২৫ এপ্রিল ২০১৯

দু্বাইয়ে দলের সাথে যোগ দিলেন সাকিব

সাকিব আল হাসান। ছবি - সংগৃহীত

বাংলাদেশ টিমের সাথে যোগ দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। তিনি যুক্তরাষ্ট্র থেকে সরাসরি দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন।  ইনজুরি বিতর্ককে পেছনে ফেলে নেটে অনুশীলন করেছেন তিনি। নেটে তাঁর ব্যাটিং অনুশীলনে তাকে স্বাভাবিক দেখা গেছে। সাকিব কতটুকু ফিট সেটা নিয়ে অনেক বিতর্ক তৈরি হলেও বিসিবি ও কোচ বরাবরই বলে এসেছেন, সাকিব এশিয়া কাপ খেলতে পারবেন।

এশিয়া কাপের ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা ও আফগানিস্তান। মঙ্গলবার জাতীয় দলের সঙ্গে অনুশীলন শেষে সাকিব নিজেদের টার্গেট নিয়ে বলেন, শিরোপা জিততেই আমরা এখানে এসেছি। এই মুহূর্তে আমাদের লক্ষ্য শুরুটা ভালো করা। এরপর টার্গেট থাকবে ম্যাচ বাই ম্যাচ ভালো খেলার।

আফগানদের কথা বলতে গিয়ে সাকিব বলেন, আফগানদের বিপক্ষে আমরা আগেও খেলেছি। ওদের সম্পর্কে আমাদের ধারণা আছে। টি-টোয়েন্টিতে ওরা দারুণ খেলেলেও আমার বিশ্বাস ওয়ানডে ফরম্যাটে আমরা ভালো কিছু করতে পারব।

আগামী শনিবার বাংলাদেশ-শ্রীলংকা ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে এশিয়া কাপ। প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে গত রোববার সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

 

আরো  দেখুন : সাকিবকে নিয়ে কেন এতো জোরাজুরি?

দুই দিন আগে এক সাক্ষাৎকারে নিজের ফিটনেস নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান৷ ওই সাক্ষাৎকারে সাকিব নিজেই দাবি করেছেন, তিনি মাত্র ২০-৩০ ভাগ ফিট৷ তাহলে এশিয়া কাপে কীভাবে খেলবেন তিনি?

সবশেষ ওয়েষ্ট ইন্ডিজ সফরে যেতে চাননি সাকিব৷ সেখানেও অনেকটা জোর করে তাকে পাঠানো হয়৷ হাতের আঙুলে যে ইনজুরি আছে, সেটাতে ব্যাথানাশক ইনজেকশন দিয়ে তাকে খেলতে হয়েছিল৷ এবারও একইভাবে তাকে খেলতে হবে৷ এশিয়া কাপের পরই তিনি অপারেশন করাবেন৷ সেভাবেই বিসিবি থেকে নির্দেশনা এসেছে৷ এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক, সাকিবকে নিয়ে এতো জোরাজুরি কেন? তার কাছ থেকে সাময়িক সার্ভিসের চেয়ে তো দীর্ঘমেয়াদি সার্ভিস পাওয়াটাই জরুরি৷


বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে (বিসিবি)'র মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস সাকিবের ফিটনেস সম্পর্কে ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ‘‘আমরা যতদূর জানি, সাকিব ওর ইনজুরি নিয়ে কোনো কথা বলেনি৷ ও যেটা বলেছে সেটা হচ্ছে, তার ফিটনেস, মানে ও যেহেতু অনেকদিন খেলার মধ্যে নেই, তাই ওর শারীরিক ফিটনেসের কথা বলছে৷ সুতরাং সে দুবাই যাবে৷ ৯ সেপ্টেম্বর মাশরাফিদের পৌঁছানোর আগেই সাকিবের দুবাই পৌঁছানোর কথা রয়েছে৷ আর তার বিকল্প হিসেবে তো মুমিনুলও যাচ্ছে৷ দলটা এখন ১৬ সদস্যের হচ্ছে৷’’

জানা গেছে, এই বিতর্কের মধ্যেই বৃহস্পতিবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিসিবিকে ই-মেইল পাঠিয়ে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন সাকিব৷ সেখানে তিনি দাবি করেছেন, নিজের ফিটনেস নিয়ে সংশয় প্রকাশ করলেও ব্যাটিং-বোলিং করতে পারবেন না- এমন কথা তিনি বলেননি৷ এমনকি সাক্ষাৎকারটিকেও বলেছেন ‘হালকা কথোপকথন’৷

গত জানুয়ারিতে পাওয়া আঙুলের ব্যথা বয়ে বেড়াচ্ছেন সাকিব৷ আঙুলে ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে আফগান সিরিজ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে খেলেছেন তিনি৷ তারপর দেশে ফিরে এশিয়া কাপের আগেই অস্ত্রোপচার করানোর ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন, যদিও শেষ পর্যন্ত বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের চাওয়া অনুযায়ী এশিয়া কাপ খেলেই অস্ত্রোপচারে সম্মত হয়েছেন বাংলাদেশের টেষ্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক৷ অস্ত্রোপচার ইস্যু সেখানেই সমাধান হয়ে গিয়েছিল৷ কিন্তু ফিটনেস নিয়ে তার মন্তব্যে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক৷

