২০ আগস্ট ২০১৮

হারানোর কিছু ছিল না : সালমা

হারানোর কিছু ছিল না : সালমা - ছবি : সংগৃহীত

এশিয়া কাপ একরকম নিজেদের সম্পত্তিই বানিয়ে ফেলেছিল ভারত। ২০০৪ সাল থেকে ছয়টি আসরের সবকটিতে চ্যাম্পিয়ন হয় দলটি। ২০০৪, ২০০৫, ২০০৬ ২০০৮ সালে ওয়ানডে ফরম্যাটের আসরে চ্যাম্পিয়ন ভারত। এরপর ২০১২ ও ২০১৬ সালে টি-২০ ফরম্যাটেও চ্যাম্পিয়ন তারা। মালয়েশিয়ায় আয়োজিত সপ্তম এশিয়া কাপেও ফেবারিট ছিল ভারত। কিন্তু সেই দলের সাম্রাজ্যের পতন হলো বাংলাদেশের হাতে। লিগ পর্বেও ভারতকে (৭ উইকেটে) হারানোয় ফাইনালে মেয়েদের জয়ের প্রেরণাটা একটু বেশিই ছিল।

মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে নতুন সূর্যের উদয় হলো রোববার। টি-২০ ফরম্যাটের এশিয়া কাপে ফাইনালে খেলার স্বপ্ন নিয়ে দেশ ছেড়েছিল বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দল। সেখানে ট্রফি নিয়ে দেশে ফেরার পর্ব এখন সালমা বাহিনীর। তাদের হাত ধরেই রচিত হলো শিরোপা জয়ের ইতিহাস। প্রথম শিরোপা জয়ী অধিনায়ক হিসেবে ইতিহাসের পাতায় উঠে যাওয়া সালমা খাতুন বলেন, ‘প্রথমবারের মতো আমরা এশিয়া কাপ জিতেছি। আনন্দের কথাটি বলে বোঝাতে পারব না... এটা কতো বড় পাওয়া। আত্মবিশ্বাস ছিল। ভারতের বিপক্ষে লিগ ম্যাচটা আমরা জিতছিলাম। ফাইনালে টার্গেট ছিল ভালো কিছু করব। আমাদের হারানোর কিছু ছিল না কিন্তু ওদের হারানোর অনেক কিছু ছিল। আমাদের যা পাওয়ার ছিল সেটি পেয়েছি।’

ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বড় কোনো শিরোপার দেখা পাওয়া টাইগ্রেসদের এমন ঐতিহাসিক কীর্তিতে খুশি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি)। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন মেয়েদের শাসরুদ্ধকর জয়ের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘মেয়েদের ক্রিকেটে এটা গ্রেট অর্জন। সামনে মেয়েদের আরো ভালো খেলতে এই সাফল্য অনেক বেশি অনুপ্রাণিত করবে। মেয়েদের ক্রিকেট নিয়ে আমরা অনেক দিন ধরেই কাজ করছি। আসলে সেভাবে রেজাল্ট পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশ্যই এটা বড় ধরনের প্রেরণা হয়ে থাকবে। আগামীকাল আমাদের বোর্ড মিটিং আছে। ওখানে বিষয়টা নিয়ে আমরা আলোচনা করবো।’

বাসস
ক্রিকেট দলকে রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ আজ মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে এশিয়া কাপ টি-২০ ক্রিকেটের ফাইনালে ভারতকে তিন উইকেটে হারিয়ে ঐতিহাসিক বিজয় অর্জন করায় বাংলাদেশ প্রমিলা ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
টি-২০ এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ ভারতকে তিন উইকেটে হারিয়ে এই স্মরণীয় জয় ছিনিয়ে এনেছে। ভারত প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১২ রান করে। জবাবে বাংলাদেশ ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১১৩ রান করে জয় তুলে নেয়।

এক অভিনন্দন বার্তায়, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের সব খেলোয়াড়, কোচ, কর্মকর্তাদের পাশাপাশি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) টি-২০ এশিয়া কাপ দলের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের অভিনন্দন জানান।
রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘মহিলা ক্রিকেটাররা বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশের ভাবমূর্তিকে উজ্জ্বল করেছে। আমি তাদের টিম স্পিরিট এবং তাদের অসাধারণ সাফল্যে সত্যিই গর্বিত।’
রাষ্ট্রপতি আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশের এই ক্রিকেট দলটি আগামীতেও তাদের এই জয়ের ধারা অব্যাহত রাখবে।

প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টি২০ এশিয়া কাপে বাংলাদেশ বিজয়ী হওয়ায় জাতীয় প্রমিলা ক্রিকেট দলকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন।
আজ মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের কিনারা একাডেমি ওভালে অনুষ্ঠিত টি২০ এশিয়া কাপ ফাইনালে প্রতিপক্ষ ভারতকে তিন উইকেটে হারায় বাংলাদেশ।

আজ এক বার্তায় জি-৭ সম্মেলনে যোগ দিতে কানাডায় অবস্থানরত শেখ হাসিনা টি২০ এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ বিজয়ী হওয়ায় জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের খেলোয়ার, কোচ এবং সকল কর্মকর্তার পাশাপাশি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানান।

তিনি বলেন, সমগ্র জাতি বাংলাদেশ দলের টিম স্পিরিট ও অসাধারণ ক্রীড়া নৈপূণ্য দেখে গর্বিত।
শেখ হাসিনা বলেন, খেলাধূলায় বর্তমান সরকারের যথাযথ পৃষ্ঠপোষকতা ও সমর্থন এই ঐতিহাসিক সাফল্য এনে দিয়েছে।
এ সময় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ প্রমিলা ক্রিকেট দলের বিজয়ের এই ধারা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

 


আরো সংবাদ