১৮ আগস্ট ২০১৯

ঘটকালির নামে তরুণীকে ধর্ষণ, ধর্ষক কারাগারে

প্রতীকী ছবি - সংগৃহীত

বিয়ের ঘটকালির নাম করে এক প্রতিবন্দ্ধী তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ঘটকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের টামটা গ্রামে। এ ঘটনায় একই গ্রামের উত্তরপাড়ার রশিদের বাড়ি হতে ধর্ষক ঘটককে আটক করেছে পুলিশ। পরে রোববার তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঘটনার বিবরণ ও মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের টামটা গ্রামের উত্তরপাড়ার রশিদের বাড়ির মৃত আঃ সোবহানের পুত্র আমিনুল হক (৪৫) ঘটকালির নাম করে একই গ্রামের পশ্চিমপাড়ার মৃতঃ সুলতান পাটোয়ারির প্রতিবন্ধী কন্যা (২৬) কে ভালো ছেলের কাছে বিবাহের ব্যবস্থা করে দিবে মর্মে তাদের পরিবারের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে।

একপর্যায়ে ধর্ষিতার পরিবারের অনুপস্থিতিতে গত বছরের ২৮, ২৯ ও ৩০ আগস্ট রাতে ফুসলিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে তরুনীকে ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে ওই তরুণী গর্ভবতী হয়ে পড়লে গত বছরের ১৫ অক্টোবর রাতে তাকে তরল জাতীয় পানীয় খাইয়ে গর্ভপাত করায় অভিযুক্ত ধর্ষক। পরে ভিকটিম তরুণীর পরিবার বিষয়টি জানতে পারলে ধর্ষক আমিনুল তাদেরকে বিষয়টি গোপন রাখতে বলে।

এরপর গত ৩ নভেম্বর রাতে ধর্ষিতা তরুণী বাদি হয়ে শাহরাস্তি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরই গা ঢাকা দেয় অভিযুক্ত ধর্ষক আমিনুল। পরে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি শনিবার গভীর রাতে শাহরাস্তি থানার এসআই মোঃ নজরুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ ধর্ষক আমিনুলকে তার বাড়ি থেকে আটক করতে সক্ষম হয়।

এ বিষয়ে শাহরাস্তি থানার ওসি মোঃ শাহ আলম জানান, ইতোপূর্বে ভিকটিমের মেডিকেল পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আসামিকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

পানি খাওয়ার ছলে ঘরে ঢুকে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণ
উজিরপুর (বরিশাল) সংবাদদাতা, (১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯)

পানি খাওয়ার অজুহাতে ঘরে ঢুকে এসএসসি পরীক্ষার্থী এক স্কুলছাত্রীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের চাঙ্গুরিয়া গ্রামে।

এ ঘটনায় ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী নিজেই বাদী হয়ে শনিবার রাতে অভিযুক্ত বেল্লাল সরদারের (২২) বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত মাহেন্দ্র চালক বেল্লাল সরদার উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের চাঙ্গুরিয়া গ্রামের বজলু সরদারের ছেলে এবং ধর্ষণের শিকার মেয়েটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী।


এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ওই স্কুলছাত্রীকে গুরুত্বর আহতাবস্থায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ওই স্কুল ছাত্রী চলমান এসএসসি পরীক্ষায় নিয়মিত অংশগ্রহণ করছেন। গত শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নিজ ঘরেই লেখাপড়া করছিল ওই ছাত্রী। এ সময় তার মা পাশের বাড়িতে গেলে মাহেন্দ্র চালক বেল্লাল সরদার পানি খাওয়ার ছলে ঘরে ঢুকে ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে। তখন মেয়েটির চিৎকারে তার মা ঘরে চলে আসলে বেল্লাল দ্রুত পালিয়ে যায়।

উজিরপুর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিশির কুমার পাল মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ওই স্কুলছাত্রী নিজেই বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। সেই সাথে অভিযুক্ত বেল্লালকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


আরো সংবাদ




bedava internet