২০ জুন ২০১৯

পাকিস্তান : ৯২-এ ১০ ম্যfচে হারার তুলনা এবারের ১১ পরাজয়

পাকিস্তান : ৯২-এ ১০ ম্যচে হারার তুলনা এবারের ১১ পরাজয় - সংগৃহীত

টানা ১১ একদিনের ম্যাচে পরাজয়। স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বকাপের আগে বেশ চাপে পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর ইংল্যান্ডের মাটিতেও ওয়ান ডে সিরিজে সরফরাজ আহমেদরা ব্যর্থ। তার উপর বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে পরাজয়ের পর পাকিস্তান ক্রিকেটাররা প্রবল চাপে রয়েছেন। আর যা দেখে পাকিস্তান সমর্থকরা যথেষ্ট শঙ্কিত। তবে মনে রাখা দরকার, ১৯৯২ সালে টানা দশটি ওয়ান ডে ম্যাচ হেরেও বিশ্বকাপ জিতেছিল পাকিস্তান। তবে ইমরান খানের মতো নেতা ছিলেন সেই পাকিস্তান দলে। এবার পাকিস্তান দল মনে করছে, ওই রেশ ধরে তারা ঠিকই বাজিমাত করবে।

বিশ্বকাপে ভালো ফলের আশা নিয়ে এক মাস আগে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমিয়েছে পাকিস্তান। কিন্তু এখন যেমন ফলাফল তাতে করে আখেরে তার লাভ কতটা তারা ঘরে তুলবে, তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে অনেকের। তবে পাকিস্তান বলেই কথা। টানা পরাজয়ের ফলে অনেকে যেমন পাকিস্তানকে আমলে নিচ্ছেন না, আবার অনিশ্চয়তায় ভরা ক্রিকেটে এ কারণেই অনেকে পাকিস্তানকে ফাইনালে দেখছেন।

পাকিস্তানের কোচ মিকি আর্থার কিন্তু ভালো ফলের ব্যাপারে আশাবাদী। তিনি বলেছেন, ‘ইংল্যান্ডে যখন আমরা খেলতে এসেছিলাম, তখন অনেকেই বলেছিলেন আমাদের দলটা নাকি ২৮০ রানও করতে পারবে না। কিন্তু আমরা দু’টি ম্যাচে সাড়ে তিন শ'র আশেপাশে রান তুলেছি। তবে বোলিং ও ফিল্ডিং গড়পড়তা হওয়ায় জিততে পারিনি। বিশ্বকাপে আমাদের ভালো ফল করতে হলে বোলিং ও ফিল্ডিংয়ে উন্নতি করতে হবে। ব্যাটসম্যানরা যথেষ্ট ভালো ফর্মে আছে।’

পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ জানেন, বিশ্বকাপে ব্যর্থ হলে তার ক্যাপ্টেন্সি কেড়ে নেয়া হবে। তাই তিনি দলকে চাঙ্গা করার চেষ্টা করছেন। বিশ্বকাপের দল নির্বাচন ঘিরেও প্রশ্ন উঠেছিল। পরে মোহাম্মদ আমিরের মতো পেসারকে দলে নেয়া হয়। তবে সরফরাজের কাপ ভাগ্য ভালো। ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছিল পাকিস্তান। তবে বিশ্বকাপের লড়াই যে সহজ হবে না, তা বুঝতে পারছেন সরফরাজরা। কারণ, আফগানিস্তানের মতো দলের বিরুদ্ধে তাদের হারতে হয়েছে। ব্যাটিং অর্ডার নিয়েও পাকিস্তান দলে বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে। সরফরাজ উপরের দিকে ব্যাট করতে চান। কিন্তু তিনি সুযোগ পাচ্ছেন না।

পাকিস্তান বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচটি খেলবে ৩১ মে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। তার আগে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে রবিবার আরও একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে দলের ভুল-ত্রুটি শুধরে নিতে চাইছে পাকিস্তানের টিম ম্যানেজমেন্ট। সরফরাজ বলেছেন, ‘বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ সব সময় আসে না। আমি দলের প্রত্যেক সদস্যকে সেটা মনিয়ে করিয়ে দিয়েছি। আগামী দেড় মাস আমাদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সেরা পারফরম্যান্সটা মেলে ধরতে হবে। ড্রেসিংরুমের পরিবেশ খুবই ভালো। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ হারলেও আমরা কিন্তু ভালো লড়াই করেছি। কয়েকটা ম্যাচ জিতলে আত্মবিশ্বাস ফিরে আসবে।’

 


আরো সংবাদ