১৭ জুলাই ২০১৯

লাঠি নিয়ে তেড়ে আসায় মানসিক ভারসাম্যহীনকে পিটিয়ে হত্যা

মিরসরাইয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন অজ্ঞাতনামা (৩৫) এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করেছে কিছু লোক। শুক্রবার (১৫ জুন) রাতে উপজেলার জোরারগঞ্জ থানার জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের বিষ্ণুমিয়া হাট এলাকায় উত্তর তাজপুর গ্রামের মো.ইয়াছিনের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন রাজুর নেতৃত্বে এ ঘটনা ঘটে।

এঘটনায় নিখিল চন্দ্র নাথ নামে এক ব্যক্তি বাদি হয়ে জোরারগঞ্জ থানায় ১৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে উত্তর তাজপুর কাজির মসজিদের সামনে একজন মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তি বসা ছিল। এ সময় রিয়াজ উদ্দিন রাজু বাজার থেকে কাজ সেরে বাড়ি যাওয়ার সময় তার হাতে থাকা টর্চলাইনের আলো ওই মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির চোখে মুখে পড়ে। এতে সে রাজুকে লাঠি দিয়ে আঘাত করতে তেড়ে আসে।

তখন সে পালিয়ে গেলেও পরে রাজুর ও তার ভাই মিনহাজ উদ্দিনের নেতৃত্বে নাইমুর রহমান শোভন, জিয়াউর রহমান, রাজ্জাক, কামরুল রিপন, ভগবতীপুর গ্রামের আব্দুল হানিফ, মো.বাদশাসহ ৭০-৮০ জন লোক এসে ওই ব্যক্তিকে গণ পিটুনী দিয়ে মৃত ভেবে ফেলে চলে যায়। পরে বাদীসহ স্থানীয় লোকজন মুমুর্ষ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দিবাগত রাতে সে মারা যায়।

জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক আবেদ আলী জানান, মানসিক ভারসাম্যহীন ওই ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করার ঘটনায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে এবং এজাহারভূক্ত উত্তর তাজপুর গ্রামের মো. ইয়াছিনের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন, মিনহাজ উদ্দিন, আবু তৈয়বের ছেলে নাইমুর রহমান, হামিদুল হকের ছেলে জিয়াউর রহমান, ভগবতীপুর গ্রামের শহীদুল ইসলামের ছেলে আব্দুল হানিফ, কবির মালুমের ছেলে মো. বাদশাকে গ্রেফতার করে জেলা হাজতে পাঠানো হয়েছে।


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi