২০ জুন ২০১৯

তবে কী ধাওয়ানের বিশ্বকাপ শেষ করতে চাচ্ছে ভারত?

প্রথম দুই ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে ফেবারিটের মতোই বিশ্বকাপ শুরু করেছে ভারত। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে হারিয়েছে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৬ রানে জয় পায় ভারত। যেই ম্যাচে ১০৯ বলে ১১৭ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন ওপেনার ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ান। তবে তার জন্য বড় দুঃসংবাদটা আসে সেই ম্যাচেই। ইনজুরির কারণে ২১ দিনের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে যান এই ওপেনার।

ধাওয়ানের এই ইনজুরির পর তাড়াহুড়ো করে তার বদলি হিসেবে রিশাভ পান্তকে ইংল্যান্ডে নিয়ে গেছে ভারত। তবে পান্তকে দলে নেয়ার ব্যাপারে এখন পর্যনব্ত আনুষ্ঠানিকভাবে ইন্ডিয়ান ক্রিকেট বোর্ড থেকে কোনো ঘোষণা আসেনি। পান্তকে দলে নেয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত ঘোষণা আসলে ধাওয়ান আর বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন না। কেননা আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, বদলি খেলোয়াড় নেয়ার পর চোটগ্রস্থ খেলোয়াড় ফিট হলেও আর দলে ফিরতে পারবেন না।

ধাওয়ান ইস্যুতে তাই দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছে ভারতীয় টিম ম্যানেজম্যান্ট ও নির্বাচকরা। তাদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়া দ্বন্দ্ব বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে ভারতীয় দলকে বেকায়দায় ফেলে দিতে পারে বলে মনে করছে দেশটির গণমাধ্যম।

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও কোচ রবি শাস্ত্রী চেয়েছিলেন, ধাওয়ানের জন্য অপেক্ষা করতে। কিন্তু ভারতীয় নির্বাচকরা তা না করেই দলে ডেকে নিয়েছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিশাভ পান্তকে। বিসিসিআইয়ের এক সূত্র ভারতীয় প্রভাবশালী দৈনিক 'ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস'কে জানিয়েছে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য।

সূত্রের ভাষ্যমতে, ধাওয়ানের পরিবর্তে অন্য কাউকে নেয়ার মানে হচ্ছে আপাতদৃষ্টিতে ধাওয়ানের দলে ফিরে আসার আর কোনো সম্ভাবনা নেই। যদি ভারত বিশ্বকাপের সেমিফাইনালেও যায়, তাহলেও না। যদি তার হাতের দিকে তাকান, দেখবেন তার হাতে প্লাস্টার করা। ব্যাপারটা ভালো কিছু নয়।’


আরো সংবাদ