২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

লক্ষ্মীপুরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চেয়ে অগ্নিদগ্ধ শাহিনুরের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা

শাহিনুর
লক্ষ্মীপুরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চেয়ে অগ্নিদগ্ধ শাহিনুরের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা - ছবি : নয়া দিগন্ত

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে এসে স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ হয়ে শাহিনুর আক্তারের মৃত্যু ঘটনায় কমলনগর থানায় মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে ঘটনার মূল অভিযুক্ত সালাহ উদ্দিনকে এখনো গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। সালাহ উদ্দিন কমলনগর উপজেলার চর ফলকন গ্রামের মহর আলীর ছেলে।

মঙ্গলবার সকালে নিহতের বাবা জাফর আলম বাদী হয়ে কমলনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলাটি দায়ের করেন। নিহতের স্বামী সালাহ উদ্দিনকে প্রধান আসামি করে এজহার নামীয় পাঁচজন ও অজ্ঞাত আরো আটজনকে আসামি করে এ মামলা করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সালাহ উদ্দিনের ভাই আবদুর রহমান, মো: আলাউদ্দিন, স্থানীয় ইউপি সদস্য হাফিজ উল্লাহ ও গ্রাম পুলিশ আবু তাহের।

সোমবার রাতে নিহত শাহিনুর আক্তারের বাবা জাফর আলম, মামা কামাল উদ্দিন ও ফুফু নুরবানু পুলিশের সহযোগিতায় শাহিনুর আক্তারের অগ্নিদগ্ধ হওয়ার স্থান পরিদর্শন শেষে সকালে মামলাটি দায়ের করেন।

কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: ইকবাল হোসেন বলেন, নিহতের বাবা জাফর আলম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলাটি দায়ের করেছেন। এ মামলায় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রধান আসামি সালাহ উদ্দিনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

উল্লেখ্য, স্ত্রীর স্বীকৃতি চাওয়ায় লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে শাহিনুর আক্তার নামে ওই তরুণীর শরীরে আগুন দেয় তার স্বামী সালাহ উদ্দিন। রোববার বিকেল ৪টার দিকে কমলনগর উপজেলার চর ফলকন ইউনিয়নের আইয়ুবনগর এলাকার একটি সয়াবিন ক্ষেতে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। পরে সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান শাহিনুর আক্তার।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় অগ্নিদগ্ধ ওই তরুণী সাংবাদিকদের জানিয়ে ছিলেন, মোবাইলে তার সাথে সালাহ উদ্দিনের পরিচয়। পরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। দেড় বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় সালাহ উদ্দিন প্রথম স্ত্রী সন্তানের কথা গোপন রাখেন। বিষয়টি জানতে পেরে আমি চট্টগ্রাম থেকে কমলনগরে এসে স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইলে সালাহ উদ্দিন কেরোসিন তেল দিয়ে আমার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়।


আরো সংবাদ