২২ মার্চ ২০১৯

এশিয়া কাপ : কঠিন পরীক্ষায় ভারত

এশিয়া কাপ : কঠিন পরীক্ষায় ভারত - ছবি : সংগৃহীত

আর মাত্র এক দিন পর দুবাইয়ে পর্দা উঠছে এশিয়া কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের। মহাদেশীয় এই টুর্নামেন্টে দীর্ঘদিন যাবত একচেটিয়া প্রাধান্য ছিল ক্রিকেট পরাশক্তি ভারতের। এবারো সেই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার চেষ্টা করবে দলটি। তবে প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলো যেভাবে উন্নতি করছে, তাতে তাদের এই আধ্যিপত্য হুমকির মুখে পড়তে পারে। শ্রেষ্ঠত্ব বজায় রাখার জন্য কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে দলটিকে। বিশেষ করে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি পাকিস্তান এই পরীক্ষা নেবে ভারতীয়দের।

১৯৮৪ সালে শারজায় অনুষ্ঠিত হয় প্রথম এশিয়া কাপ। ওই আসরের শিরোপা জয় করে ভারত। এরপর থেকে ভারত ও শ্রীলংকাই মূলত এই টুর্নামেন্টে আধিপত্য বিস্তার করে রেখেছে। টুর্নামেন্টের ছয়বার ট্রফি লাভ করেছে ভারত। তন্মধ্যে ৫টি ওয়ানডে এবং একবার টি-২০ ট্রফি। শ্রীলংকা পাঁচবার জয় করেছে এশিয়া কাপের ট্রফি। আর মাত্র দুইবার এই ট্রফি জয় করেছে পাকিস্তান।

২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল ঘোষণা করে এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে ওয়ানডে ও টি-২০ ফর্মেটে। অর্থাৎ একবার ওডিআই টুর্নামেন্ট হলে পরের আসরটি হবে টি২০ ফর্মেটের। এরই ধারবাহিকতায় ২০১৬ সালে টি-২০ ফর্মেটের প্রথম এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টের ফাইনালে বাংলাদেশকে হারিয়ে শিরোপা জয় করে ভারত।

আসন্ন ২০১৮ সালের টুর্নামেন্টেও যথারীতি শিরোপার ফেভারিট হিসেবে প্রতিযোগিতায় নামবে ভারত। তবে এবার পাকিস্তানও বেশ শক্তিশালী দল নিয়ে লড়াই করবে। ২০১৭ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অঘটনের জন্ম দিয়ে শিরোপা জয় করেছে সরফরাজ আহমেদের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল। এরপর থেকে বেশক’টি টুর্নামেন্ট ও সিরিজে নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে চলেছে দলটি।

এবারের টুর্নামেন্টে ভারতীয় দলে থাকছেন না ‘রান মেশিন’ খ্যাত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। আর এটি হবে অন্য দলগুলোর জন্য বড় একটি সুযোগ। প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলোর আশাবাদী হবার আরেকটি কারণ হচ্ছে নিকট অতীতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে ভারত খুব বেশী ভালো খেলেনি। তারা হয়তো ২০১৬ সালের এশিয়া কাপের শিরোপা জয় করেছে, তবে ২০১০ সালের পর মাহদেশীয় টুর্নামেন্টে এটি ছিলো ভারতের প্রথম শিরোপা।

১৯৮৪ সালে এশিয়া কাপের উদ্বোধনী আসরের শিরোপা জয় করার দুই বছর পর নিজ দেশে অনুষ্ঠিত আসর থেকে শিরোপা জয় করেছে শ্রীলংকা। দ্বীপ দেশটির সঙ্গে রাজনৈতিক সংকট তৈরি হওয়ার কারণে ওই টুর্নামেন্টে অংশ নেয়নি ভারত।

এরপর ১৯৮৮ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টের শিরোপাটি ফের জিতে নেয় ভারত। পরবর্তী দুটি আসরের শিরোপা জয়ের মাধ্যমে হ্যাট্রিক শিরোপা জয়ের নজির স্থাপন করে ক্রিকেট বিশ্বের এই পরাশক্তি। ফলে তাদের সর্বমোট শিরোপা দাঁড়ায় চারটি।

তবে ১৯৯৪-৯৫ আসরের শিরোপা জয়ের পর কিছুটা দাপট হারায় ভারত। পরের চারটি আসর থেকে খালি হাতে ফিরতে হয়েছে দলটিকে। এ সময় শ্রীলংকা তিনটি এবং পাকিস্তান একটি শিরোপা জয় করে।

শেষ পর্যন্ত ২০১০ সালে এসে এম এস ধোনির নেতৃত্বে শিরোপা খরা দূর করে ভারত। শ্রীলংকার ডাম্বুলায় অনুষ্ঠিত ফাইনালে স্বাগতিকদের ৮১ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন শিরোপা ফের ঘরে তোলে দলটি।
এরপর শ্রীলংকা ২০১১-১২ মৌসুমের শিরোপা ঘরে তোলার পর ২০১৩-১৪ আসরের শিরোপা জয় করে পাকিস্তান।

২০১৬ সালে টি-২০ ফর্মেটে অনুষ্ঠিত হয় এশিয়া কাপ। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত ওই টুর্নামেন্টে ভারত অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হলেও দারুণ দক্ষতার পরিচয় দিয়ে ফাইনাল খেলেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ।


আরো সংবাদ

অসুস্থ বৃদ্ধা মাকে রাস্তায় ফেলে পালাচ্ছিল দুই ছেলে কেন্দ্রীয় প্রয়াসে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ভাতাভোগীদের জন্য ডাটাবেইজ তৈরির সুপারিশ সংসদীয় কমিটির রাখাইনে প্রবেশাধিকার পাচ্ছে না জাতিসঙ্ঘের সংস্থাগুলো ১০ জনকে প্রধানমন্ত্রীর ২ কোটি ৭ লাখ টাকা অনুদান রোহিঙ্গাদের তহবিল অপব্যবহার করা হচ্ছে না : এনজিও ফোরাম শিক্ষা বিস্তারে মাস্টার ইসমাইলের অবদান চিরস্মরণীয় উত্তরখানে ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু কল্যাণ তহবিলে ১০ লাখ টাকা দিলো ২৪তম বিসিএস প্রশাসন অ্যাসোসিয়েশন হলিক্রস কলেজের সংবর্ধনায় স্পিকার নারীর ক্ষমতায়নের পূর্বশর্ত নারী শিক্ষা মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তারা বাস্তবে সব নাগরিক সমান অধিকার ও মর্যাদা পাচ্ছেন না

সকল




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al