১৭ জুন ২০১৯

বিশ্বকাপে কোহলিদের জন্য গেরুয়া জার্সি : নেপথ্যে মোদির জয়!

মোদি ও কোহলি - সংগৃহীত

আসলে ফুটবলের মতোই এবার ক্রিকেট বিশ্বকাপে হোম-অ্যাওয়ে কিট সিস্টেম আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে। সব দল যদিও এই নিয়ম মানছে না। ভারত অবশ্য বিষয়টিতে ভালোভাবেই রয়েছে।

ভারতীয় ক্রিকেট দলের ডাকনাম ‘টিম ব্লু’! বরাবরই ভারতীয় ক্রিকেটাররা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নেয় নীল জার্সি পরে। তবে এবার সেই পরিচয় বদলে গেলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। বিশ্বকাপে কোহলিদের গেরুয়া জার্সিতে এবার দেখা যেতে পারে। মোদি-ঝড়ে লোকসভায় বিরোধীরা ছত্রভঙ্গ। ফের একবার প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে বসতে চলেছেন নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদি! তারপরেই এল এমন খবর। যদিও বিষয়টিকে কাকতালীয় বলেই ধরা হচ্ছে।

আসলে ফুটবলের মতোই এবার ক্রিকেট বিশ্বকাপে হোম-অ্যাওয়ে কিট সিস্টেম আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে। সব দল যদিও এই নিয়ম মানছে না। ভারত অবশ্য বিষয়টিতে ভালোভাবেই রয়েছে। ভারত, ইংল্যান্ড, আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কা দলের জার্সির রং অনেকটা একই রকম। তাই এই দলগুলো পরস্পরের মুখোমুখি হলে কোনো একটি দলকে অ্যাওয়ে কিটের শরণাপন্ন হতে হবে। যেহেতু ইংল্যান্ড আয়োজক দেশ। তাই ইংল্যান্ড হোম দলের অ্যাডভান্টেজ পাবে। ১৯৯২ সালে যে জার্সিতে তারা বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছিল, অনেকটাই সেই ডিজাইনের জার্সিতেই ইংরেজ ক্রিকেটাররা এবার মাঠে নামবেন।

একইভাবে দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের জার্সির রং একই ধরনের। তাই এই দলগুলো মুখোমুখি হওয়ার সময়ে একটি দল অ্যাওয়ে কিট ব্যবহার করবে।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচেই কোহলিদের গায়ে থাকবে গেরুয়া জার্সি। এটাই অ্যাওয়ে কিট হতে চলেছে ভারতের। অবশ্য পুরো গেরুয়া নয়। জাতীয় প্রচারমাধ্যম সূত্রে যা বলা হচ্ছে, তার নির্যাস, জার্সির সামনের অংশ নীল রঙের হলেও হাতা হতে চলেছে গেরুয়া, অথবা কমলা। জার্সির পিছনে আবার কমলা, গেরুয়া রঙের আধিক্য বেশি থাকবে। জানা যাচ্ছে, নতুন ডিজাইনের এই জার্সি পড়ে ইংল্যান্ড, আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে মহারণে নামবেন কোহলিরা।

শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আবার ভারত হোম টিম! সেখানে চিরাচরিত নীল-জার্সিতেই থাকবেন কোহলিরা। সেই সময় আবার শ্রীলঙ্কানরা তাদের অ্যাওয়ে কিট পড়ে খেলবেন।

গত বছরে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজের আগে টিম ইন্ডিয়ার বিশ্বকাপ কিটের সর্বসমক্ষে আনা হয়েছিল। সেই জার্সি পরেই কোহলি অ্যান্ড কোং-কে মাঠে দেখা যাচ্ছিল। তবে বিশ্বকাপের আগে আবার ভারতের কিট স্পনসর নাইকি-র তরফে নতুন জার্সির প্রস্তাব দেয়া হয়। তাতে আইসিসি-র আপত্তি নেই। যদিও সেই গেরুয়া-কমলা জার্সি এখনো কেমন দেখতে, তা প্রকাশ্যে আসেনি।
ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

 


আরো সংবাদ