১৮ নভেম্বর ২০১৮

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে যা বললেন আইনমন্ত্রী

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে যা বললেন আইনমন্ত্রী - ছবি : নয়া দিগন্ত

আইন-বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী এড. আনিসুল হক এমপি বলেছেন, ‘বেগম জিয়ার যথাযথ চিকিৎসা হচ্ছে না বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে বিএনপি। কারাগারে বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য চিকিৎসায় কোনো প্রকার অবহেলা হচ্ছে না। কারাবিধি মোতাবেক তার যথাযথ চিকিৎসা চলছে।’
শনিবার বিকেলে কুমিল্লার চান্দিনা মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, বেগম জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে যারা অপপ্রচার চালাচ্ছে মূলত তারা কিছুই জানেন না। কোনো কিছু না জেনে না বুঝে অযথাই জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে। তার সুচিকিৎসার জন্য দেশের প্রধান চিকিৎসালয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু তিনি যদি ইচ্ছে করে চিকিৎসা না নেন তার জন্য আমাদের কী করার আছে? এমনকি তার অসুস্থতার কথা বিবেচনা করেই কারাগারে আদালত স্থানান্তর করা হয়েছে।

বেগম জিয়ার জামিন পাওয়া নিয়ে মন্ত্রী বলেন, দেশের চলমান আইন অনুযায়ী তার সাজা হয়েছে। আইন অনুযায়ীই তার জামিন হবে।

দলীয় মনোনয়ন সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, দলীয় মনোনয়ন দিবেন মনোনয়ন বোর্ড। যার সুপ্রিম ক্ষমতা থাকবে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার। যারা দলীয় মনোয়ন পেয়ে গেছেন বলে অপপ্রচার চালাচ্ছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। এতে আপনারা বিভ্রান্ত হবেন না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের কথা শুনেন। তৃণমূল থেকে যাকে সিদ্ধান্ত দিয়ে কেন্দ্রে পাঠাবেন প্রধানমন্ত্রী তাকেই মনোনয়ন দিবেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যারা নিজেকে জাহির করতে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে আমার এমপিদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদেরকে মনোনয়ন দেওয়া হবে না।

দেশের উন্নয়ন সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। আগামীতে আওয়ামী লীগ আবারো ক্ষমতায় আসলে বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে একটি হবে বাংলাদেশ। আপনারা আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে আবারো নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়নের চাকা সচল রাখতে ঐক্যবদ্ধ থাকবেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অধ্যক্ষ আইউব আলীর সভাপতিত্বে এ সময় প্রধান বক্তার বক্তৃতা করেন সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপি।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা তপন বক্সী, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি এম হুমায়ূন মাহমুদ, এডভোকেট নিজামুল হক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুনতাকিম আশরাফ টিটু, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মহিউদ্দিন আহমেদ আলম, পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম, কুমিল্লা পবিস-১-এর জেনারেল ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমান, ইসলামী ঐক্য জোটের মহাসচিব মাওলানা মনিরুজ্জামান রাব্বানি।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন বাড়েরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম, চান্দিনা মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মামুন পারভেজ, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক জহিরুল ইসলাম মুন্সি, চান্দিনা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক আশেক এলাহী, কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক, স্থানীয় ঘোষিত উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম।

চান্দিনা উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুল ইসলাম তুহিন এর সঞ্চালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা কালী ভূষণ বক্সী, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী মাস্টার, চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি অধ্যাপক শ্রীধর বণিক, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মোখলেছুর রহমান দুলু প্রমুখ।

আরো পড়ুন :

দেশের নিরক্ষরতা দূর করার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ছাত্রলীগকে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
নয়া দিগন্ত অনলাইন

বাংলাদেশে নিরক্ষরতা দূর করতে ছাত্রলীগকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, ছাত্রলীগ তাদের টার্গেটেড সময়ের মধ্যেই ঘোষণা করবে বাংলাদেশে কোনো নিরক্ষরতা নেই।

শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসি মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন। আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস-২০১৮ উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ছাত্রলীগ। 


আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ছাত্রলীগ হাল ধরলে বাংলাদেশ থেকে নিরক্ষরতা দূর করতে লম্বা সময় লাগবে না। আমাদের পার্শ্ববর্তী তামিলনাড়ুতে ১০০ ভাগ শিক্ষিত। আমাদের দেশে এত সম্পদ রয়েছে। আমি মনে করি আমাদের সেই জায়গাতে যেতে আর লম্বা সময় লাগবে না যদি ছাত্রলীগ হাল ধরে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২০০১ সালে যখন আমরা ক্ষমতা ছাড়ি তখন সাক্ষরতার হার ছিল ৬০ শতাংশ। ২০০৯ সালে যখন আবার ক্ষমতা গ্রহণ করি তখন এই হার ছিল ৪০-৪১ শতাংশ। এই ধরনের ইতিহাস কোনো রাষ্ট্রে হয়েছে কি না আমার জানা নেই।

মন্ত্রী বলেন, আমরা চার হাজার মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎ রেখে গেলাম। এসে পেলাম তিন হাজার ২০০ মেগাওয়াট। আমরা চালে ও খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ রেখে গেলাম। সেখানে আমরা দেখলাম লক্ষ লক্ষ টন খাদ্য ঘাটতি। সেই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা কোথায় নিয়ে গেছেন। ২০০৮ সালে তিনি বলেছিলেন, বদলে দিবেন বাংলাদেশকে। তিনি যথার্থভাবেই তাঁর ওয়াদা অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছেন।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, আপনারা ঘুরুন সারা বাংলাদেশে। নিজের চোখে দেখুন আমরা কোথা থেকে কোথায় যাচ্ছি। পায়রা বন্দরের দিকে চলে যান, কক্সবাজারের দিক দিয়ে চলে যান, আমাদের নিউক্লিয়ার বিদ্যুৎকেন্দ্র হচ্ছে সেখানে চলে যান। কীভাবে উন্নয়নের মহাসড়কে আমরা মিলিয়ে গেছি সেটা লক্ষ করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর যেখানেই যাই, আজকে আমাদের বলে না বাংলাদেশ থেকে আসছ, ভিন্ন লাইনে দাঁড়াও। আমাদের আজকে সমীহ করে। আমি যেখানেই যাই সেখানে বলে তোমাদের সফলতার কারণটা কী। আমি বলি, প্রধানমন্ত্রী জনগণকে ভালোবাসেন, জনগণ তার ওপর আস্থা রেখেছে, যেমনভাবে তাঁর পিতার প্রতি আস্থা ছিল সারা বাংলাদেশের মানুষের। ষড়যন্ত্রকারীরা তাকে বেঁচে থাকতে দেয়নি।

এ সময় আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, আমি সারা বাংলাদেশে ঘুরে বেড়াই। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা দেখেছি।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক ড. খন্দকার বজলুল হক। অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় রিকশা চালায় এমন সাতজন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারজন হল ক্যান্টিন কিশোরের হাতে বই তুলে দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।


আরো সংবাদ

নির্বাচনী প্রার্থীদের নদী রার অঙ্গীকার মঙ্গলকর : তথ্যমন্ত্রী ধর্মহীন রাজনৈতিক দলের সাথে জোট করে কল্যাণরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয় : সৈয়দ রেজাউল করীম লাঙ্গল প্রতীকে নির্বাচন করবে জাতীয় পার্টি : মহাসচিব রাষ্ট্রপতি হওয়ার স্বপ্নে বিভোর ড. কামাল : হানিফ নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি হয়নি : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি বিচারিক ক্ষমতা ছাড়া সেনাবাহিনী মোতায়েনের সফলতা নিয়ে সংশয় মহাজোটে ভিড়ছে ভুঁইফোড় দল লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করবে নির্বাচন কমিশন : ওবায়দুল কাদের আ’লীগ-বিএনপি উভয় দলেই একাধিক প্রার্থী আওয়ামী লীগ-বিএনপিতে কোন্দল জামায়াত নীরবে চালাচ্ছে তৎপরতা বিভিন্ন স্থানে বিরোধী নেতাকর্মী গ্রেফতার অব্যাহত

সকল