১৮ মার্চ ২০১৯

চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড অবহেলাজনিত হত্যাকাণ্ড : বাম গণতান্ত্রিক জোট

-

অগ্নিকাণ্ডে রাজধানীর চকবাজারে মৃত্যু অনেক মানুষের ও আহতের ঘটনায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করে বলেছেন, বারবার দুর্ঘটনায় মানুষ মরে, সরকার প্রতিশ্রুতি দেয় তারপর শেষ। জনগণ ভুলে যায়, সরকারও দায় মুক্তি পায়। ফলে গতকালের অগ্নিকাণ্ড ও হতাহতের ঘটনা নিছক দুর্ঘটনা নয়, এটা একটা অবহেলাজনিত হত্যাকাণ্ড।
বাম পরিষদের পক্ষ থেকে পুরো এলাকা পরিদর্শন থেকে এ বিবৃতি দেয়া হয়। জোটের সমন্বয়ক বাসদ নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজের নেতৃত্বে বাম জোটের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল গতকাল বেলা ১টায় ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যান। সেখানে গিয়ে তারা স্থানীয় লোকজন এবং উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের সাথে কথা বলে দুর্ঘটনার কারণ, উদ্ধার অভিযানের অগ্রগতি, হতাহতের বিষয়ে খোঁজ খবর নেন। বাম জোটের পরিদর্শন টিমের সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সাইফুল হক, রুহিন হোসেন প্রিন্স, শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী, অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, বাচ্চু ভূঁইয়া, মমিনুল ইসলাম, কাফি রতন, আবদুর রাজ্জাক, আহসান হাবিব বুলবুল প্রমুখ নেতা।
নেতৃবৃন্দ অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদান, আহতদের সুচিকিৎসা ও পুনর্বাসন এবং তদন্তপূর্বক অগ্নিকাণ্ডের জন্য দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। একই সাথে পুরনো ঢাকার ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা থেকে কেমিক্যাল ও দাহ্য পদার্থের গোডাউন লোকজন সরিয়ে নেয়ার দাবি জানান।
এ দিকে জোটের পক্ষ থেকে পরিদর্শন রিপোর্টে বলা হয়, নেতৃবৃন্দ স্থানীয় এবং উদ্ধার কর্মীদের সাথে কথা বলে জানতে পারেন চকবাজার তিন রাস্তার মসজিদের কাছে একটি গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে। সেখান থেকে পাশের বিল্ডিংরে বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার বিস্ফোরিত হয়। সেখান থেকে পরে বিপরীত দিকের বিল্ডিংয়ে বডি স্প্রের কেমিক্যাল রাখা গোডাউনে আগুন ছড়িয়ে পড়লে সেখান থেকে পার্শ্ববর্তী মদিনা হোটেলে রাখা পাঁচ-সাতটি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।
বাম জোটের নেতৃবৃন্দ পরিদর্শন শেষে এক বিবৃতিতে বলেন, ইতঃপূর্বে নিমতলীতে কেমিক্যাল গোডাউনে অগ্নিকাণ্ডে ১২০ জন নিহত হওয়ার পর পুরনো ঢাকার ঘনবসতি ও ঘিঞ্জি এলাকা থেকে দাহ্য পদার্থের ব্যবসা ও গোডাউন সরিয়ে নেয়ার কথা বলেছিল সরকার। কিন্তু আজ পর্যন্ত সে কাজটি সমাধা না হওয়ায় আজকে চকবাজারে এত বড় দুর্ঘটনা ঘটল। স্থানীয় জনসাধারণের অভিমত, এ এলাকা থেকে বডি স্প্রে, কেমিক্যালের মতো জীবন্ত বোমার গোডাউন সরানো না হলে এ ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা থেকেই যাবে।


আরো সংবাদ




iptv al Epoksi boya epoksi zemin kaplama Daftar Situs Agen Judi Bola Net Online Terpercaya Resmi

Hacklink

instagram takipçi satın al ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme

instagram takipçi satın al