২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

এক বলে ১৭ রান!

এক বলে ১৭ রান দেন রাইলি মেরেডিথ - সংগৃহিত

অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় টি-২০ লিগ 'বিগ ব্যাশ' শুধু নামে নয় ঘটনাও ঘটায় বিগ বিগ। যেমন- ১ বলে ১৭ রান!

অবাস্তব মনে হলেও ঘটনা সত্য।

গত বৃহস্পতিবার একটি ম্যাচের ইনিংসের প্রথম ওভারের প্রথম বলেই এসেছে ওই রান। ওই ওভার থেকে মোট এসেছে ২৩ রান। অবশ্য ৮ রান এসেছে ওয়াইড আর নো বল থেকে। পাঁচটি ওয়াইড, তিনটি নো বল। বোলারের নাম রাইলি মেরেডিথ। বিগ ব্যাশে তিনি হোবার্ট হ্যারিকেনসের হয়ে খেলেন।

রাইলি বল হাতে মেলবোর্ন রেনেগেডসের বিরুদ্ধে ইনিংস শুরু করেছিলেন। প্রথম বলটি করলে তা নো হয়ে যায় (এক রান)। পরেরটা ওয়াইড হয়ে বাউন্ডারি (পাঁচ রান)। পরেরটি আবার নো বল ও বাউন্ডারি (পাঁচ রান)। এর পরেরটিও নো বল এবং বাউন্ডারি (পাঁচ রান)। শেষতক তিনি একটি ইয়র্কার দেন, সেটিতে আসে এক রান।

শুরুটা ভয়াবহ হলেও শেষে রাইলির দলই জিতেছে। মেলবোর্ন রেনেগেডসকে ১৬৭ রানে আটকে দেন তারা। পরে ১৬ রানে ম্যাচ জেতে হোবার্ট হ্যারিকেনস। আর ম্যাচে তিন ওভার বল করে ৪৩ রান দেন রাইলি।

 

পন্টিংয়ের দ্বারস্থ অস্ট্রেলিয়া

বড় দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট। বিশেষ করে গত বছর মার্চে বল ট্রাম্পারিং কেলেঙ্কারির পর তো হারের বৃত্তে ঘুরপাক খাচ্ছে তারা। চলতি বছরই ইংল্যান্ডে বসছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। টুর্নামেন্টে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন তারা। তাই শিরোপা ধরে রাখতে মরিয়া অস্ট্রেলিয়া শরণাপন্ন হয়েছে সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের। পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা আছে ৪৪ বছর বয়সী পন্টিংয়ের। যার মধ্যে ৩টিতে জিতেছেন শিরোপা। এর মধ্যে দু’টি আবার অধিনায়ক হিসেবে। বিশ্বকাপ মিশনে তাই অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারের দ্বারস্থ হয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য পন্টিংকে অস্ট্রেলিয়ার দলের সহকারী কোচ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

এক বিবৃতিতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) হাই পারফরম্যান্স নির্বাহী প্রধান বেলিন্ডা ক্লার্ক বলেছেন, ‘কোচিং স্টাফের ট্যাকটিকসে পরিবর্তনের অংশ হিসেবে রিকি পন্টিংকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারকে গেমপ্ল্যান, ট্যাকটিকস তৈরি সহায়তা ছাড়াও ব্যাটসম্যানদেরও সহায়তা করবেন তিনি।’

এর আগেও অস্ট্রেলিয়া দলের সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করেছেন পন্টিং। তবে সেটি টি-২০ ফরম্যাটে। কিন্তু বিশ্বকাপের মতো বড় আসর সামনে রেখে দলের কোচ হিসেবে নিয়োগ পেয়ে রোমাঞ্চিত পন্টিং; জানালেন, ‘এ বছরের বিশ্বকাপের জন্য কোচিং স্টাফে দেয়ার জন্য আমি মুখিয়ে আছি। এর আগে আমি ছোট ছোট মেয়াদে ওয়ানডে ও টি-২০ দলের দায়িত্ব পালন করেছি। কিন্তু বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে কোচ হতে পারা দারুণ কিছু আমার কাছে। আমি আত্মবিশ্বাসী বরাবরের মতো আসন্ন বিশ্বকাপেও আমরা শক্ত লড়াই করব।’

এ দিকে পন্টিংয়ের মতো ক্রিকেটারকে নিজের সহকারী হিসেবে পেয়ে দারুণ খুশি অস্ট্রেলিয়ার প্রধান কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার, ‘পন্টিং জানেন বিশ্বকাপ জিততে হলে কী করতে হবে। আমার বিশ্বাস দলের ব্যাটসম্যানদের জন্য সে দারুণ সব পরামর্শ দিতে পারবে এবং দলের খেলোয়াড়দের এক সুতোয় বেঁধে রাখতে পারবে। অতীতে আমরা একসাথে কাজ করেছি। আশা করছি বিশ্বকাপেও দারুণ অভিজ্ঞতা হবে।’
ওয়ানডেতে এখন দুর্দিন চলছে অস্ট্রেলিয়ার। ঘরের মাঠেও সিরিজ হারছে তারা। তবে পন্টিংয়ের বিশ্বাস ২০১৯ বিশ্বকাপে ভালো করার সামর্থ্য আছে তার উত্তরসূরিদের, ‘খেলোয়াড়দের ওপর আমার যথেষ্ট আস্থা রয়েছে। আমি জানি, এ বছরের বিশ্বকাপে আমাদের হারানো যেকোনো দলের জন্য কঠিন হবে।’


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme