২০ মে ২০১৯

তাসকিনের কান্না হার মানিয়েছে মাশরাফিকে

আসন্ন বিশ্বকাপের দলে সুযোগ না পেয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেসার তাসকিন আহমেদ - নয়া দিগন্ত

২০১১ সালের বিশ্বকাপ হবে দেশের মাটিতে। সেখানে খেলার জন্য স্বপ্ন বুনেছিলেন এক ক্রিকেটার। সেবার বিশ্বকাপের দল ঘোষণা হয়েছিল ১৯ জানুয়ারি। ইনজুরিতে পড়ার পর খোঁড়া পা নিয়েই এসেছিলেন মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে। সেখানেই বিশ্বকাপের দল ঘোষণার জন্য সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দল ঘোষণার পর সেই খোঁড়া খেলোয়াড়কে ঘিরে সংবাদকর্মীরা ভীড় জমায়। কান্নায় একাকার হয়ে গেছেন সেই খোঁড়া পায়ের মানুষটি। সান্ত্বনা দেয়ার মতো কোনো অবস্থা ছিল না। তার কান্না দেখে কেঁদেছেন অসংখ্য ক্রিকেটপ্রেমী। ক্ষোভে পুড়েছিল লাখো ক্রিকেটভক্ত।

২০১১ সালের ১৯ জানুয়ারির সেই খোঁড়া পা-য়ের খেলোয়াড়টি ছিলেন বর্তমান বাংলাদেশ ও বিশ্বকাপ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ভাগ্যের কি নিদারুণ খেলা, সেই বিশ্বকাপে উপেক্ষিত খেলোয়াড়টির অধীনেই ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের মতো এবারও খেলবে বাংলাদেশ।

তবে সবচেয়ে আশ্চর্য্যজনক বিষয় হলো, সেই ২০১১ সালের ১৯ জানুয়ারি আর আজকের ২০১৯ সালের ১৬ এপ্রিল- এই দুইটি দিনের মধ্যে অনেক মিল পাওয়া যায়। সেদিনও বিশ্বকাপের জন্য ঘোষণা করা হয়েছিল দল, আজ মঙ্গলবারও ঘোষণা করা হলো বিশ্বকাপের জন্য দল। ২০১১ সালে ‘খোঁড়া পা’ নিয়ে বিশ্বকাপের স্বপ্নবোনা মাশরাফি যেমন সংবাদমাধ্যমের সামনে কেঁদে ভক্তদের কাঁদিয়েছিলেন; ২০১৯ বিশ্বকাপের দল ঘোষণার পরও ঘটেছে সে রকম ঘটনা। তবে এবার সেই কান্না কাঁদলেন বাংলাদেশ দলের স্পিড স্টার তাসকিন আহমেদ।

মাত্র কয়দিন হলো ইনজুরি থেকে সেরে উঠেছেন। বিশ্বকাপের জন্য নিজেকে প্রমাণ করেছেন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল)। কিন্তু কপাল মন্দ হলে যা হয়, এমন সময় ইনজুরির শিকার হলেন- যার কয়দিন পরই ঘোষণা করা হবে বিশ্বকাপ দল। আর সেটাই হলো। ইনজুরি থেকে সেরে নিজেকে আর প্রমাণ করারও সুযোগ পাননি এই পেসার। ফিটনেস টেস্ট প্রমাণ করতে গিয়ে সদ্য সমাপ্ত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের হয়ে একটা ম্যাচও খেলেছিলেন। কিন্তু নির্বাচকদের কাছে নিজেকে প্রমাণ করার জন্য সেটি যথেষ্ট ছিল না।

মঙ্গলবার বিকেলে বিসিবি একাডেমিতে এসেছিলেন ফিটনেস নিয়ে কাজ করতে। সেখানেই তাকে ঘিরে ধরলেন সংবাদকর্মীরা। ঘোষিত বিশ্বকাপ দলে সুযোগ হয়নি; নিজের প্রতি সুবিচার করা হয়েছে নাকি অন্যকিছু- এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে নিজেকে আর ধরে রাখতে পারেননি তাসকিন। কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন সবার সামনেই। কান্না জড়িত গলায় বললেন,‘না, ঠিক আছে, যেটা ভালো হয় সেটাই করেছে। সবাই তো ভালো চায় (আমার)। খারাপ চায় না কেউ। সামনে আরও সুযোগ আছে। সুপার লিগের ম্যাচ আছে সেখানে ভালো করার চেষ্টা করব।’

বিপিএল ২০১৮-১৯ সিজনে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন তাসকিন। ২২ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের তালিকায় ছিলেন দ্বিতীয় অবস্থানে। তার থেকে এক ম্যাচ বেশি খেলে ২৩ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেটধারী হয়েছিলেন সাকিব। এমন ফর্মের পরও দলে জায়গা হয়নি তাসকিনের।

বিশ্বকাপের জন্য পাঁচ পেসার নিয়ে দল গড়ার চিন্তা-ভাবনা ছিল বিসিবির। এরমধ্যে আগে থেকেই নির্বাচকদের চোখে ছিলেন মাশরাফি, রুবেল, মোস্তাফিজ ও সাইফউদ্দিন। তবে দ্বিধা ছিল ৫ম বোলার নিয়ে। ৫ম বোলার হিসেবে তাসকিন ও শফিউল ইসলামের নামই উঠে এসেছিল এতোদিন। কিন্তু সবকিছুর অবসান ঘটিয়ে সে জয়াগা দখল করে নেয় পেসার আবু জায়েদ রাহী।

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ১২তম আসরকে সামনে রেখে মঙ্গলবার দুপুরে মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে দল ঘোষণা করেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। এসময় বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের দল ছাড়াও আয়ারল্যান্ড সফরে ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করে বিসিবি। সেই সিরিজের জন্যও দলে জায়গা হয়নি তাসকিনের।


আরো সংবাদ




agario agario - agario