১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

পাকিস্তানকে রুখে দিচ্ছেন আরেক 'পাকিস্তানি'

সেঞ্চুরির পর উসমান খাজা মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া করছেন - সংগৃহীত

দুবাই টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিনে ঘুরে দাড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়া। হেরে যাওয়া ম্যাচটি এখন ড্র করার সম্ভাবনা দেখছে তারা। আর এ কাজটি করে যাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার উসমান খাজা। নান্দনিক এক সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দলকে টেনে তুলছেন তিনি। পাকিস্তানকে রুখে দিচ্ছেন পাকিস্তানি বংশদ্ভূত এই অসি ব্যাটসম্যান। তিনি ২২৪ বলে ১০ বাউন্ডারিতে শতক করেছেন। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি। এখন ১০৮ রান নিয়ে দলকে সামনে এগিয়ে নিচ্ছেন।

গতকাল দিনশেষে অর্ধশত রানে অপরাজিত ছিলেন খাজা। আর দলের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ১৩৬ রান। তার সঙ্গী হিসেবে ছিলেন ট্রাভিস হেড। অনেকটা পথ একসাথে পাড়ি দিয়েছেন তারা। দলীয় ২১৯ রানে ব্যক্তিগত ৭২ এ মোহাম্মদ হাফিজের বলে আজ সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে।

এরপর মারনুস লাবুসচাঙ্গের সাথে কিছুদুর এগিয়ে যান খাজা। তবে ইয়াসির শাহের বলে ১৩ রানে মাঠ ছাড়েন তিনিও। এখন খাজার সঙ্গী অধিনায়ক টিম পাইন।

জিততে হলে অস্ট্রেলিয়াকে করত হবে ১৯৭ রান, যা খুবই কঠিন। আর ড্র করতে হলে বাকি দুই সেশন পর্যন্ত ক্রিজে থাকতে হবে। তাদের হাতে আছে আরো ৫ উইকেট। এখন পানি পানের বিরতি চলছে।

 

শেষবেলায় আব্বাসের তাণ্ডব

রানের পাহাড় টপকাতে নেমে শুরুটা যেমন দরকার ছিলো তেমনটাই হয়েছিলো অস্ট্রেলিয়ার। তবে এরপরই আবার পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মাদ আব্বাসের এক স্পেলে নড়বড়ে হয়ে যায় দলটির টপ অর্ডার। পরপর ৩টি উইকেট তুলে নিয়েছেন আব্বাস। চতুর্থ দিন শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৩৬ রান। জয়ের জন্য বৃহস্পতিবার শেষ দিকে করতে হবে আরো ৩২৭ রান, অথবা ড্র করতে চাইলে ব্যাটিং করে কাটিয়ে দিতে হবে পুরো তিনটি সেশন, হাতে আছে ৭ উইকেট।

বুধবার চতুর্থ দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেটে ১৮১ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে পাকিস্তান। ফলে ম্যাচ জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার সামনে টার্গেট দাড়ায় ৪৬২ রান। এই পাহাড় টপকাতে নেমে অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার ওসমান খাজা ও অ্যারন ফিঞ্চ উদ্বোধনী জুটিতে তোলেন ৮৭ রান। ইনিংসের ৩০তম ওভারে অ্যারন ফিঞ্চকে এলবিডব্লিউ করে আব্বাস। ৯৯ বলে ৪৯ রান করেছেন ফিঞ্চ। এক বল পরেই উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন নতুন ব্যাটসম্যান মিচেল মার্শ। ছোট ভাই শূন্য রানে আউট হওয়ার পর ক্রিজে আসেন শন মার্শ; কিন্তু দলের হয়ে হাল ধরতে পারেননি তিনি। আব্বাসের পরের ওভারেই শনও ফিরে গেছেন শূন্য রানে। তিনিও এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েছেন।

অর্থাৎ দলীয় ৮৭ রানে প্রথম উইকেট হারানো অস্ট্রেলিয় সেই একই রানেই হারায় দ্বিতীয় ও তৃতীয় উইকেট। তবে চতুর্থ উইকেটে আবার লড়াইয়ে ফেরার আভাস দিয়েছে দলটির ব্যাটসম্যানরা। ট্রেভিস হেড ক্রিজে এসে ওসমান খাজার সাথে দিনের বাকি সময়টুকু নির্বিঘ্নে পার করেছেন। দুজনে গড়েছেন ৪৯ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি। ওপেনার ওসমান খাজা তুলে নিয়েছেন হাফ সেঞ্চুরি। অপরাজিত আছেন ৫০ রানে, অন্য প্রান্তে হেডের সংগ্রহ ৩৪ রান।

এখন পর্যন্ত এই টেস্টে পাকিস্তানই আছে সুবিধাজনক অবস্থানে। শেষ দিনে টেস্ট ক্রিকেটে ৩২৭ রান তোলা খুবই কঠিন। দুবাইয়ের পিচ এমনিতেই স্পিন সহায়ক, তার ওপর পাঁচদিনের ব্যবহৃত পিচ হয়ে উঠবে ব্যাটসম্যানদের জন্য আরো কঠিন। প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট নেয়া বেলাল আসিফ হয়ে উঠতে পারেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। তাই শেষ দিনে ম্যাচ ড্র করার উদ্দেশ্য নিয়েও যদি অস্ট্রেলিয়া খেলতে শুরু করে সেটিও কঠিন হয়ে উঠবে তাদের জন্য।

এই টেস্টে ইতিহাস দাড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। চতুর্থ ইনিংসে এত বড় স্কোর তাড়া করে জেতার রেকর্ড নেই। সর্বোচ্চ ৪১২ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের, তা এই অস্ট্রেলিয়ারই বিপক্ষে।

এর আগে মঙ্গলবারের ৩ উইকেটে ৪৫ রান নিয়ে আজ সকালে ব্যাট করতে নামে পাকিস্তান। অর্ধশত থেকে ২ রান দুরে থাকতেই সাজঘরে ফিরেন ইমাম-উল-হক। পরে বাবর আজম ও আসাদ শফিক দলকে এগিয়ে নেয়। দলীয় ১৮১ রানে এ জুটির ভাঙন ধরলে ইনিংস ঘোষণা করে পাকিস্তান। দ্বিতীয় ইনিংসে জন হল্যান্ড সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেন।


আরো সংবাদ