১৬ অক্টোবর ২০১৯

সাঙ্গাকারা-ধোনি-গিলক্রিস্টরা ধারে কাছেও নেই কামরান আকমলের

পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলে আদৌ জায়গা হয় কি-না এক প্রকার ধোঁয়াশা। আড়াই বছর খেলেননি জাতীয় দলের জার্সিতে। তার আগেও অনেকদিন ধরে অনিয়মিত দলে। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত পারফর্ম করে চলেছেন পাকিস্তানি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কামরান আকমল। পাকিস্তানের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ফয়সালাবাদে নর্দানের বিপক্ষে সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের হয়ে খেলতে নেমেছিলেন কামরান। সেখানেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনি, অ্যাডাম গিলক্রিস্টদের মতো তারকা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানদের পিছনে ফেললেন তিনি।

সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে আকমলের শতরানের সংখ্যা দাঁড়াল ৩১। তিনিই প্রথম এশিয়ান উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান যার সংগ্রহে রয়েছে তিরিশটারও বেশি প্রথম শ্রেণির শতরান। ক্রিকেট দুনিয়ায় সর্বকালের বিচারে অবশ্য তিনি দ্বিতীয়। তালিকায় প্রথমে রয়েছেন ইংল্যান্ডের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান লেম অ্যামিস। যিনি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটেই ৫৬টি শতরান হাঁকিয়েছিলেন।

৩১ সেঞ্চুরি করে তার পরেই রয়েছেন কামরান আকমল। দুজনের মধ্যে যদিও ব্যবধান বিস্তর। এখনও ২৫টি শতরানে পিছিয়ে রয়েছেন আকমল। অ্যাডাম গিলক্রিস্টের সংগ্রহে ২৯ শতরান। ইংল্যান্ডের অন্য এক উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জিম পার্কের দখলে ২৭ সেঞ্চুরি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে কুমার সঙ্গাকারার শতরানের সংখ্যা অবশ্য ৬৪। কিন্তু তার অধিকাংশ শতরানই এসেছিল ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলে। উইকেটরক্ষক হিসেবে নয়। ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা উইকেটরক্ষক এদিক থেকে অনেক পিছিয়ে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির শতরানের সংখ্যা ৯।

পাকিস্তানের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ফয়সলাবাদ নর্দার্নের বিপক্ষে খেলতে নেমে কামরান সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের জার্সিতে করেছেন ১৫৭ রান (১৭০)। নিজের সাজানো ইনিংসে বাউন্ডারি মেরেছেন ১২টি।

জাতীয় দলের জার্সিতে দীর্ঘদিন সুযোগ না পেলেও, পাক নির্বাচকদের নজরে রয়েছেন আকমল। এমন পারফরম্যান্সের জেরে হয়তো পাকিস্তানের জাতীয় দলের জার্সি গায়ে আবারো  দেখা যেতে পারে কামরানকে।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum