২৬ মে ২০১৯

রুমানার জোড়া আঘাতে কোনঠাসা ভারত

বাংলাদেশ নারী দল
বাংলাদেশ নারী দল - সংগৃহীত

ভারতীয় শিবিরে বাংলাদেশের বাঘিনীদের তাণ্ডব চলছেই। সর্বশেষ সাজঘরে ফিরেছেন ভেদা কৃষ্ণমূর্তি, তানিয়া ভাটিয়া ও শিখা পান্ডে। একের পর এক উইকেট হারিয়ে এখন কোনঠাসা ভারত। ৭ উইকেট হারিয়ে তাদের সংগ্রহ ৭৮ রান।

১২.৩ ওভারে সালমার বলে সাজঘরে ফিরেন ভেদা কৃষ্ণমূর্তি। ১১ রান করে মাঠ ছাড়েন তিনি।

এর ওভার পরেই জোড়া আঘাত হানেন রুমানা আহমেদ। ১৪ ওভারের দ্বিতীয় বলে তানিয়াকে ৩ রানে ফেরান রুমানা। শেষ বলে তার শিকার হন শিখা।

বাংলাদেশ স্কোয়াড : শামিমা সুলতানা (উইকেটরক্ষক), আয়েশা রহমান, ফারজানা হক, সানজিদা ইসলাম, ফাহিমা খাতুন, জাহানারা আলম, খাদিজাতুল কুবরা, নাহিদা আক্তার, সালমা খাতুন (অধিনায়ক), নিগার সুলতানা ও রুমানা আহমেদ।

 

আরো পড়ুন : ভারতীয় শিবিরে বাঘিনীদের তাণ্ডব চলছে

ভারতীয় শিবিরে একের পর এক আঘাত হানছে বাংলাদেশের বাঘিনীরা। পর পর দুই ওভারে দুটি উইকেট শিকার করেছে সালমাবাহিনী। আর ফিল্ডিংয়ে বাধাগ্রস্তের দায়ে সাজঘরে ফিরেছেন আনুজা পাটেল।

৬.৪ ওভারে জাহানারার শিকার হন দিপ্তী শর্মা। ৪ রানে সাজঘরে ফিরেন এই ভারতীয় ব্যাটসম্যান।

পরের ওভারেই অভিজ্ঞ মিতালি রাজকে সাজঘরে ফেরান জান্নাতুল কুবরা।

এরপরের ওভারে ফিল্ডিংয়ে বাধাগ্রস্ত করার জন্য সাজঘরে ফিরেন আনুজা পাটেল।

পর পর তিন উইকেট হারিয়ে এখন চাপে ভারত। এর আগে রান আউট হয়ে ফিরে যান ওপেনার স্মৃতি মন্দান।

৪ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১০ ওভারে ৫১ রান।

 

আরো পড়ুন : তাড়াহুড়া করতে গিয়ে বিপদে ভারত

এশিয়াকাপের ফাইনালে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়েছে ভারত। তাড়াহুড়া করতে গিয়ে রান আউট হয়েছেন ওপেনার স্মৃতি মন্দান। নিজের বলে নিজেই ফিল্ডিং করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সালমা খাতুন। ৭ রানে সাজঘরে ফিরেছেন মন্দনা।

এখন ক্রিজে এসেছেন দিপ্তী শর্মা। জুটি বেধেছেন ওপেনার মিতালি রাজের সাথে।

ভারতের সংগ্রহ ৫ ওভারে ১ উইকে হারিয়ে ১৪ রান।

 

আরো পড়ুন : ফাইনালের স্বপ্ন পূরণ লক্ষ্য এবার শিরোপা

দাবি উঠেছে মহিলা ক্রিকেট দল কী পায়। পুরুষ ক্রিকেট দলের তুলনায় চার ভাগের একভাগও না। অথচ দুর্যোগ মুহূর্তে এই মহিলারাই ক্রীড়াপ্রেমীদের আনন্দে ভাসিয়েছেন। হোক সেটি ফুটবল কিংবা ক্রিকেট। পুরুষ ফুটবল দল ভুটানের কাছে লজ্জাজনক হারের পর মেয়েরাই সাফে প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠে ক্ষতটা কিছুটা পুষিয়ে দিয়েছে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সাকিব বাহিনীর হোয়াইট ওয়াশের পর সালমা বাহিনী স্বপ্ন দেখাচ্ছে এশিয়া কাপে শিরোপার। কারণ গতকালই স্বাগতিক মালয়েশিয়াকে ৭০ রানে হারিয়ে উঠে গেছে ফাইনালে। প্রতিপক্ষ ছয়বারের শিরোপাজয়ী ভারত। তাতে কী! এই ভারতকেই হারালো কয়েক দিন আগে।

পাকিস্তানকে হারানোর মধ্য দিয়ে ২০১৪ সালের পর টি-২০ তে প্রথম জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। সেখানেই থেমে থাকেনি বাংলাদেশ। তুলে নিয়েছেন টানা চার জয়। এবার শিরোপার লড়াই। ভারতকে এই টুর্নামেন্টেই একবার হারিয়েছে বলে শিরোপা স্বপ্ন দেখতেই পারে বাংলাদেশ। ২০০৪ সাল থেকে হয়ে আসা মহিলাদের এশিয়া কাপে ছয়বারের প্রতিবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ভারত। তাদের রাজত্বে আজ হানা দেয়ার পালা। সালমার দল আরো একবার ভারতকে বধ করে দেশকে ঈদ উপহার দিতে পারে কি না তাই দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেটপ্রেমীরা। বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