সাকিবের ফিটনেসের কথা ভেবে অবশ্য এর আগেই এশিয়া কাপের ১৫ সদস্যের দলের সাথে ১৬তম সদস্য হিসেবে যোগ করা হয় মুমিনুল হককে৷ অর্থাৎ, সাকিব দলের সাথে যাচ্ছেন, থাকবেন মুমিনুলও৷ জালাল ইউনুস বলেন, ‘‘সাকিব যদি এশিয়া কাপে যেতে চায়, আমরা বাধা দেব না৷ কিন্তু ২০-৩০ ভাগ ফিট মানে সে খেলার মতো অবস্থায় নেই, আনফিট৷ তার খেলা উচিত হবে না৷ দলের সাথে তাই ১৬তম সদস্য হিসেবে মুমিনুল হককে পাঠানো হচ্ছে৷’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘সাকিব আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, তবে তাকে খেলতে বাধ্য করা হবে না৷ আসলে সাকিব দলের সাথে থাকলে ৪০ ভাগ মনোবল এমনিতেই প্লেয়ারদের বেড়ে যায়৷’’

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে জাতীয় দলের কোচ স্টিভ রোডস দাবি করেন, সাকিবের কথাটাই ছিল ভুল, ‘‘আমি বিশ্বাস করি না সে মাত্র ২০-৩০ ভাগ ফিট৷ আমার মনে হয় ও এর চেয়েও অনেক বেশি ফিট৷’’

কোচের এমন ভাবনার পেছনে কাজ করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজে সাকিবের পারফরম্যান্স৷ এই চোট নিয়েই তো জুলাই-আগষ্টের সফরে দারুণ খেলে এলেন সাকিব! দলের সাথে তার অনুশীলন না করাতেও কোনো সমস্যা দেখছেন না কোচ৷ জালাল ইউসুন বলেন, ‘‘সাকিবের সাথে কোচের কথা হয়েছে, সে কারণে কোচ এসব বলেছেন৷’’

ক্রীড়া সাংবাদিক দেবব্রত মুখোপাধ্যায় ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘২০-৩০ ভাগ ফিট একজন খেলোয়ারকে কিভাবে দলে রাখা হলো সেটাই তো এখন বড় বিস্ময়৷ তার সাথে কী তাহলে আগে বোর্ড থেকে কথা বলা হয়নি৷ আর সাকিবের এই তথ্য আমারও বিশ্বাস হয় না৷ একজন প্লেয়ার ২০-৩০ ভাগ ফিট থাকার অর্থ তাকে হাসপাতালে থাকার মতো অবস্থা৷ সে কারণেই বলছি, সাকিব ঠিক বলেননি৷’’

সাকিব বারবারই খেলতে চাচ্ছেন না৷ আগের টুর্নামেন্টও খেলতে চাননি৷ তাহলে তাকে জোর করা হচ্ছে কেন? জবাবে তিনি বলেন, ‘‘আসলে সাকিব আমাদের দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্লেয়ার৷ তিনি না খেললে দু'জনকে খেলাতে হয়৷ তবে আমি মনে করি, তিনি খেলতে না চাইলে জোর করে খেলানো উচিত না৷ তার কাছ থেকে দেশের এখনো অনেক কিছু পাওয়ার আছে৷’’

এ নিয়ে কোনো ধরনের প্র্যাকটিস না করেই তিনটি টুর্নামেন্ট খেলতে যাচ্ছেন সাকিব? কেন তাকে এই সুযোগ বারবার দেয়া হচ্ছে?

জবাবে দেবব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘প্র্যাকটিস না করা সাকিবের সমস্যা৷ এতে তারই ক্ষতি৷ এভাবে চলতে থাকলে তিনি নিজেই এক সময় আর খেলতে পারবেন না৷ আসলে শেষ কথা হলো, তিনি আমাদের খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্লেয়ার, তিনি অনেকদিন খেলুন, এটা আমরাও চাই৷’’

সাকিব পুরোপুরি ফিট নন, এটাও মানছেন কোচ৷ তিনি বলেছেন, ‘‘সে পুরোপুরি ফিট নয়৷ কিন্তু ক্যারিবিয়ানে সে যেমন খেলেছে তেমনটাই যদি খেলতে পারে, তাহলে সেটি বাংলাদেশের জন্য বিশাল সম্পদে পরিণত হবে৷ এই ছেলেটি অপূর্ব একজন ক্রিকেটার৷ যদি সাকিব ৬০-৭০ ভাগ ফিট হয়ে থাকে, তাহলেই তার কাছ থেকে দল অনেক কিছুই পেয়ে যাবে৷’’


আরো সংবাদ

বিচার চেয়ে কাঁদলেন কণ্ঠশিল্পী মিলা বিচার চেয়ে কাঁদলেন কণ্ঠশিল্পী মিলা অর্থ পাচারের মামলায় মামুনের ৭ বছর কারাদণ্ড বেল্ট অ্যান্ড রোড ফোরামে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন শিল্পমন্ত্রী ওয়াকফ প্রশাসনকে উন্নত প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে হবে : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে সিপ্রোহেপটাডিন রফতানির অনুমোদন পেল বেক্সিমকো ফার্মা টঙ্গীতে ওয়ালটনের বর্ণাঢ্য বৈশাখী শোভাযাত্রা অবৈধ ব্যবহারে বিদ্যুতের অপচয় হচ্ছে : সংসদে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী কৃষিতে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উদাহরণ : কৃষিমন্ত্রী কেরানীগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বার রহস্যজনক মৃত্যু জায়ানের মৃত্যুতে সেলিমকে সমবেদনা স্পিকারের

সকল




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

Bursa evden eve nakliyat
arsa fiyatları tesettür giyim
Canlı Radyo Dinle hd film izle instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al
hd film izle
gebze evden eve nakliyat