২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সাব্বিরের নিষেধাজ্ঞা অনুমোদন দিল বোর্ড

সাব্বির রহমান : ছয় মাস নিষিদ্ধ - ছবি : সংগ্রহ

শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানকে দেয়া ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞার সুপারিশ অনুমোদন করেছে বাংলাদেশ
ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ফলে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হতে আর কোন বাধা নেই।

এক দর্শককে ফেসবুকে হুমকি দেয়ার ঘটনায় গত সপ্তাহে ওই নিষেধাজ্ঞার সুপারিশ করেছিলো বোর্ডের শৃঙ্খলা বিষয়ক কমিটি। তাই আগামী ছয় মাস আন্তর্জাতিক নিষিদ্ধ থাকছেন বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে আলোচিত এই ক্রিকেটার। বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন এই তথ্য।

গত জুলাই মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর চলাকালে ফেসবুকে এক দর্শককে ‘গালি ও হুমকি’ দেন সাব্বির রহমান। ওই ঘটনার পর এ বিষয়ে সাব্বিরের লেখার স্ক্রিনশট ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকে। সাব্বিরের ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ নতুন নয়।

গত বছর ডিসেম্বরে জাতীয় লিগের ম্যাচ চলাকালে এক কিশোর দর্শককে মারধর করেছিলেন তিনি। এই অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০
লাখ টাকা জরিমানা ও ছয় মাসের জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন তিনি।

এ ছাড়া ২০১৬ বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বে হোটেল কক্ষে নারী অতিথি নিয়ে যাওয়ার অপরাধে তাঁকে ১৩ লাখ টাকা জরিমানা করে বিপিএল
গভর্নিং কাউন্সিল। আর গত জুনে দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে সতীর্থ মেহেদী হাসান মিরাজকে মারধর করে সমালোচিত
হয়েছিলেন তিনি।

আরো পড়ুন : আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন কুক
ভারতের বিপক্ষে ওভাল টেস্টের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন অ্যালিস্টার কুক। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ছয়জন রান সংগ্রাহকের একজন হলেন কুক। মাত্র ৩৩ বছর বয়সী ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক গত এক বছরে নয়টি টেস্ট ম্যাচে গড়ে ১৮.৬২ রান করেছেন। এই পরিসংখ্যানই বলে দেয় তিনি কেন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে কুক বলেন, গত কয়েক মাস ধরে আমি চিন্তা ভাবনা করেই ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার পর অবসর নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বিদায় নেয়া কষ্টকর হলেও আমি হাসিমুখেই বিদায় নেয়ার চেষ্ঠা করব। আমি যা কখনো কল্পনাও করতে পারিনি তার চেয়ে অনেক বেশি অর্জন করেছি। দীর্ঘ সময় ইংল্যান্ডের বিখ্যাত সব খেলোয়াড়দের সাথে খেলেছি।


২০০৬ সালে ২১ বছর বয়সে নাগপুরে তার টেস্ট অভিষেক হয়েছিল। এরপর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ইংল্যান্ড ২০ বছর পর অ্যাশেজ জয়ের সময় প্লেয়ার অব দা সিরিজ হয়েছিলেন কুক। ২০১২ সালে ভারতের বিরুদ্ধে জয়ে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

টেস্ট-এ কুকের ১২ হাজার ২৫৪ রান ও ৩২ টি টেস্ট সেঞ্চুরি রয়েছে। যা ইংল্যান্ডের অন্য কোন খেলোয়াড়ের নেই। যাই হোক, কুক তার বর্ণাঢ্যময় ক্যারিয়ারে ইংল্যান্ড ক্রিকেটকে যা দিয়েছেন তা ইতিহাস হয়ে থাকবে।


আরো সংবাদ