২৫ মার্চ ২০১৯
ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজকে বিমানের ধাক্কা

অপারেটর ও প্রকৌশলীকে শোকজ : তদন্ত কমিটি গঠন

-

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বোয়িং-৭৭৭ বেসরকারি এয়ারলাইন্স ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজকে ধাক্কা দেয়ার ঘটনায় একজন গ্রাউন্ড অপারেটর এবং ওই রাতে দায়িত্বরত প্রকৌশলীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি কেন এবং কাদের গাফেলতির কারণে ঘটনাটি ঘটেছিল সে রহস্য খুঁজতে বিমানের পক্ষ থেকে গঠন করা হয়েছে তদন্ত কমিটি।
এ দিকে বিমানের রিয়াদগামী ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে উড়ে যখন ভারতের আকাশে চলে গিয়েছিল তখন ঝুঁকি না নিয়ে এয়ার কন্ট্রোল টাওয়ারের মাধ্যমে বিমান কর্তৃপক্ষ উড়োজাহাজটি সেখান থেকে ঢাকায় ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করে। এতে প্রায় ৩০ টন জ্বালানি পুড়িয়ে ফেলতে হয়েছে বলে পাইলট লগ বইয়ে উল্লেখ করেছেন।
প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে (রোববার রাত) ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজ (ড্যাশ-৮) ট্যাক্সিওয়ের সামনে দাঁড় করানো অবস্থায় রিয়াদগামী বিমানের উড়োজাহাজ উড্ডয়নের প্রস্তুতি নেয়ার আগে পুশকার্ড সরাসোর সময় সজোরে ধাক্কা লাগে। এতে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজটির পাখা আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কেউ কেউ বলছেন পাখার অংশে থাকা রাডার কন্ট্রোলও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনা মতে, যখন এ ঘটনাটি ঘটে তখন বৃষ্টি হচ্ছিল। পাশাপাশি ট্যাক্সিওয়ের ওই জায়গাটি অন্ধকার ছিল। ঘটনার পরও রাত দেড়টায় নির্ধারিত সময়েই বিমানের রিয়াদগামী ফ্লাইটটি ৪১৯ জন যাত্রী নিয়ে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যায়। মুহূর্তে দুর্ঘটনার সংবাদ জানাজানি হলে ঘটনাস্থলে ছুটে যান দুই এয়ারলাইন্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে কন্ট্রোল টাওয়ারের মাধ্যমে ভারতের আকাশ থেকেই রিয়াদগামী বিমানের ফ্লাইটটি ঢাকায় ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করেন। সন্দেহ ছিল ধাক্কার ঘটনায় বিমানের এয়ারক্রাফটে কোনো সমস্যা হয়েছে কি না। কিন্তু না, রাতে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সিভিল অ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে ভোর সাড়ে ৫টায় আবার রিয়াদের উদ্দেশে এয়ারক্রাফট ঢাকা ত্যাগ করে। অপর দিকে ক্ষতিগ্রস্ত উড়োজাহাজ (ড্যাশ-৮) মেরামতের জন্য নেয়া হয় হ্যাংগারে। মেরামত শেষে পরদিন রাতে যশোরের উদ্দেশে ড্যাশ-৮ ঢাকা ছেড়ে যায় বলে জানান ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ডিজিএম (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম।
বিমানের প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ধাক্কায় ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজটির পাখার যে অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল সেটি বিমানের প্রকৌশলীরা মেরামত করে দিয়েছেন।
এ দিকে বিমানের রিয়াদগামী ফ্লাইট মাঝ পথ থেকে ঢাকায় ফিরিয়ে আনার ঘটনায় বোয়িং-৭৭৭ এর পাইলট লগ বইয়ে উল্লেখ করেছেন, উড়োজাহাজটিতে ৬১ টন জ্বালানি ছিল। ৩০ টন জ্বালানি পুড়িয়ে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজটি অবতরণ করাতে হয়েছে। তবে পুশকার্ড সরানোর সময় ধাক্কায় ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজটির ক্ষতি হলেও বিমানের উড়োজাহাজের কোনো ক্ষতি হয়নি।
বিমানের এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম মোসাদ্দিক আহমদের নির্দেশে ঘটনার একদিন পর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি পুশকার্ড অপারেটর রুবেল তালুকদার (গ্রাউন্ড সার্ভিস ইকুইপমেন্ট) এবং বিমানের প্রকৌশল বিভাগের হাসান সরকারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়। একই সাথে তাদের তদন্ত কমিটির সামনে হাজির হয়ে ঘটনা সম্পর্কে লিখিত বক্তব্য দেয়ার জন্য অপর এক চিঠিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
বিমানের মুখপাত্র ও জেনারেল ম্যানেজার (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ গতকাল শুক্রবার রাতে নয়া দিগন্তকে তদন্ত কমিটি গঠনের কথা নিশ্চিত করলেও কারা কমিটির সদস্য তা তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেননি।

 


আরো সংবাদ




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

Canlı Radyo Dinle hd film izle instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al