১৭ আগস্ট ২০১৮

মুহুরী ও ফেনী নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ৮০ গ্রামের মানুষ পানিবন্দি

-

তিন দিন ধরে টানা ভারী বর্ষণ ও সীমান্তের ওপার থেকে ধেঁয়ে আসা পাহাড়ি ঢলের পানির তোড়ে ফেনীর ভারত সীমান্তবর্তী মুহুরী,কহুয়া ও ফেনী নদীর মিজান বাঁধ ভেঙ্গে ছাগলনাইয়া, পরশুরাম ও ফুলগাজী লক্ষাধিক মানুষ দুই দিন ধরে পানিবন্দি রয়েছেন। বাড়ি-ঘরে পানি ওঠায় পবিত্র রমজান মাসে খাবারের সঙ্কটের মানবেতর জীবন যাপন করছেন বানভাসী মানুষ ।
বৃহস্পতিবার বিকেল ছাগলনাইয়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পানিবন্দি ৫ হাজার মানুষের কাছে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে । এদিকে, পরশুরাম ও ফুলগাজীতে বুধবার বিকেলে ফেনী জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায়, উপজেলা নিবার্হী অফিসার ও জনপ্রতিনিধিরা পানিবন্দি কয়েক হাজার মানুষের শুকনো খাবার বিতরণ করেছেন । স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বন্যা দূর্গত মানুষের অভিযোগ, দুই দিন ধরে পানিবন্দি হয়ে আটকে পড়ে থাকলেও বেশিরভাগ কোন ত্রানসামগ্রী পাননি ।
জানাগেছে, তিন দিনের ভারী বর্ষণ ও ভারত সীমান্তের ওপারে ভারী বর্ষণে সৃষ্ঠ পাহাড়ি ঢলের পানির তোড়ে বুধবার বিকেলে ছাগলনাইয়ার লাঙ্গলমোড়া গ্রামে ফেনী নদীর মিজান বাঁধ ভেঙ্গে যায় । এ ছাড়া বিভিন্ন ছড়া ও খাল দিয়ে ভারতে আসা পানির চাপে ছাগলনাইয়া উপজেলার ৫০টি গ্রাম পানির নিচে তলিয়ে গেছে । এর মধ্যে ঘোপাল ইউনিয়নের ২৪টি, শুভপুরে ১১টি, মহামায়ায় ৬টি, পৌর এলাকার ৩টি ও রাধানগর ইউনিয়নের ৭টি গ্রামের বেশিরভাগ এলাকা পানির নিচে তলিয়ে আছে । পানিবন্ধি হয়ে পড়েছেন অনন্ত অর্ধলক্ষাধিক গ্রামবাসী । বাড়ি ঘরে পানি ওঠায় রান্না করতে না পারায় পানিবন্দি পরিবারগুলোতে চলছে খাবারের সংকট ।
অপরদিকে, সীমান্তবর্তী পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলায় মুহুরী,কহুয়া ও সিলোনিয়া নদীর বেড়িবাঁধের তাকিয়া, ডিএম সাহেবনগর, উত্তর বরই,দৌলতপুর,নাপিতকোনা,বাহারমিয়া জামে মসজিদ এলাকাসহ ১৬টি স্থানে ভয়াবহ ভাঙ্গনের ফলে ৩০টি গ্রামের কমপক্ষে কমপক্ষে ৬০ হাজার মানুষ পানিবন্দি পড়েছেন । বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ফেনী পরশুরাম,ফুলগাজী,ছাগলনাইয়া-মহুরীগঞ্জ প্রধান সড়কসহ তিনটি উপজেলার স্থানীয় সড়কগুলো দুইদিন ধরে পানির নিয়ে তলিয়ে আছে । এদিকে, স্থানীয়রদের অভিযোগ মুহুরী নদীর বাঁধ সংস্কারে নিয়মের কারণেই প্রতি বছর বর্ষার শুরুতেই পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলার মানুষের জীবনে দুর্ভোগ নেমে আসে । এদিকে, ঈদের মাত্র দুই-তিন দিন বাকি থাকলেও ছাগলনাইয়া,পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলার গ্রামের পর গ্রাম বানের পানিতেবন্দি হয়ে পড়েছেন ।
ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিদা ফাতেমা চৌধুরী গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে জানান,ঘোপাল,মহামায়া,রাধানগর ও শুভপুর ইউনিয়নে পানিবন্দি পাঁচ হাজার মানুষের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে ।


আরো সংবাদ