২১ মে ২০১৯

মশামুক্ত করা হবে ঢাকা উত্তর সিটি : আতিকুল

-

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ঢাকা উত্তর সিটি অবশ্যই মশামুক্ত করা হবে। এ ব্যাপারে মশককর্মীদের কোনো ধরনের দায়িত্বে অবহেলা, অনিয়ম, দুর্নীতি ও লোকদেখানো ফগিং সহ্য করা হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমি জেহাদ ঘোষণা করেছি। দায়িত্বে অবহেলার প্রমাণ পেলেই তার বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেয়া হবে।
গতকাল রাজধানীর মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে মশক নিয়ন্ত্রণ ও পরিচ্ছন্নতাকার্যক্রম সম্পর্কিত মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন : কাউন্সিলর মফিজুর রহমান, ডা: জিন্নাত আলী, দেওয়ান আব্দুল মান্নান, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হাই, সচিব রবীন্দ্র শ্রী বড়ুয়া, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাকির হাসান প্রমুখ।
আতিকুল ইসলাম বলেন, প্রথমে অনুরোধ করে বলতে চাই পরিচ্ছন্নতা ও মশক নিধন কর্মীরা নিজেদের দায়িত্বের জায়গা থেকে কাজ করবেন। আমি শ্রমিকদের দুঃখ বুঝি, তাদের সার্বিক সহযোগিতা করব কিন্তু দায়িত্ব মত কাজ করতে হবে। আমি যেকোনো মুহূর্তে যেকোনো জায়গায় হঠাৎ পরিদর্শনে যাবো। সে সময় যদি কেউ দায়িত্বে অবহেলা করেন তাদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
মেয়র আরো বলেন, মশক নিধন, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আমরা ক্র্যাশ প্রোগ্রাম পরিচালনা করব। মশক নিয়ন্ত্রণ করতে আমাদের যা কিছু আছে তা নিয়েই সর্বাত্মক চেষ্টা করব। কচুরিপানা পরিষ্কার করতে হবে। আসুন সবাই মিলে একটি সুন্দর ঢাকা গড়ে তুলি। মশক নিয়ন্ত্রণের সাথে সাথে ড্রেনগুলোরও সার্ভিসিং করব, কারণ বর্ষা চলে আসছে ড্রেনগুলোও পরিষ্কার করতে হবে। কাউন্সিলরসহ মশকনিধন সংশ্লিষ্টরা মিলে যেভাবেই হোক মশক নিয়ন্ত্রণ করতেই হবে। বিমানবন্দরের মশার জন্য বিদেশীরা অভিযোগ করে জানিয়ে তিনি বলেন, তাদের অভিযোগ শুনে লজ্জা লাগে। এ জন্য বিমানবন্দরে ঢুকেও আমাদের মশা নিধন করতে হবে।
কাউন্সিলর মফিজুর রহমান বলেন, আমাদের মশককর্মী কম, যন্ত্রপাতিও তুলনামূলকভাবে কম। আবার কর্মীরা নানা রোগব্যাধিতে ভোগেন। মশা নিয়ন্ত্রণের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও কাজে ফাঁকি দেন। কচুরিপানা ও ড্রেন ঠিকমত পরিষ্কার করা হয় না। এ কারণে মশার উৎপাদন বেড়ে যায়। তারপরও আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে মশা নিয়ন্ত্রণ করতেই হবে।
ডা: জিন্নাত আলী বলেন, আনিসুল হক একজন সফল মেয়র ছিলেন। কিন্তু মশা তাকে অনেক কাঁদিয়েছে। তিনি মশা নিয়ে সবসময় চিন্তিত ছিলেন। তিনি আরো বলেন, ওষুধ ছিটানোর জন্য যে ফগার মেশিন ব্যবহার করা হয় তাকে কামান বলে। এর শব্দেই মশা পালিয়ে যায়। তিনি কচুরিপানা নিয়মিত পরিষ্কার করার আহবান জানিয়ে বলেন, নিয়মিত কচুরিপানা পরিষ্কার করলে আর মশা থাকবে না। এ জন্য আলাদা কোনো বাজেট না করে সিটি করপোরেশনের নিয়মিত বাজেট থেকেই ব্যয় করার দাবি জানান তিনি।

 


আরো সংবাদ

agario agario - agario