২১ অক্টোবর ২০১৮

আফ্রিদির সহযোগিতায় আবার মাঠে ইমরান নাজির

ইমরান নাজির - ফাইল ছবি

অভিষেকের পরই আলোড়ন তুলেছিলেন ক্রিকেট বিশ্বে। আরেক জন হার্ডহিটার ব্যাটসম্যানের সম্ভাবনা দেখতে পেয়েছিলো সবাই তার মধ্যে। কিন্তু দুর্ভাগ্য ইমরান নাজিরের, ইনজুরে তাকে স্থায়ী হতে দেয়নি পাকিস্তান দলে। তবে ইমরান নাজিরের ভক্তদের জন্য সুসংবাদ হলো, দীর্ঘ সাড়ে চার বছর বিরতির পর আবারও পেশাদার ক্রিকেটে ফেরার কথা জানালেন সাবেক এই পাকিস্তানি ওপেনার।

গত সাড়ে চার বছর বেশ জটিল এক রোগে ভুগেছেন ৩৬ বছর বয়সী নাজির। মাংসপেশির হাড়ের সঙ্গে যুক্ত থাকা তন্তুর (টেন্ডন) প্রদাহে ভুগেছেন নাজির। রোগটা ইংরেজি নাম ‘টেনডিনাইটিজ’। এ রোগ কাটিয়ে নিজেকে এখন পেশাদার ক্রিকেট খেলার মতোই ফিট বলে ঘোষণা করলেন নাজির।

লাহোরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি এখন ফিট। দীর্ঘদিন পর আবারও ক্রিকেট খেলতে পারব। ভক্তরা প্রার্থনা করেছেন বলেই আজ এখানে দাঁড়িয়ে কথা বলতে পারছি। অসুস্থতা কাটিয়ে ওঠার জন্য আমি পিসিবি ও শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের কাছে কৃতজ্ঞ।’

অনেক দিন ধরেই দেশে-বিদেশে বিভিন্ন মানবিক সহায়তা কার্যক্রম চালাচ্ছে আফ্রিদির দাতব্য প্রতিষ্ঠান শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশন। তবে ইমরান নাজিরকে প্রতিষ্ঠাটি কিভাবে সহাযোগিতা করেছে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলেননি ইমরান।
পাকিস্তানরে হয়ে টেস্ট ও ওয়ানডেতে ১৯৯৯ সালে অভিষেক ঘটে ইমরান নাজিরের। তবে খুব বেশি খেলতে পারেননি তিনি। সব মিলে ক্যারিয়ারে খেলেছেন মাত্র ৮ টেস্ট এবং ৭৯ ওয়ানডে।

৩৬ বছর বয়সে আবার পেশাদার ক্রিকেটে ফেরার কথা জানিয়ে ইমরান বলেন, তিনি আশাবাদী ভালো করার বিষয়ে।

আরো পড়ুন : যে কারণে সরে গেলেন আফ্রিদি
ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) ষষ্ঠ আসর থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। হাঁটুর ইনজুরির কারণে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পাকিস্তান সুপার লিগের গেল আসরে হাঁটুতে চোট পান তিনি। সেই চোটের কারনেই আসন্ন সিপিএলে খেলতে পারবেন না আফ্রিদি। সুস্থ হতে আফ্রিদিও পুনর্বাসন দরকার।

সিপিএল থেকে নিজেকে প্রত্যাহারের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে নিশ্চিত করেছেন জ্যামাইকা তালাওয়াশের খেলোয়াড় আফ্রিদি। তিনি বলেন, ‘এ বছর সিপিএলে খেলতে পারবো না আমি। আমার হাটুঁর ইনজুরির কারণে পুনর্বাসন দরকার। আমি বাড়িতে থেকে নিজ দলকে উৎসাহ করবো।’আফ্রিদির পরিবর্তে পাকিস্তানের আরেক অলরাউন্ডার ইমাদ ওয়াসিমকে দলে নিয়েছে জ্যামাইকা তালাওয়াস।

পাকিস্তান সুপার লিগে করাচি কিংসের হয়ে খেলার সময় ইনজুরিতে পড়েছিলেন আফ্রিদি। এরাপর কানাডিয়ান লিগ গ্লোবাল টি-২০ এবং লর্ডসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিশ্ব একাদশের টি-২০ ম্যাচে খেলেছিলেন তিনি। চ্যারিটি টি-২০ ম্যাচে বিশ্ব একাদশের অধিনায়ক ছিলেন আফ্রিদি। গত রাত থেকে মাঠে গড়িয়ে সিপিএলের ষষ্ঠ আসর।

আরো পড়ুন :
মুমিনুলের বিধ্বংসী ব্যাটিং নৈপুণ্যে জিতল বাংলাদেশ ‘এ’ দল
অধিনায়ক মুমিনুল হকের বিধ্বংসী ব্যাটিং নৈপুণ্যে আয়ারল্যান্ড সফরের চতুর্থ ম্যাচে জয়ের স্বাদ পেল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। গত রাতে সফরের চতুর্থ ওয়ানডে ম্যাচে মোমিনুলের ১৩৩ বলে ১৮২ রানের কল্যাণে বাংলাদেশ ৮৫ রানে হারায় আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলকে। ফলে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ ‘এ’ দল।

ডাবলিনের দ্য হিলস ক্রিকেট ক্লাব গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টস হেরে প্রথম ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুমিনুল। ব্যাট হাতে নেমেই নিজের দক্ষতা দেখান মোমিনুল। শেষ পর্যন্ত ২৭টি চার ও ৬টি ছক্কায় ১৮২ রান করেন তিনি। বাংলাদেশের ইনিংসের ৫ ওভার বাকি থাকতে আউট হন তিনি। উইকেটে থাকলে ডাবল-সেঞ্চুরিও পেয়ে যেতে পারতেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। তারপরও দেশের বাইরে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের কোন খেলোয়াড়ের এটিই সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস।

মুমিনুলের সাথে মোহাম্মদ মিথুন ৫১ বলে ৮৬ ও ওপেনার জাকির হোসেন ৯৩ বলে ৭৯ রানের ইনিংস খেলেন। ফলে ৫০ ওভারে ৪ উইকেটে ৩৮৬ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।
জবাবে ২৩ বল বাকি থাকতেই ৩০১ রানে গুটিয়ে যায় আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দল। দলের পক্ষে অ্যান্ড্রু বালবির্নি ১০৬, সিমি ৫৩ ও জেমস ৪৩ রান করেন।

ফজলে মাহমুদ ৪৭ রানে ও খালেদ ৭৩ রানে ৩টি করে উইকেট নেন। এছাড়া সাইফউদ্দিন-শরিফুল ২টি করে উইকেট নেন।
আগামীকাল ক্লোনটার্ফে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডে।


আরো সংবাদ