মালয়েশিয়ার উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগে ফাইনালের স্বপ্নের কথাই বলেছিলেন বাংলাদেশ মহিলা টি-২০ দলের অধিনায়ক সালমা খাতুন। কিন্তু সেই স্বপ্ন কতটা বাস্তবসম্মত ছিল তা নিয়ে প্রশ্ন ছিল অনেকের। ঠিক আগের সিরিজেই দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে নাজেহাল হয়েছে দলটি। ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজ দুইটিতেই হোয়াইট ওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ। তবে টি-২০ তে কিছুটা লড়াই করতে পেরেছিল সালমারা। সেটিকেই প্রেরণা হিসেবে নিয়ে এশিয়া কাপের ফাইনালের স্বপ্নের কথা বলেছিলেন সালমা খাতুন। যেটি বাস্তব রূপ পেল গতকাল।

তবে সহজ ছিল না এশিয়া কাপে পথচলা। যেখানে টুর্নামেন্টে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার মতো দল রয়েছে সেখানে বাংলাদেশের স্বপ্নকে একটু অবাস্তবই মনে হয়েছে। সেই অবাস্তবকেই বাস্তবে রূপ দিয়েছেন সালমা খাতুন, রুমানা আহমেদরা। গড়েছেন ইতিহাস। পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার মতো দলকে বিদায় করে জায়গা করে নিয়েছে ফাইনালে। হুমকিতে ফেলে দিয়েছিল গেল ছয়বারেরই চ্যাম্পিয়ন ভারতকে। পাঁচ ম্যাচে সর্বাধিক চারটি করে জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ ও ভারত। ভারতের একমাত্র পরাজয়টি বাংলাদেশের বিপক্ষেই। আজ ভারতের বিপক্ষে শিরোপার লড়াই সালমাদের।

অথচ ছয় দলের লিগভিত্তিক প্রথম পর্বের শুরুটা ছিল বেদনা ও হতাশার। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মাত্র ৬৩ রানে অল আউট হয় সালমারা। ম্যাচ হারে ৬ উইকেটে। এমন হারের পর ভক্তদের ফাইনাল স্বপ্ন মিইয়ে যায়। কিন্তু সালমা বাহিনী নিজেদের ছাড়িয়ে গেলেন সব দিক থেকে। দ্বিতীয় ম্যাচেই তারা পাকিস্তানকে ৭ উইকেটে হারিয়ে জয়ে ফিরল। আগে ব্যাট করা পাকিস্তানকে ৯৫ রানে আটকে রেখে বাংলাদেশ ম্যাচ শেষ করল ১৩ বল হাতে রেখে। এরপর ভারতের মতো ফেবারিট ও শক্তিশালী দলকে হারিয়ে দেয় টাইগ্রেসরা। যে ভারতীয়রা এশিয়া কাপের সব আসরেই শিরোপা জয়ের রেকর্ড, হারেনি কখনো কোনো ম্যাচ, সেই ভারতকেই প্রথমবারের মতো পরাজয়ের স্বাদ দেন সালমারা। আগে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১৪১ রান করেছিল ভারত। জবাবে ২ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখে জয় বাংলাদেশের। আগে বা পরে ব্যাটিং মিলিয়ে এ দিনের ৩ উইকেটে করা ১৪২ রানই টি-২০ ইতিহাসে বাংলাদেশ মহিলা দলের সেরা। 
এরপর থাইল্যান্ডকে ৯ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করে থাইল্যান্ড ৮ উইকেটে ৬০ রানে গুটিয়ে যায়। জবাবে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ৫৩ বল বাকি থাকতে জয় বাংলাদেশের। আর গতকাল স্বাগতিক মালয়েশিয়াকে ৭০ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে যায় মহিলা ক্রিকেট দল। আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে ১৩০ রান করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে মালয়েশিয়ার মহিলা দল ৯ উইকেটে ৬০ রানের বেশি করতে পারেনি।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছে বাংলাদেশের শামিমা সুলতানা।


আরো সংবাদ

মধ্যপ্রাচ্যে যেকোনো যুদ্ধের বিরুদ্ধে ইমরান খানের হুঁশিয়ারি খালেদার মুক্তি আন্দোলন জোরালো করবে বিএনপি মীরবাগ সোসাইটির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত জাতীয় কবি হিসেবে নজরুলের সাংবিধানিক স্বীকৃতি দাবি ন্যাপের নজরুলের জীবন-দর্শন এখনো ছড়াতে পারিনি জাকাত আন্দোলনে রূপ নেবে যদি সবাই একটু একটু এগিয়ে আসি কবি নজরুলের সমাধিতে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা সোনারগাঁওয়ে ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট শাখা থেকে ৭ লক্ষাধিক টাকা চুরি জুডিশিয়াল সার্ভিসের ইফতারে প্রধান বিচারপতি ও আইনমন্ত্রী ধর্মীয় শিক্ষার অভাবে অপরাধ বাড়ছে : কামরুল ইসলাম এমপি ৩৩তম বিসিএস ট্যাক্সেশন ফোরাম : জাহিদুল সভাপতি সাজ্জাদুল সম্পাদক

সকল




Instagram Web Viewer
agario agario - agario
hd film izle pvc zemin kaplama hd film izle Instagram Web Viewer instagram takipçi satın al Bursa evden eve taşımacılık gebze evden eve nakliyat Canlı Radyo Dinle Yatırımlık arsa Tesettürspor Ankara evden eve nakliyat İstanbul ilaçlama İstanbul böcek ilaçlama paykasa