২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

চট্টগ্রাম বারের নির্বাচনে সভাপতিসহ ৯টি পদে বিএনপি-জামায়াতের জয়

চট্টগ্রাম বারের নির্বাচনে সভাপতিসহ ৯টি পদে বিএনপি-জামায়াত, সেক্রেটারিসহ ৯টিতে আওয়ামী লীগের জয় - সংগৃহীত

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সমান সংখ্যক পদে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত দুই প্যানেলের প্রার্থীরা। সমিতির ১৯টি পদ রয়েছে। যার মধ্যে সভাপতিসহ ৯টি পদে জিতেছে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট। আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ সাধারণ সম্পাদকসহ ৯টি পদে জিতেছে। বাকি একটি পদে জয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্যানেলের প্রার্থী।

সভাপতি পদে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী বদরুল আনোয়ার এক হাজার ২৩৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোক্তার আহম্মদ পেয়েছেন ৮০২ ভোট।
সাধারণ সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সমন্বয় পরিষদের অ্যাডভোকেট আইয়ুব খান এক হাজার ৮৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্যানেল সমমনা সংসদের অ্যাডভোকেট তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী টিপু পেয়েছেন ৮৩৮ ভোট।

এ ছাড়া সিনিয়র সহসভাপতি পদে বিএনপি সমর্থিত মো: ইসহাক, সহসভাপতি পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো: রফিকুল আলম, সহসাধারণ সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো: রাশেদ ফারুকী, অর্থ সম্পাদক পদে বিএনপি সমর্থিত রফিকুল আলম, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে বিএনপি সমর্থিত জেবুন্নাহার লীনা, পাঠাগার সম্পাদক পদে সমমনা প্যানেলের ভাস্কর রায়, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো: হাসান মুরাদ জয়ী হয়েছেন।

কার্যনির্বাহী সদস্যের পদের মধ্যে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্যফ্রন্টের পাঁচজন ও সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের পাঁচজন নির্বাচিত হয়েছেন।
নির্বাচনে তিন হাজার ৪২৬ জন ভোটারের মধ্যে দুই হাজার ৭৩৩ জন ভোট দেন। এর আগে রোববার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণের পর রাতে ফল ঘোষণা করা হয়। নির্বাচনে আইনজীবীদের ৪টি প্যানেল থেকে মোট ৪৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

দুই পা হারা বাবুলের পাশে ‘মনের ডায়েরী’র সদস্যরা
মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা

২০০৯ সালে গ্যাংরিনে আক্রান্ত হয়ে দুই পা হারান বাবুল মিয়া। চিকিৎসার জন্য নেই কোনো অর্থ। এরই মাঝে হার্টের সমস্যা, আলসারের সমস্যায়ও ভুগছেন। পরিবারের পাঁচ সদস্যকে নিয়ে দুর্বিষহ দিনাতিপাত করছেন। অর্থাভাবে টিনশেড বসতঘর মেরামত করার সাধ্য নেই, বর্ষায় টিন ছুঁয়ে ছুঁেয় পানি ঢুকে পড়ে বসতঘরে।

দীর্ঘসময় রোগভোগ করলেও কখনো হাত পাতেননি বাবুল। ঋণ, পরিবারের সদস্যদের স্বর্ণালঙ্কার বিক্রি, আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদের সহযোগিতায় চলছিল দিন। কিন্তু দিনদিন শারিরীক অক্ষমতাও বেড়েই চলছে।


উপায়ান্ত না পেয়ে সামাজিক সংগঠনগুলোর দ্বারস্থও হয়েছেন তিনি। ইতিপূর্বেও একাধিক সংগঠন তার পাশে দাঁড়িয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার সাড়া দিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকভিত্তিক গ্রুপ ‘মনের ডায়েরী’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

সংগঠনটির সদস্য ও গ্রুপ মেম্বারদের দেয়া ৪৫ হাজার টাকা রোববার বিকেলে হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কালা চৌকিদার বাড়ির রফিকুজ্জামানের পুত্র দু’পা হারা বাবুল মিয়ার পরিবারের হাতে তুলে দেয়া হয়। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ছিল সাংবাদিক এম আনোয়ার হোসেন, শফিকুর রহমান, অ্যাডমিন জাহিদ সোহাগ, উপদেষ্টা পরিষদের ফারুক আহম্মদ, মাহফুজ, নাজিম উদ্দিন, মডারেটর মোস্তাফিজ, সাঈদ হাসান নোবেল, নিরব, আশরাফুল প্রমুখ।

 

 


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme