১৬ জুলাই ২০১৯

হাতি তাড়ানোর ফাঁদে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মায়ের মৃত্যু

হাতি তাড়ানোর ফাঁদে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে চার সন্তানের জননী এক মায়ের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (১৫ জুন) সকালে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার বৈলছড়ি ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের অভ্যারখীল রফি আহমদের বাড়ির পাশে এই ঘটনা ঘটে। নিহত ওই নারীর নাম দিলোয়ারা বেগম (৫১)। তিনি ওই বাড়ির সালেহ আহমদের স্ত্রী এবং ২ ছেলে ও ২ মেয়ের জননী। এই ঘটনায় পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

পুলিশ, স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৈলছড়ি ইউনিয়নের পূর্ব বৈলছড়ি অভ্যারখীল গ্রামটি পাহাড়ি অঞ্চলে। ওখানকার অধিকাংশ মানুষ কৃষিজীবী। বন্য হাতির তাণ্ডবে এলাকার কৃষকদের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। মাঝে মাঝে কৃষকদের চরম কষ্টে ফলানো ফসল স্থানীয় দুস্কৃতকারীরাও চুরি করে নিয়ে যায়। বন্য হাতির তাণ্ডব ও চোরের উপদ্রব ঠেকাতে স্থানীয় ফরিদ আহমদ ও গোলামুর রহমান তাদের বসতবাড়ির বৈদ্যুতিক মিটার থেকে ২০০ গজ থেকে ৮০০ গজ পর্যন্ত ফসলি জমিতে হাতি তাড়ানোর জন্য বৈদ্যুতিক ফাঁদ পাততে বেশ কয়েকজন কৃষকের জমিতে বৈদ্যুতিক সংযোগ দেন। দীর্ঘদিন ধরে এই দুজন ব্যক্তি ওইসব কৃষকদের কাছ থেকে মাসিক বৈদ্যুতিক বিলও আদায় করেন।

এভাবে বিস্তীর্ণ এলাকার ফসলি জমিতে হাতি তাড়ানোর ফাঁদের নামে অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। ওই সব বৈদ্যুতিক সংযোগযুক্ত ফসলি জমির পাশেই রয়েছে দিলোয়ারা বেগমের কাঁকরোল ক্ষেত। ওই ক্ষেতের পাশ দিয়ে জনৈক কৃষক নাছির আহমদ তার পেঁপে ক্ষেতে বৈদ্যুতিক তারের ফাঁদ টাঙিয়ে দেন। শনিবার সকাল ৮টায় দিলোয়ারা বেগম তার বাড়ি থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে কাঁকরোল ক্ষেতে কাজ করতে গেলে ওই ক্ষেতের পাশ দিয়ে নেয়া নাছির আহমদের টাঙানো ওই বৈদ্যুতিক ফাঁদে আটকে মারা যান। ওই সময় স্থানীয় অন্যান্য কৃষক-কৃষাণীরা বিষয়টি দেখে দ্রুত বৈদ্যুতিক সংযোগ বন্ধ করে কৃষাণী দেলোয়ারা বেগমকে উদ্ধার করে বাঁশখালী হাসপাতালে নিয়ে আসেন। পরে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বাঁশখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ১ এর ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মোঃ নাঈম উদ্দিন বলেন, বৈদ্যুতিক ফাঁদে এক কৃষাণী মারা যাবার খবর পেয়ে অবৈধ বৈদ্যুতিক সংযোগকারী দুই ব্যক্তির বৈদ্যুতিক মিটার খুলে নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বৈলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ফসলি জমিতে বন্য হাতি ও চোরের উপদ্রব ঠেকাতে দেওয়া অবৈধ বৈদ্যুতিক সংযোগের ফাঁদে আটকে কৃষাণী দেলোয়ারা বেগমের মৃত্যু হয়েছে। ফসলি জমিতে দিনেদুপুরে বৈদ্যুতিক ফাঁদ দিয়ে রাখা স্থানীয় কৃষকদের জন্য চরম ঝুঁকিপূর্ণ। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের জরুরি ভিত্তিতে খতিয়ে দেখা উচিত।

বাঁশখালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। কৃষাণী দেলোয়ারা বন্য হাতি ও চোরের উপদ্রব ঠেকাতে দেওয়া বৈদ্যুতিক ফাঁদে আটকে মারা গেছেন। তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছি। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরো সংবাদ

বেসরকারি টিটিসি শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির দাবিতে স্মারকলিপি কলেজ শিক্ষার্থীদের শতাধিক মোবাইল জব্দ : পরে আগুন ধর্ষণসহ নির্যাতিতদের পাশে দাঁড়াতে বিএনপির কমিটি রাজধানীতে ট্রেন দুর্ঘটনায় নারীসহ দু’জন নিহত রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত আজমত আলীকে মুক্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত আজমত আলীকে মুক্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত আজমত আলীকে মুক্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের কাল এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ এরশাদের মৃত্যুতে ড. ইউনূসের শোক ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না : রাষ্ট্রপতি ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে ১০ সদস্যের হজ প্রতিনিধিদল সৌদি আরব যাচ্ছেন

সকল




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi