১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এভাবেও কেউ আউট হতে পারে? (ভিডিও)

উদ্ভট আউট
উদ্ভট আউটের পর হতবাক ব্যাটসম্যান - সংগৃহীত

অদ্ভুদ, উদ্ভট, যাই বলুন না কেন- এভাবেও কেউ আউট হতে পারে?‌ না দেখলে বোধ হয় বিশ্বাস করা সম্ভব নয়। কখনও ব্যাট গিয়ে লাগল উইকেটে। ব্যস্ আর কী। হয়ে গেল হিট উইকেট। আবার পা কিংবা হেলমেট উইকেটে লেগেও ব্যাটসম্যানকে আউট হতে দেখা গেছে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া ব্যাটসম্যান জ্যাক ওয়েদারএল্ড যেভাবে আউট হলেন, তা দেখে নিজেও লজ্জা পাচ্ছেন।

অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেটে প্রস্তুতি ম্যাচ চলছিল এনপিএস এবং ভিক্টোরিয়ার মধ্যে। ব্যাট করছিলেন ওয়েদারএল্ড। বাঁহাতি পেসারের বলটি ফ্রন্টফুটে ড্রাইভও করেছিলেন ওয়েদারএল্ড। বলটি প্যাডে লাগে। এরপরই ঘটে উদ্ভট ঘটনাটি। ব্যাটটা ওয়েদারএল্ডের হাত ফসকে একেবারে গিয়ে পড়ে উইকেটের উপর। অগত্যা প্যাভিলিয়নের পথ ধরতে হয় তাকে।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ঘটনাটির ভিডিও প্রকাশ করেছে। সাথে লিখেছে, ‘‌এনপিএস এবং ভিক্টোরিয়ার মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচে জ্যাক ওয়েদারএল্ড উদ্ভটভাবে আউট হলেন।’‌

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই উদ্ভট আউট নিয়ে ভীষণ চর্চা চলছে।

কিছুদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে হিট উইকেট হয়েছিলেন। লং অনের দিকে বলটি খেলে রান নিতে গিয়ে ব্যাট গিয়ে লেগেছিল সোজা উইকেটে। অবশ্য চলতি বছরের শুরুতে দুরন্ত ক্যাচ ধরে শিরোনামে এসেছিলেন ওয়েদারএল্ড।

বিগ ব্যাশে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্স বনাম মেলবোর্ন রেনেগাডস ম্যাচে ওয়েদারএল্ডের দুরন্ত ক্যাচ দেখে ধারাভাষ্যকার ও সাবেক অসি ক্রিকেটার মাইকেল স্লেটার অবাক হয়ে বলেছিলেন, ‘‌এরকম দুর্দান্ত ক্যাচ আগে দেখিনি।’‌

দেখুন কীভাবে আউট হলেন ওয়েদারএল্ড-

 

আরো পড়ুন : সেই সিরাজ একাই তুলে নিয়েছেন ৮ উইকেট

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) সুবাদে নজরে এসেছিলেন মোহাম্মদ সিরাজ। এই তরুণ দল পাওয়ায় পুরো এলাকায় মিষ্টি বিলিয়ে ছিলেন তার বাবা, যিনি পেশায় রিকশা চালক। সেই সিরাজ এবার জাতীয় দলের হয়ে এক ইনিংসে একাই শিকার করেছেন আট উইকেট। রোববার প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সেরা বোলিং করে অস্ট্রেলিয়ার মতো শক্তিশালী দলকে নাস্তানাবুদ করেছেন।

শুধু আইপিএলেই নয়, ঘরোয়া ক্রিকেটেও পারফরমেন্স ভালো সিরাজের। জাতীয় দলের দরজায় কড়া নাড়া হায়দরাবাদি পেসার এই মুহূর্তে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ভারতীয় ‘এ’ দলের বোলিং লাইনআপকে।

আইপিএলের পর জাতীয় ‘এ’ দলের হয়ে লিস্ট-এ ও ফার্স্ট ক্লাস মিলিয়ে এই নিয়ে সাতটি ম্যাচে খেলেছেন এই তরুণ পেসার। রোববার চিন্নাস্বামীর দুর্ধর্ষ বোলিংসহ সাত ম্যাচে সিরাজ তুলে নিয়েছেন ৪১টি উইকেট। এই নিয়ে ইনিংসে পাঁচ উইকেট তিনবার।

ইন্ডিয়া ‘বি’ দলের বিরুদ্ধে একটি মাত্র ওয়ান ডে ম্যাচে উইকেটহীন থেকেছেন সিরাজ। বাকি সব ম্যাচের প্রতিটা ইনিংসে নূন্যতম চারটি উইকেট নিয়েছেন তিনি।

বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়া ‘এ’ দলের বিরুদ্ধে চার দিনের প্রথম বেসরকারি টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৫৯ রানের বিনিময়ে ৮ উইকেট নেন সিরাজ। টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া ২৪৩ রানে গুটিয়ে যায়।

ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নেমে উসমান খাজা দুর্দান্ত শতরান করেন। ১২৭ রান করে সিরাজের বলেই আউট হন তিনি। ২২৮ বলের ইনিংসে ২০টি বাউন্ডারি মারেন খাজা। এছাড়া ছয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মার্নাস ৬০ রান করে আউট হন। বাকিদের মধ্যে দুই অঙ্কের রান বলতে প্যাটারসনের ৩১ ও হল্যান্ডের ১২।

খাতা খুলতে পারেননি অধিনায়ক মিচেল মার্শ। শূন্য রানে আউট হয়েছেন পিটার হ্যান্ডসকম্ব, মিচেল নেসের, ক্রিস ট্রিমেন ও ব্রেন্ডন ডগেটও। ট্রেভিস হেড ও অ্যালেক্স ক্যারি ৪ রান করে যোগদান রেখেছেন দলের ইনিংসে।

সিরাজের আট উইকেট ছাড়া অস্ট্রেলিয়ার অপর দুই ব্যাটসম্যানকে ফেরত পাঠিয়েছেন কুলদীপ যাদব। পাল্টা ব্যাট করতে নেমে প্রথম দিনের শেষে ভারত প্রথম ইনিংসে বিনা উইকেটে ৪১ রান তুলেছে। মায়াঙ্ক আগরওয়াল ৩১ ও আর সামর্থ ১০ রানে অপরাজিত রয়েছেন।

 

আরো পড়ুন : আফ্রিদির 'বুম বুম' নামটি রেখেছিলেন এক ভারতীয়

পাকিস্তানে তুমুল জনপ্রিয় 'বুম বুম' খ্যাত শাহিদ আফ্রিদি। ভারতেও তার জনপ্রিয়তা অনেক।

সবাই জানেন, ব্যাট হাতে আফ্রিদি যে কোনো মুহূর্তেই ভয়ঙ্কর। ১৯৯৬ সালে কেনিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় আফ্রিদির। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ম্যাচে দ্রুততম শতরান করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন তিনি। ৩৭ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন আফ্রিদি। সেই সময়ে তার বয়স নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। আফ্রিদি বলেছিলেন, ‘‘উপমহাদেশের ক্রিকেটার বলেই আমার বয়স নিয়ে এমন প্রশ্ন তোলা হচ্ছে।’’

পরে তার নামই হয়ে গিয়েছিল 'বুম বুম' আফ্রিদি। কীভাবে পেলেন তিনি এমন নাম?

টুইটারে তার এক ভক্ত কৌতূহল নিয়ে প্রশ্ন করেছিলেন, ‘‘বুম বুম- এই টাইটেলটা আপনাকে কে দিয়েছিলেন?’’

জবাবে আফ্রিদি বলেছিলেন, ‘‘রবি শাস্ত্রী।’’

শাস্ত্রী এখন বিরাট কোহলির দলের হেড কোচ। তার আগে তিনি ধারাভাষ্যকার ছিলেন। ধারাভাষ্যকার হিসেবে শাস্ত্রী বেশ জনপ্রিয় ছিলেন। এ হেন শাস্ত্রীই মারকুটে ব্যাটিংয়ের জন্য আফ্রিদিকে 'বুম বুম' আখ্যা দিয়েছিলেন। সেই নামে আজও আফ্রিদি পরিচিত। কেন এমন নাম তার ব্যাখ্যা অবশ্য টুইটারে দেননি সাবেক পাক অধিনায়ক। সম্ভবত, তার ঝোড়ো ব্যাটিং-এর জন্যই এমন নামকরণ।

দেখুন:

আরো সংবাদ