২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

কুকের শেষের শুরু

অ্যালিস্টার কুক : শেষের শুরু - ছবি : সংগ্রহ

ইংলিশ ব্যাটসম্যান অ্যালিস্টার কুক তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচটি খেলতে নেমেছেন শুক্রবার। লন্ডনের কেনিংটন ওভাল স্টেডিয়ামে ভারতের বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচে টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচটি শুরু হয়েছে বাংলাদেশ সময় বিকাল চারটায়।

ইংল্যান্ড আগেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করায় এই ম্যাচটি পরিণত হয়েছে আনুষ্ঠানিকতায়। তবে ইংলিশ ওপেনার অ্যালিস্টার কুক এই ম্যাচ শেষে অবসরে যাবেন- এমন ঘোষণা দেয়ার কারণে ম্যাচটি ঘিরে আগ্রহ তৈরি হয়েছে দর্শক, সমর্থকদের।

লন্ডনে এদিন টস জিতে ব্যাট করতে নেমেছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। ইনিংস ওপেন করতে নেমেছেন যথারীতি অ্যালিস্টার কুক ও কিয়াটন জেনিংস। বছরখানেক ধরেই ব্যাটে রান নেই কুকের, যে কারণে আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি থেকে আগের অবসরে যাওয়ায় এই টেস্ট তার দীর্ঘ এক যুগের ক্যারিয়ারের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

ক্যারিয়ারের এই সময়টাতে ব্যাটসম্যান হিসেবে কিংবদন্তীদের কাতারে নাম লিখিয়েছেন কুকু। ১৬০ টেস্টে তার রান ১২ হাজারের বেশি, সেঞ্চুরি ৩২টি।

টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় কুকের নাম ছয় নম্বরে। তার আগে আছে শচীন টেন্ডুলকার, রিকি পন্টিং, জ্যাক ক্যালিস, রাহুল দ্রাবিড় ও কুমার সাঙ্গাকরা। তবে এই টেস্টে দুই ইনিংস মিলে ১৪৭ রান করতে পারলেই সাঙ্গাকারাকে টপকে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় পাঁচ নম্বরে উঠে যাবেন শেষ। শেষ বেলায় কি পারবেন সেটা? জানতে হয়ে অপেক্ষা করতে হবে আর পাঁচটি দিন।

তবে টেস্টের তুলনায় কুকের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি পরিসংখ্যান তেমনটা সমৃদ্ধ নয়। যে কারণেই হয়তো ৯২ ওয়ানডে ও ৪টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলেছেন তিনি।

আরো পড়ুন : এশিয়া কাপ নিয়ে যা বললেন মাশরাফি

আসন্ন এশিয়া কাপ ক্রিকেটের শুরুটা জয় দিয়ে করতে চান বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আজ মিরপুরে এশিয়া কাপ নিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এমন কথা বলেন মাশরাফি।

তিনি বলেন, ‘প্রথম ম্যাচটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এশিয়া কাপে কেমন করব, সেটা নির্ভর করবে শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচের পারফরম্যান্সের উপর। আমরা যদি ম্যাচটা জিততে পারি, তাহলে আমরা শুরুতেই আত্মবিশ্বাস পেয়ে যাব। আমাদের সামর্থ্য আছে ভালো খেলার। আমাদের জন্য প্রথম ম্যাচটা গুরুত্বপূর্ণ। দলে ভালো মানের ক্রিকেটার আছে, যারা ম্যাচ উইনার। যদি প্রথম ম্যাচটা জিততে পারি আমরা তবে আমাদের ভালো করার সুযোগ থাকবে।’


আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে এশিয়ার কাপের ১৪তম আসর। উদ্বোধনী দিনই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা। লংকানদের বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু করতে চান বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি। শুরুটা দুর্দান্ত হলে টুর্নামেন্টে আত্মবিশ্বাসী হয়ে পথ চলতে পারবে বাংলাদেশ বলে মনে করেন ম্যাশ।
নিজেদের প্রথম ম্যাচটিই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচটি গুরুত্বপূর্র্ণ। ভারত অনেক শক্তিশালী দল, পাকিস্তানও ভাল দল। তবে আমি মনে করি এই দু’দলকে হারানোর সামর্থ্য আমাদের আছে। আমরা এই দুই দলের চেয়ে খুব বেশি পিছিয়ে নেই। এ জন্য টুর্নামেন্টের শুরুটা ভালোভাবে করতে হবে আমাদের।’

২০১২ ও ২০১৬ সালের আসরে ফাইনালে উঠেছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু শিরোপার স্বাদ নিতে পারেনি তারা। তাই আসন্ন আসরে আরও ভালো কিছু করার ব্যাপারে আশাবাদী বাংলাদেশ। যা বলেছেন দলের অন্যরাও। কিন্তু এখনই ফাইনাল বা শিরোপা নিয়ে ভাবতে রাজি নন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘আগে দু’বার ফাইনাল খেলেছি আমরা। এটি কোন প্রভাব ফেলবে না। কারণ এটি নতুন টুর্নামেন্ট, নতুন জায়গা। এখানে সব কিছুই নতুন করে শুরু করতে হবে। আমার মূল ভাবনা, প্রথম ম্যাচ নিয়ে। আমরা শুরুটা কিভাবে করবো, এটি এখন আসল। আমাদের মূল মিশন শুরু প্রথম ম্যাচ দিয়েই। এই ম্যাচটিই আমাদের গতিপথ ঠিক করে দিবে।’

আঙ্গুলের ইনজুরির কারনে পুরোপুরি ফিট নন বাংলাদেশের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তারপরও তাকে দলে রেখেছে বাংলাদেশ। সাকিবের দলে থাকাটাকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিবের পারফরম্যান্স ছিল দারুণ। দলের জয়ে তার অনেক অবদান ছিল। যদি ঐ পারফরম্যান্স এশিয়া কাপে থাকে, তাহলে খুবই ভালো। সাকিবের খেলার সিদ্ধান্ত, সাকিবের নিজের। সাকিব থাকলে পুরো দলই অনেক উজ্জীবিত হয়ে ওঠে।’


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme