২১ নভেম্বর ২০১৮

সাকিবের এশিয়া কাপ খেলা নিয়ে সংশয়

সাকিব আল হাসান। ছবি - সংগৃহীত

আর কয়েক দিন পরেই সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপ। এই ট্রুনামেন্টে বাংলাদেশের তারকা খেলোয়াড় সাকিব আল হাসানের অংশগ্রহণ নিয়ে নতুন করে সংশয় সৃষ্টি হয়েছে। দিন দুয়েক আগে সাকিবের একটি ইংরেজি দৈনিকে দেয়া সাক্ষাতকার নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।ঐ সাক্ষাতকারে সাকিব বলেন তিনি মাত্র ২০-৩০ ভাগ ফিট। ফিটনেস নিয়ে করা এমন মন্তব্যে বিসিবি ‘বিব্রত’ বলে জানিয়েছেন বিসিবির মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস।

বোর্ডকে না জানিয়ে নিজের ফিটনেস নিয়ে মিডিয়াতে মন্তব্য করায় বিব্রত বোর্ড। জালাল ইউনুস বলেন, সাকিব তার ফিটনেসের ব্যাপারে আমাদেরকে অবগত করেনি। সে যেকোন সময় তা আমাদের জানাতে পারতো। সে খেলার জন্য ২০ থেকে ৩০ ভাগ ফিট এটা আমাদেরকে আগে জানালে ভালো হতো। অথবা বলতে পারত যে সে খেলতে পারবে না।

বাংলাদেশের কোচ স্টিভ রোডস মনে করেন, পুরোপুরি না হলেও ৬০-৭০ ভাগ সুস্থ সাকিব আল হাসান দলের জন্য প্রধান সম্পদ ও শক্তি। আসন্ন এশিয়া কাপ ক্রিকেটের আগে আজ মিরপুরে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এমন কথা বলেন রোডস। সাকিবের দলে থাকাটা অনেক বড় কিছু বলে মন্তব্যও করেন তিনি। যেমনটা করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি বলেন, ‘সাকিব থাকায় পুরো দলই অনেক উজ্জীবিত।’

আঙ্গুলের ইনজুরির জন্য এশিয়া কাপে সাকিবের থাকা, না থাকা নিয়ে আলোচনা ছিলো ব্যাপক। শেষ পর্যন্ত তাকে দলে রাখে বাংলাদেশ। বোর্ড প্রধান, দলের ফিজিও, চিকিৎসক ও নির্বাচকরা আলোচনার পর সাকিবের থাকা নিশ্চিত করেন।

সাকিবের থাকাটাই দলের জন্য চালিকা শক্তি বলেন মনে করেন কোচ রোডস, ‘আমি বিশ্বাস করি সাকিব পুরো শতভাগ ফিট নয়। এও সত্যি যে ৬০-৭০ ভাগ সুস্থ সে। সে যতটুকুই সুস্থ হোক না কেন, দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় সে। সাকিব দলের প্রধান সম্পদ ও শক্তি। দলের জন্য সে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একজন সদস্য।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পর পবিত্র হজ পালন করে পরবর্তীতে পরিবারের সাথে দেখা করতে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান সাকিব। তাই এশিয়ার কাপের জন্য বাংলাদেশের অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দিতে পারেননি সাকিব। অনুশীলনে সাকিবের না থাকাটা দলের উপর কোন নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে কি-না, এমন প্রশ্নের জবাবে রোডস বলেন, ‘সাকিব অনুশীলন করেনি। এটি কোন নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না। ড্রেসিং রুমেও এ ব্যাপারে নেতিবাচক কোন আলোচনা নেই। পারফরমার সাকিব দলের সবার কাছে অনেক প্রিয়।’

এশিয়া কাপ নিয়ে যা বললেন মাশরাফি

আসন্ন এশিয়া কাপ ক্রিকেটের শুরুটা জয় দিয়ে করতে চান বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আজ মিরপুরে এশিয়া কাপ নিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এমন কথা বলেন মাশরাফি।

তিনি বলেন, ‘প্রথম ম্যাচটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এশিয়া কাপে কেমন করব, সেটা নির্ভর করবে শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচের পারফরম্যান্সের উপর। আমরা যদি ম্যাচটা জিততে পারি, তাহলে আমরা শুরুতেই আত্মবিশ্বাস পেয়ে যাব। আমাদের সামর্থ্য আছে ভালো খেলার। আমাদের জন্য প্রথম ম্যাচটা গুরুত্বপূর্ণ। দলে ভালো মানের ক্রিকেটার আছে, যারা ম্যাচ উইনার। যদি প্রথম ম্যাচটা জিততে পারি আমরা তবে আমাদের ভালো করার সুযোগ থাকবে।’


আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে এশিয়ার কাপের ১৪তম আসর। উদ্বোধনী দিনই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা। লংকানদের বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু করতে চান বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি। শুরুটা দুর্দান্ত হলে টুর্নামেন্টে আত্মবিশ্বাসী হয়ে পথ চলতে পারবে বাংলাদেশ বলে মনে করেন ম্যাশ।
নিজেদের প্রথম ম্যাচটিই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচটি গুরুত্বপূর্র্ণ। ভারত অনেক শক্তিশালী দল, পাকিস্তানও ভাল দল। তবে আমি মনে করি এই দু’দলকে হারানোর সামর্থ্য আমাদের আছে। আমরা এই দুই দলের চেয়ে খুব বেশি পিছিয়ে নেই। এ জন্য টুর্নামেন্টের শুরুটা ভালোভাবে করতে হবে আমাদের।’

২০১২ ও ২০১৬ সালের আসরে ফাইনালে উঠেছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু শিরোপার স্বাদ নিতে পারেনি তারা। তাই আসন্ন আসরে আরও ভালো কিছু করার ব্যাপারে আশাবাদী বাংলাদেশ। যা বলেছেন দলের অন্যরাও। কিন্তু এখনই ফাইনাল বা শিরোপা নিয়ে ভাবতে রাজি নন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘আগে দু’বার ফাইনাল খেলেছি আমরা। এটি কোন প্রভাব ফেলবে না। কারণ এটি নতুন টুর্নামেন্ট, নতুন জায়গা। এখানে সব কিছুই নতুন করে শুরু করতে হবে। আমার মূল ভাবনা, প্রথম ম্যাচ নিয়ে। আমরা শুরুটা কিভাবে করবো, এটি এখন আসল। আমাদের মূল মিশন শুরু প্রথম ম্যাচ দিয়েই। এই ম্যাচটিই আমাদের গতিপথ ঠিক করে দিবে।’

আঙ্গুলের ইনজুরির কারনে পুরোপুরি ফিট নন বাংলাদেশের সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তারপরও তাকে দলে রেখেছে বাংলাদেশ। সাকিবের দলে থাকাটাকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিবের পারফরম্যান্স ছিল দারুণ। দলের জয়ে তার অনেক অবদান ছিল। যদি ঐ পারফরম্যান্স এশিয়া কাপে থাকে, তাহলে খুবই ভালো। সাকিবের খেলার সিদ্ধান্ত, সাকিবের নিজের। সাকিব থাকলে পুরো দলই অনেক উজ্জীবিত হয়ে ওঠে।’


আরো সংবাদ