১৭ নভেম্বর ২০১৯

আবারো ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোচ সিমন্স

ফিল সিমন্স - ছবি: সংগৃহীত

দলকে ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শিরোপা এনে দেয়ার পরও বিতর্কিতভাবে তৎকালীন কোচ ফিল সিমন্সকে বরখাস্ত করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট। যার পিছনে মূল ভুমিকা পালন করেছিলেন বোর্ডের তৎকালীন সভাপতি ডেভ ক্যামেরন। তবে তিন বছর পর আবারো ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলের কোচের দায়িত্বে ফিরলেন সিমন্স। দেশটির সাবেক এই ওপেনারকে চার বছরের জন্য নিয়োগ দিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড।

সোমবার সিমন্সকে নতুনভাবে জাতীয় দলের দায়িত্ব দেয়ার পাশাপাশি পুরুষ, নারী ও যুব পুরুষ দলের জন্য তিনটি আলাদা নির্বাচন প্যানেলও গঠন করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড।

জাতীয় দলের দায়িত্ব থেকে বরখাস্ত হবার পর আফগানিস্তানের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সিমন্স। দ্বাদশ বিশ্বকাপ পর্যন্ত আফগানদের কোচ ছিলেন তিনি। এছাড়া সদ্যই শেষ হওয়া ক্যারিবীয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের কোচ ছিলেন সিমন্স। তার অধীনে শিরোপাও জিতে বার্বাডোজ। এই দলের সদস্য ছিলেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-২০ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

সিমন্সকে আবারো জাতীয় দলের দায়িত্ব দিতে পেরে আনন্দিত বর্তমান বোর্ড সভাপতি রিকি স্কেরিট। তিনি বলেন, ‘সিমন্সকে আবারো দলে নিয়ে আসায় অতীত ভুল প্রমাণিত হচ্ছে না। বর্তমানে এই পদটির জন্য সবচেয়ে সুযোগ্য ব্যক্তি হচ্ছেন তিনিই।’

এর আগে ২০০৭ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত আয়ারল্যান্ডের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন সিমন্স। তার অধীনেই আইরিশরা টানা তিন বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব পেরিয়ে মূল পর্বে অংশ নিতে পেরেছিলো।

সিমন্স দায়িত্ব নেয়ায় অন্তবর্তীকালিন কোচ হিসেবে কিছুদিন দায়িত্ব পালন করা ফ্লোয়েড রেইফারকে সড়ে যেতে হচ্ছে। তবে রেইফারকে ধন্যবাদ জানাতে ভুল করেননি স্কেরিট। তিনি বলেন, ‘অন্তবর্তীকালীন কোচ হিসেবে কঠোর পরিশ্রম করায় মেধাবী রেইফারকেও আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোচ হবার দৌঁড়ে তিন সদস্যের সংক্ষিপ্ত তালিকায় সিমন্স ছাড়াও ছিলেন রেইফার ও ডেসমন্ড হেইন্স। কোচ নির্বাচনের পাশাপাশি নতুন নির্বাচক প্যানেলও ঘোষণা করেছে বোর্ড। জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ২৫টি টেস্ট ও ১০৫টি ওয়ানডে খেলা রজার হারপার।


আরো সংবাদ