২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

লাদাখে ইমরানের আমার এ মন

লাদাখে ইমরানের আমার এ মন - ছবি : সংগৃহীত

ঈদকে সামনে রেখে দেশের অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান গানচিল মিউজিকে ব্যানারে আসবে এই সময়ের জনপ্রিয় শিল্পী ইমরানের নতুন মিউজিক ভিডিও ‘আমার এ মন’। একক কণ্ঠে গাওয়া এ গানটির সুর-সঙ্গীতও করেছেন ইমরান নিজেই। কথা লিখেছেন ইমরানের গানের অন্যতম জুটি রবিউল ইসলাম জীবন। সবচেয়ে বড় চমক হচ্ছে গানটির ভিডিওর শুটিং হয়েছে ভারতের জম্মু ও কাশ্মির রাজ্যের অঞ্চল লাদাখে! যেখানে মূলত বলিউড ও টালিউডের সুপার-ডুপার হিট সব চলচ্চিত্রের শুটিং হয়। এই প্রথম বাংলাদেশের কোনো শিল্পীর গানের ভিডিও হলো সেখানে।
ভিডিওটিতে ইমরানের সাথে মডেল হয়েছেন তার জনপ্রিয় গান ‘বলতে বলতে চলতে চলতে’ এবং ‘শেষ সূচনা’র মডেল তানজিন তিশা। ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন এ সময়ের আলোচিত নির্মাতা তানিম রহমান অংশু। গত ১, ২ ও ৩ আগস্ট তিন দিন ধরে লাদাখের বিভিন্ন লোকেশনে ভিডিওটির শুটিং হয়। ইমরান বলেন, ‘জীবনে অনেক মিউজিক ভিডিওর কাজ করেছি তবে এই কাজটির অভিজ্ঞতা সবচেয়ে রোমাঞ্চকর! বলিউড এবং টলিউয়ের বিখ্যাত অভিনেতা-অভিনেত্রী সেখানে গিয়ে শুটিং করে থাকেন। সে জন্য অনুমতিও নিতে হয়। এত দিন চলচ্চিত্রে এসব লোকেশন দেখেছি। এবার নিজের ভিডিওর শুটিং করতে গিয়ে আরো মুগ্ধ হয়েছি। গানটি ভালোবাসর কথামালায় সাজানো। গানের কথা-সুর-গায়কীর সাথে লোকশনটাকে খুবই অসাধারণ লাগছিল। চার-পাঁচ ঘণ্টা গাড়িতে জার্নি করে একটা লোকেশন থেকে আরেকটা লোকেশনে গিয়ে শুটিং করেছি। এত উঁচু উঁচু জায়গায় আমাদের উঠতে হয়েছে যে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে খুব কষ্ট হচ্ছিল। ফলে সারাক্ষণ সাথে আলাদা অক্সিজেন রাখতে হয়েছে। দু-একবার অসুস্থ বোধ করছিলামও। ভিডির ফুটেজ দেখার পর মনে হচ্ছে সব পরিশ্রম স্বার্থক। এটা আমার জীবনের অন্যতম একটি অভিজ্ঞতা। গানচিল মিউজিক এবং অংশু ভাই উভয়ের সঙ্গে এটি আমার প্রথম মিউজিক ভিডিও। আশা করি, গানটি দর্শক-শ্রোতারা খুব ভালোভাবে পছন্দ করবেন।’

তানজিন তিশা বলেন, ‘কী বলব! মনে হচ্ছিল শুটিংয়ের পুরোটা সময় একটা স্বপ্নের মধ্যে ছিলাম। অসাধারণ একটি কাজ হয়েছে। শ্বাস-প্রশ্বাসের অসুবিধা, জার্নি সব ছাপিয়ে লোকেশনগুলোয় ডুবে আছি এখনো। ইমরান আর আমার আগের দু’টি ভিডিওর চেয়েও এটি শ্রোতাদের কাছে বেশি প্রশংসিত হবে বলে আশা করি।’ তানিম রহমান অংশু বলেন, ‘লাদাখের এই লোকেশনগুলো দেখতে শ্রোতারা মুগ্ধ হবেন। জার্নি করতে করতে ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছিলাম, তার পরও লোকেশন দেখে সব ভুলে থেকেছি! সব মিলিয়ে নির্মাতা হিসেবে একদম মনের মতো একটি কাজ করতে পেরেছি, এটাই আনন্দের বিষয়! ভিডিওটি দেখার পরই শ্রোতারা বুঝতে পারবেন এটা কোন ধরনের প্রডাকশন হয়েছে।’ গানচিলের উপদেষ্টা আসিফ ইকবাল বলেন, ‘সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে অনেক ওপরে এই লোকেশনগুলোর অবস্থান। লাদাখকে বলা হয় পৃথিবীর স্বর্গ। সঙ্গীতপ্রেমীদের ঈদে বাড়তি আনন্দ দিতেই আমরা গানটির ভিডিওর জন্য এই লোকেশনগুলো বেছে নিয়েছি। গানটির অডিও এবং ভিডিও দু’টি নিয়েই আমরা অনেক আত্মবিশ্বাসী।’ ঈদের ঠিক আগে গানচিল মিউজিকের ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিওটি প্রকাশ করা হবে। দেখা যাবে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলেও।


আরো সংবাদ