০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

আরো একবার বেঁচে গেলেন মুশফিক

এবার মুশফিকের ক্যাচ মিস করলেন রাহানে -

মধ্যাহ্নের আগে বিরাট কোহলির হাত ফসকে গিয়েছিল মুশফিকুর রহিমের উইকেট। আর বিরতির পর অশ্বিনের ওভারে আরো একবার জীবন ফিরে পেলেন বাংলাদেশের এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। ক্যাচ মিসের ধরণ ছিল একই রকম। কোহলির মতো আজিঙ্কে রাহানেও স্লিপে ছিলেন। অশ্বিনের প্রথম বলটি মুশফিকের ব্যাটে লেগে রাহানের হাতে বন্দি হতেই ভারসাম্য হারিয়ে সেটি ফেলে দেন। ব্যক্তিগত ১৪ রানে আবারো বেঁচে গেলেন মুশফিক।

এর আগে ৩ রানে কোহলির হাতে বন্দি হন এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। কিন্তু সেটি মুঠোবন্দি করে রাখতে পারেননি ভারত অধিনায়ক। বলটি ফসকে পড়ে যায় হাত থেকে। হতবাক বিরাট তখন জিভ কেটে আফসোস করেন। নতুন জীবন পান মুশফিক। ব্যাট করছেন ১৭ রান নিয়ে। আর মুমিনুল আছেন ২৬ রান নিয়ে।

দলের সংগ্রহ এখন ৩ উইকেটে ৭১ রান।

সকালে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে টস জিতে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। ইন্দোরের হলকার স্টেডিয়ামে সকাল ১০টায় ম্যাচটি শুরু হয়।

শুরুতেই দুই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। অভিজ্ঞ ইমরুলকে ৫.৫ ওভারে ফেরত পাঠান উমেশ যাদব। আর পরের ওভারেই সাদমানকে শিকার করেন ইশান্ত শর্মা।

এর পর সাজঘরে ফিরেন মোহাম্মদ মিথুন। অধিনায়ক মুমিনুল হকের সাথে মোহাম্মদ মিথুনের জুটিটা মাত্রই মজবুত হতে যাচ্ছিলো। ১৯ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। কিন্তু মোহাম্মদ শামি সেই জুটির ভাঙন ধরান।

এরপর মুশফিক আর মুমিনুল জুটি বাঁধেন। মধ্যাহ্নের আগে ৩২ রানের পার্টনারশিপ গড়েছেন।

মধ্যাহ্নের বিরতিতে যাওয়া কিছুটা আগে জীবন ফিরে পান মুশফিক। নিজের চতুর্থ ওভারে বল হাতে আসেন উমেশ যাদব। তার প্রথম বলটিই মুশফিকের ব্যাটে লেগে স্লিপে থাকা ভারত অধিনায়কের হাতে বন্দি হয়। কিন্তু সেটি মুঠোবন্দি করে রাখতে পারেননি তিনি। ফসকে যান। পড়ে যায় হাত থেকে। হতবাক বিরাট তখন জিভ কেটে আফসোস করেন। নতুন জীবন পান মুশফিক।

ক্রিজে মুমিনুলের সঙ্গী এখন মুশফিক। দলের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৬৩ রান। মুমিনুল করেছেন ৫২ বলে ২২ রান। হাঁকিয়েছেন ৪ বাউন্ডারি। মুশফিক আছেন ২২ বলে ১৪ রান নিয়ে। মেরেছেন দুটি বাউন্ডারি।

সকালে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে টস জিতে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। ইন্দোরের হলকার স্টেডিয়ামে সকাল ১০টায় ম্যাচটি শুরু হয়।

দু'জন পেসার নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। আবু জায়েদ ও এবাদত হোসেন। স্পিনারদের মধ্যে আছেন তাইজুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

অন্যদিকে ভারত তাদের বোলিং ডিপার্টমেন্ট সাজিয়েছে তিন পেসার নিয়ে। উমেশ যাদব, মোহাম্মাদ শামি ও ইশান্ত শর্মাকে নিয়ে। স্পিনে আছেন রবিচন্দন অশ্বিন ও রবিন্দ্র জাদেজা।

বাংলাদেশ একাদশ : মুমিনুল হক (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, সাদমান ইসলাম, মোহাম্মদ মিথুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, আবু জায়েদ ও এবাদত হোসেন।

ভারত একাদশ : বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), মায়াঙ্ক আগারওয়াল, রোহিত শর্মা, চেতেশ্বর পূজারা, আজিঙ্কা রাহানে, ঋদ্ধিমান সাহা, রবিন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, মোহাম্মদ সামি, ইশান্ত শর্মা ও উমেশ যাদব।


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik