১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

শেন ওয়ার্নকে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন সেলিম মালিক!

সেলিম মালিক - ছবি : সংগ্রহ

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক লেগ স্পিনার শেন ওয়ার্নকে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক সেলিম মালিক- এমনটাই দাবি করেছেন ওয়ার্ন তার আত্মজীবনীমূলক বইয়ে।

শেন ওয়ার্নের আত্মজীবনীমূলক বই ‘নো স্পিন’ প্রকাশিত হবে চলতি মাসে। যে বইতে তিনি লিখেছেন ১৯৯৪ সালের পাকিস্তান সফরে তাকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন সেলিম মালিক।

শেন ওয়ার্নের বইটি চলতি মাসেই মুক্তি পাবে বাজারে। তিনি এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন বইটির প্রচার-প্রচারণায়। এরই অংশ হিসেবে এক ভারতীয় টিভি চ্যানেলে জানিয়েছেন বিষয়টি। নিজ মুখেই বলেছেন সেলিম মালিকের কাছ থেকে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার কথা।

নিজের বইয়ের একটি উদ্ধৃতি উল্লেখ করে ওয়ার্ন বলেন, ‘সেলিম মালিক আমাকে ২ লাখ ডলার সেধেছিল। তারপর বললো এই টাকাটা আধঘণ্টার মধ্যেই আমার রুমে থাকবে যদি আমি ম্যাচে সব বল অফস্টাম্পের বাইরে করি এবং ম্যাচটা ড্র হয়ে যায়। ম্যাচের ফলাফল নিয়ন্ত্রণ করাটাই ছিলো তার উদ্দেশ্য।’

সেলিম মালিকের এ ঘটনার স্মৃতিচারণ করে ওয়ার্ন আরও জানান যে একসময় শ্রীলঙ্কাতে গিয়েও এমন প্রস্তাব পেয়েছিলেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমি শ্রীলঙ্কার একবার এক ক্যাসিনোতে ৫০০০ ডলার হেরেছিলাম। তখন মার্ক ওয়াহর এক বন্ধু এসে আমাকে বললো যে এই নাও তোমার ৫০০০ ডলার। আমি তখন সেটি ফিরিয়ে দিয়ে বলি যে দরকার নেই; কিন্তু সে তখন বললো এর মধ্যে কোনো প্রস্তাব নেই বা কোন কিছু করতে হবে না। তবে ঘটনা এমন কিছু নয়।’

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সাথে জড়িত থাকার দায়ে ক্যারিয়ারের শেষ পর্যায়ে গিয়ে আজীবনের জন্য ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক সেলিম মালিক। যদিও ২০০৮ সালে তার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় আদালত। যার ফলে এখন কোচিংয়ের দিকে মনোযোগী রয়েছেন তিনি।

আরো পড়ুন: যৌন হেনস্থা : এবার ধরা গেলেন মালিঙ্গা
ভারতীয় সিনেমা জগত বলিউডে যে ঝড় ওঠেতে তা এবার ক্রিকেট মাঠেও ঢুকে পড়ল। #MeToo আন্দোলনের উত্তাপ এখন ২২ গজেও অনুভূত হচ্ছে। শ্রীলঙ্কার সফল পেসার লাসিথ মালিঙ্গার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা অভিযোগ আনলেন অজ্ঞাতপরিচয় মহিলা।

সম্প্রতি দক্ষিণ ভারতীয় সংগীতশিল্পী চিন্ময়ী শ্রীপাদা টুইটারে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন 'ক্রিকেটার লাসিথ মালিঙ্গা' শিরোনামে। পোস্টটিতে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মহিলা জানিয়েছেন, আইপিএল চলাকালীন মুম্বইয়ের এক হোটেলে তার শ্লীলতাহানি করেন শ্রীলঙ্কার এক বিখ্যাত ক্রিকেটার।


খেলোয়াড়টির নাম প্রকাশ না করে টুইটে বলা হয়েছে, 'আমি নিজের পরিচয় গোপন রাখতে চাই। কয়েক বছর আগে মুম্বইয়ের এক হোটেলে এক বন্ধুকে খুঁজতে গিয়ে হঠাত্‍ আইপিএল-এ অংশগ্রহণকারী শ্রীলঙ্কার এক বিখ্যাত ক্রিকেটারের সঙ্গে দেখা হয়ে যায়। তিনি জানান, আমার বন্ধু তার ঘরে আছেন। কিন্তু তার ঘরে ঢুকে বন্ধুর দেখা পাই না। ওই ক্রিকেটার তখন আমাকে খাটে ঠেলে ফেলে আমার মুখের উপর চড়ে বসার চেষ্টা করেন।'

পোস্টে আরো বলা হয়েছে, 'মনে রাখবেন, আমি দীর্ঘাঙ্গী এবং প্রায় সমান ওজনের হওয়া সত্ত্বেও তার সঙ্গে এঁটে উঠতে পারিনি। আমি চোখ ও মুখ বন্ধ করে রাখলেও সে আমার মুখমণ্ডল ব্যবহার করে। ঠিক সেই সময় এক হোটেলকর্মী পানীয় দিতে এসে দরজায় টোকা মারেন। আমাকে ছেড়ে ক্রিকেটারটি উঠে দরজা খুলতে গেলে আমি শৌচাগারে ঢুকে মুখ ধুয়ে ফেলি এবং হোটেলকর্মী ঘর ছেড়ে বেরোনোর পরে ছুটে বেরিয়ে আসি। এই ঘটনায় অত্যন্ত অপমানিত বোধ করেছি। জানি লোকে বলবে, উনি বিখ্যাত বলেই ইচ্ছে করে ওই ঘরে ঢুকেছিলে। তুমি জেনেবুঝেই এ পথে পা বাড়িয়েছিলে।'

উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কা দলের নির্ভরযোগ্য পেসার মালিঙ্গা ২০৭টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৩০৬ উইকেট লাভ করেছেন এবং ৬৮টি টি২০ ম্যাচে ৯০ উইকেট শিকার করেছেন। এছাড়া ৩০টি টেস্ট ম্যাচে তার সংগ্রহ ১০১ উইকেট। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলের হয়ে আইপিএল-এর দশটি মরশুমে খেলেন মালিঙ্গা। ১১০টি আইপিএল ম্যাচ থেকে তার শিকার ১৫৪ উইকেট। প্রতিযোগিতার ইতিহাসে তিনিই সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক। শিল্পী শ্রীপাদার দাবি, উল্লিখিত ঘটনাটি আইপিএল চলাকালীন ঘটেছিল।

গত বুধবার যৌন হেনস্থার অভিযোগ ওঠে ১৯৯৬ সালে বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কা দলের অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গার বিরুদ্ধে। 

একটি ফেসবুক পোস্টে ওই বিমানকর্মী দাবি করেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক ভারত-শ্রীলঙ্কা সিরিজ চলাকালীন একটি হোটেলে তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন।

ওই বিমানকর্মীর অভিযোগ ভারত-শ্রীলঙ্কা সিরিজ চলাকালীন একদিন হঠাৎ মুম্বইয়ের জুহুর একটি বিলাসবহুল হোটেলে তার ও তার বান্ধবীর সঙ্গে দেখা হয়ে যায় ক্রিকেটারদের। তারা অটোগ্রাফ নেয়ার জন্য ক্রিকেটারদের ঘরে যান। একে একে সব ক্রিকেটারের ঘরেই যান তারা। ভারতীয় ক্রিকেটাররা তাদের যথেষ্ট সম্মানের সঙ্গেই অটোগ্রাফ দেন। কিন্তু রানাতুঙ্গার ঘরে গিয়েই বিপত্তি বাধে। তরুণীর অভিযোগ রানাতুঙ্গার ঘরে সে সময় সাতজন ছিলেন। তারা মদ্যপান করছিলেন। দুই তরুণী প্রবেশ করলে তাদেরও মদ্যপানের প্রস্তাব দেয়া হয়। অভিযোগকারী মহিলার বান্ধবী সেই প্রস্তাবে সম্মত হলেও তিনি নিজে সম্মত হননি।


এরই মধ্যে সাত ক্রিকেটারের মধ্যে কোনো একজন ঘরের দরজাটা বন্ধ করে দেন। অভিযোগারী আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। এরই মধ্য হঠাৎ করে পিছন থেকে নির্যাতিতাকে জাপটে ধরেন সাবেক শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক। এরপরই মহিলার শরীরের একাধিক স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়ার চেষ্টা করা হয় বলেও অভিযোগ।

ফেসবুক পোস্টে মহিলা জানিয়েছেন, রানাতুঙ্গার আচরণে প্রথমে তিনি হতভম্ব হয়ে যান। পরে ধাতস্থ হয়ে শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়কের পায়ে লাথি মারেন এবং তাকে এক ঝটকায় ফেলে দিয়ে ছুটে রিসেপশনে পালিয়ে যান। হোটের কর্তৃপক্ষকে ঘটনার কথা জানানো হলেও নাকি তারা অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে। রিসেপশনিস্ট জানান, “এটা সম্পূর্ণই আপনার ব্যক্তিগত ব্যপার, এতে আমরা হস্তক্ষেপ করব না।”

নানা পটেকর, অলোক নাথ থেকে শুরু করে বলিউডের আরো বহু নাম উঠে আসছে যৌন হেনস্থার অভিযোগে। এবার সেই তালিকায় কোনো ক্রিকেটারের নাম যুক্ত হলো। রানাতুঙ্গা অবশ্য কেবল ক্রিকেটারই নন, বর্তমানে তিনি একজন রাজনীতিক।


আরো সংবাদ




Hacklink

ofis taşıma

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme