২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পাকিস্তান এগিয়ে, বললেন হাথুরুসিংহে

পাকিস্তান ক্রিকে দলকেই ফেবারিট মানছেন অনেকে - ফাইল ছবি

এশিয়া কাপ নিয়ে হিসাব নিকাশ চলছে জোরালো ভাবে। এবার এই দলে যোগ দিলে শ্রীলঙ্কার কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। তিনি বলছেন, সবচেয়ে এগিয়ে থেকে এবারের আসর শুরু করছে পাকিস্তান। তার মতে, আসছে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে শিরোপার দাবিদার পাকিস্তান।

আর মাত্র ২ দিন পর মাঠে গড়াবে এশিয়া কাপ। এতে অংশ নিতে যাওয়া ৬ দল গুছিয়ে নিচ্ছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এমন সময় অভিজ্ঞ এই কোচের কাছ থেকে পাওয়া প্রশংসা হয়তো পাকিস্তান দলকে উজ্জীবিতই করবে।

এবার এশিয়া কাপ হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে দলগুলো। ‘এ’ গ্রুপে লড়বে ভারত, পাকিস্তান ও হংকং। গ্রুপ ‘বি’ তে বাংলাদেশের সঙ্গী শ্রীলংকা ও আফগানিস্তান।

হাথুরু মনে করেন সাম্প্রকি পারফরম্যান্স ও আরব আমিরাতে খেলার অভিজ্ঞতার কারণে পাকিস্তানই ফেরাবির এবারের আসরে। তিনি বলেন, ‘এশিয়া কাপে পাকিস্তানই ফেবারিট। সবশেষ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতেছে দলটি। সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সও ভালো। আরব আমিরাত তাদের হোম ভেন্যু। এখানে ওদের পরিসংখ্যান দারুণ। সব মিলিয়ে তারাই সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়ন।’

ক্রিকেটবোদ্ধাদের মতে, ভারতীয় দলে বিরাট কোহলির না থাকাও পাকিস্তানের এগিয়ে থাকার। একই মত, বাংলাদেশের সাবেক কোচেরও, আমার ফেভারিটের তালিকায় দ্বিতীয় ভারত। কারণ দলটিতে নেই বিরাট কোহলি।

এশিয়া কাপে পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন শ্রীলংকা। ১৪তম আসরে নিজেদের লক্ষ্যের কথা জানালেন হাথুরুসিংহে, আমরা ধাপে ধাপে এগোতে চাই। আমাদের গ্রুপে আছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। তারা এখন কঠিন প্রতিপক্ষ। আমরা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে প্রস্তুত। শিরোপা নিয়ে ঘরে ফেরায় আমাদের উদ্দেশ্য।

আসছে ১৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশের বিপক্ষে উদ্বোধনী ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে শ্রীলংকার এশিয়া কাপ মিশন।

আরো পড়ুন: আশরাফুলের ফেবারিট পাকিস্তান
এশিয়া কাপের বিশ্লেষণ শুরু হয়েছে আগেই, সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিতব্য এ আসরে কে ফেবারিট সেটা নিয়ে নানান মত ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের। যেহেতু ওয়ানডে ম্যাচ, প্রতিটা দলই প্রায় সমশক্তির। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার সাথে বাংলাদেশ। কেউ কাউকে ছেড়ে দেয়ার নয়। প্রতিটা দলই খেলছে দুর্দান্ত ক্রিকেট। এরপরও যে বিশ্লেষণ হচ্ছে তাতে পাকিস্তানকে এগিয়ে রাখছেন কেউ কেউ। তাদের মধ্যে মোহাম্মাদ আশরাফুল একজন। বাংলাদেশকেও তিনি রেখেছেন সম্ভাবনার মধ্যে।

বুধবার মিরপুর শেরেবাংলায় সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছেন, কেন তিনি পাকিস্তানকে এগিয়ে রেখেছেন সেটা। দীর্ঘদিন ধরেই পাকিস্তানের হোম ভেনু সংযুক্ত আরব আমিরাত। আর এটিই আশরাফুলের বিবেচনায় পাকিস্তানকে এগিয়ে রাখছে। ২০০৯ এ লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের উপর হামলার পর থেকে পাকিস্তানে হচ্ছে না আন্তর্জাতিক ম্যাচ। ফলে তারা হোম ভেন্যু হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে বেছে নিয়েছে। এতে করে ওই দেশটির খুটিনাটি তাদের নখদর্পনে। এরপর রয়েছে গ্যালারির বিশাল সাপোর্ট। যার অধিকাংশ পাকিস্তানেরই।


আশরাফুল বলেন,‘যেহেতু আরব আমিরাতে খেলা, এটা পাকিস্তানের হোম ভেন্যু। কন্ডিশনটাও তাদের খুব পরিচিত। তাই পাকিস্তানই এগিয়ে থাকবে। এছাড়া সম্প্রতি ভাল ক্রিকেট খেলে আসছে দলটি। এতে আমার মনে হচ্ছে অবশ্যই পাকিস্তান একটু এগিয়ে থাকবে।’

সর্বশেষ ২০ ম্যাচের পরিসংখ্যানে পাকিস্তান বাজে খেলেছে নিউজিল্যান্ড সফরে। পাচ ম্যাচের সিরিজের প্রতিটাতেই তারা হেরে এসেছে। এ ছাড়া বাকী ১৫ ম্যাচের ১৪ টিতেই তাদের রয়েছে জয়। যার মধ্যে লন্ডনে অনুষ্টিত গত বছরের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও রয়েছে। ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে জিতেছিল শিরোপা। সর্বশেষ জিম্বাবুয়ে সফরের পাচটি ওয়ানডেতেও জিতেছে তারা বড় ব্যাবধানে।

তবে বাংলাদেশকেও তিনি মোটেও পিছিয়ে রাখছেন না। তার প্রধান কারণ সাম্প্রতিককালের পারফরমেন্স। বেশ কিছুদিন ধরেই বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেটে সফলতা নিয়ে এগিয়ে চলছে। এর সর্বশেষ উদাহরণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজ জয়। তিনি বলেন, ‘ওয়ানডেতে আমরা অসাধারণ ক্রিকেট খেলে আসছি, শেষ ৪-৫ বছর। এ ফরম্যাটে আমরা ভাল দল। এশিয়া কাপে আমরা ২ বার ফাইনাল খেলেছি। এবার আমাদের সবার স্বপ্ন আমরা চ্যাম্পিয়ন হব। সে জন্য ম্যাচ বাই ম্যাচ সবাই চেষ্টা করবে দল, ভাল খেলার। 
সিনিয়ররা যদি ভাল ক্রিকেট খেলে আর জুনিয়ররা যদি সাধ্যমত সহযোগিতা করে, তাহলে আমি মনে করি বাংলাদেশেরও ভাল সম্ভাবনা 
আছে।’

তিনি অবশ্য বাংলাদেশের ভাল করার পেছনে কিছু পূর্বশর্তও জুড়ে দিয়েছেন। বিগত বেশ কিছু পরিসংখ্যানের দিকে তাকালে দেখা যাবে কোনো টুর্নামেন্ট শুরুতে সুচনা ম্যাচের গুরুত্ব অনেক। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রথম ম্যাচটা খুব গুরুত্বপুর্ণ। শ্রীলঙ্কার সাথে পরিস্থিতিটা যদি আমাদের পক্ষে রাখতে পারি, তাহলে আমাদের জন্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ সহজ হয়ে যাবে। যদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয়টা অনুকুলে না রাখতে পারি তাহলে সব কিছুই একটু কঠিন হয়ে যাবে।’

উল্লেখ্য, এশিয়া কাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ১৫ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।


আরো সংবাদ