের ব্যাপারে ভাবছি।

অন্যদিকে ৩ দিনেই ইনিংস ব্যবধানে টেস্ট জিতে রেকর্ডের পাতায় ঢুকে যাওয়া ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেছেন, কি বলবো সত্যিই বুঝতে পারছি না। এক কথায় ক্লিনিক্যাল পারফরমেন্স। দল সত্যিই খুব ভালো খেলছে। ফাস্ট বোলাররা খুবই ভালো ফর্মে আছে। জাসপ্রিত বুমরাহ এখন দলের বাইরে আছে। সে দলে এসে এই বোলিং আক্রমণের সাথে যুক্ত যুক্ত হলে তা হবে এক কথায় অসাধারণ। এটা যেকোনো অধিনায়কের জন্য স্বপ্নের বোলিং কম্বিনেশন।

বিরাট কোহলি বলেন, ভারতের ক্রিকেটকে বিশাল উচ্চতায় নিয়ে যাওয়াই আমাদের লক্ষ্য। আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য পুরোপুরি স্থির এবং আমরা সংখ্যা দিয়ে কোনো কিছুকে বিবেচনা করি না। খেলোয়াড়েরা দলের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে বেশ ভালোভাবেই অবগত এবং তারা সেদিকে বেশ ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে।

ভারতীয় ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ইনিংস নিয়ে ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ব্যাট হাতে উইকেটে নেমে বড় রান সংগ্রহ করার গুরুত্ব আমি জানি। ইনিংস ঘোষণা করতে আমি বেশ অনেক সময় নিয়েছি, যেন তার (মায়াঙ্ক আগারওয়াল) স্কোরটা আরেকটু বড় হয়। দলের একজন সিনিয়র ব্যটসম্যান হিসেবে আমি চেয়েছিলাম, সে যেন তার ব্যাটিংয়ের প্রতি মনোযোগী থাকে।

পাঁচদিনের খেলা তো তিন দিনেই শেষ। এবার লক্ষ্য তো কলকতায় গোলাপী বলের প্রথম টেস্ট। তবে গোলাপী বলের প্রথম ও সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলতে নামার আগে বেশ সতর্ক কোহলি। লাল বলের বিপরীতে গোলাপী বলের খেলা কিছুটা আলাদা। শুরুতে লাল বলের চেয়ে গোলাপী বলের মুভমেন্ট কিছুটা বেশি হতে পারে। আর তাই গোলাপী বলের ক্রিকেট প্রতিন্দ্বদ্বিতাপূর্ণ হবে। পাশাপাশি এর মধ্যে দিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট ও ভারতীয় টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের অংশ হয়ে যাবে।

সবই তো ঠিক আছে। তবে ইন্দোরে গত তিনদিন ধরে ভারতীয় দলের প্রতি স্বাগতিক দর্শকদের ব্যাপারে কোহলির মন্তব্য উচ্ছ্বসিত। তিনি বলেন,‘ক্রিকেটের প্রতি ভারতীয় দর্শকদের এই ভালোবাসা সত্যিই মনোমুগ্ধকর। মাঠে তাদের উপস্থিতি খেলোয়াড়দের বাড়তি প্রেরণা দেয়।’


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik