১৭ জুলাই ২০১৯

ফিরে গেলেন সৌম্য

দারুণ শুরু করেও বেশি সময় টিকে থাকতে পারেননি সৌম্য সরকার। দলীয় ৫২ রানের মাথায় ২৩ বলে ২৯ রান করে আন্দ্রে রাসেলের বলে ক্রিস গেইলকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সৌম্য।

এর আগে বিশ্বকাপের ২৩তম ম্যাচে দু’দলের সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখার ম্যাচে বাংলাদেশকে ৩২২ রানের বিশাল লক্ষ্য দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টস হেরে আগে ব্যাট কেরতে নেমে শাই হোপের (৯৬), শিমরন হেটমায়ারের (৫০) ও এভিন লুইজের (৭০) রানের ওপর ভর করে ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩২১ রান সংগ্রহ করে উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা।

সেমিফাইনালের আশা টিকিয়ে রাখতে দু’দলেরই জয় ছাড়া বিকল্প নেই, এমন সমীকরণে টনটন কাউন্টি গ্রাউন্ডে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় মাঠে নামে বাংলাদেশ ওয়েস্ট উইন্ডিজ। টস জিতে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা আগে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় উইন্ডিজকে।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ারপ্লের চতুর্থ ওভারের দ্বিতীয় বলে সাইফউদ্দিনের দারুণ ডেলিভারিতে বিধ্বংসী ওপেনার ঝড় তোলার আগেই উকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমকে ক্যাচ দিয়ে শূন্য রানে ফেরেন ক্রিস গেইল। চাপে পড়া উন্ডিজকে প্রথম ধাক্কা কাটানোর যুদ্ধে নামেন এভিন লুইজ ও ওয়ানডউনে নামা শাই হোপ। দেখে শুনে খেলতে থাকা দুই ব্যাটসম্যানে জুটিতে গড়েন ১১৬ রান। কেলার ২৫তম ওভারে লুইজকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন সাকিব। লুইজের ব্যাট থেকে আসে ৬৭ বলে ৭০ রান। হোপ খেলতে থাকেন দেখে শুনে। লুইজের পর মাঠে নেমে ২৫ রান করে ফেরেন পুরান। ২৮ ওভারের পর থেকে রানের গতি বাড়াতে থাকে উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা। শাই হোপের সাথে হেটমাোর ওঠেন বিধ্বংসী হয়ে। মাত্র ২৬ বলে তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। ৪ চার ও ৩ ছয়ে ৫০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে মোস্তাফিজের বলে তামিমের তালুবন্দী হয়ে ফেরেন হেটমায়ার। ব্যাট করতে নেমে শেষদিকে ঝড় ওঠানো ব্যাটসম্যান আন্দ্রে রাসেলকেও শূন্য রানে ফেরান মোস্তাফিজ। ঝড়া ওঠানোর আভাস দেয় জেসন হোল্ডারকে ফেরান সাইফ। ১৫ বলে ৩৩ রান করেন হোল্ডার। শেষদিকে ড্যারেন ব্রাভোর ১৯ এবং ওশান থামাসের ৬ রানের সুবাধে ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩২১ রান সংগ্রহ করে ক্যারিবিয়ানরা।

বাংলাদেশী বোলারদের মধ্যে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মোস্তাফিজুর রহমান ৩টি এবং সাকিব আল হাসান ২টি উইকেট শিকার করেন।


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi